শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩৩ অপরাহ্ন

কানাডার বন্ধ আবাসিক স্কুলে ৭৫১ কবর

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১
  • ৪৪
কানাডার বন্ধ আবাসিক স্কুলে ৭৫১ কবর

কানাডার সাসকাচেওয়ান প্রদেশে পূর্বেকার একটি আবাসিক আদিবাসী স্কুলে সাড়ে সাতশর বেশি অচিহ্নিত কবর শনাক্ত হয়েছে। এটিকে দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য আবিষ্কার হিসেবে উল্লেখ করেছে কাউয়েসেস ফার্স্ট ন্যাশন নামে একটি স্থানীয় আদিবাসী সংগঠন।

এ ঘটনার মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগেই ব্রিটিশ কলম্বিয়ায় একই ধরনের একটি স্কুলে ২১৫টি শিশুর দেহাবশেষ খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল। খবর ইউএসটুডে।

সাসকাচেওয়ানে ফেডারেশন অফ সার্বভৌম আদিবাসী ফার্স্ট নেশনসের প্রধান ববি ক্যামেরন বলেন, এটি মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ, প্রথম জাতির উপর আক্রমণ। তিনি বলেছিলেন যে তিনি আশা করেন কানাডা জুড়ে আবাসিক বিদ্যালয়ের মাঠে আরও কবর পাওয়া যাবে। আমরা সব মৃতদেহ খুঁজে না পাওয়া পর্যন্ত থামব না।

কাউয়েসেস প্রধান ক্যাডমাস ডেলোরমে বলেছেন, এগুলো কোনো গণকবর নয়। এগুলো মূলত নাম-নিশানাবিহীন কবর।

ম্যারিয়েভাল ইন্ডিয়ান রেসিডেন্সিয়াল স্কুল ১৮৯৯ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত চালু ছিল। রোমান ক্যাথলিক চার্চ এটি পরিচালনা করত। সেসময় এ ধরনের অন্তত ১৩০টি বোর্ডিং স্কুল চালু করেছিল কানাডা সরকার। আদিবাসীদের অঙ্গীভূত করার লক্ষ্যে ধর্মীয় সংগঠন দিয়ে চালানো হতো সেগুলো।

কোয়েসেসের প্রধান ক্যাডমুসেন ডেলমোর বলেছিলেন, যে কবরগুলি এক সময় চিহ্নিত করা হয়েছিল, কিন্তু রোমান ক্যাথলিক চার্চ যারা স্কুলটি পরিচালনা করত তারা মার্কারগুলি সরিয়ে ফেলেছিল।

তিনি বলেন, যা ঘটেছে তার জন্য পোপকে ক্ষমা চাইতে হবে। ক্ষমা একমাত্র পথ।

গত মাসে ২১৫ জন শিশুর দেহাবশেষ পাওয়া গেছে, যাদের বয়স ৩ বছরের কম, ব্রিটিশ কলম্বিয়ার কামলুপসের কাছে কানাডার বৃহত্তম আদিবাসী আবাসিক বিদ্যালয়ের জায়গায় সমাধিস্থ অবস্থায় পাওয়া গেছে।

ঊনবিংশ শতাব্দী থেকে ১৯৭০-এর দশক পর্যন্ত, ১ লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি আদিবাসী শিশু রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত খ্রীষ্টান বিদ্যালয়ে পড়তে বাধ্য হয়, যাদের বেশিরভাগই রোমান ক্যাথলিক মিশনারি মণ্ডলী দ্বারা পরিচালিত হয়, তাদের কানাডিয়ান সমাজে আত্মীকরণের একটি প্রচারণায়।

কানাডিয়ান সরকার স্বীকার করেছে যে স্কুলে শারীরিক ও যৌন নির্যাতন ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছিল, শিক্ষার্থীদের তাদের মাতৃভাষায় কথা বলার জন্য মারধর করা হয়েছিল।

এক বিবৃতিতে কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, তিনি সাসকাচেওয়ানে আবিষ্কার নিয়ে গভীরভাবে দুঃখিত। তার মতে, আদিবাসীরা যে পদ্ধতিগত বর্ণবাদ, বৈষম্য ও অন্যায়ের শিকার হয়েছিল, এগুলো তারই লজ্জাজনক স্মৃতি।

ডি-এফবি




Source by [author_name]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102