রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
খুলনায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে কেএমপির বর্ণাঢ্য র‌্যালি পদ্মা সেতুর লাইভ অনুষ্ঠানে অস্ত্র নিয়ে মহড়া, সাংবাদিক গ্রেপ্তার বাইডেনকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ পানিতে তলিয়ে গেল রাস্তা, জাল ফেলতেই ধরা পড়ল প্রচুর মাছ অবশেষে যুগান্তকারী আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলে বাইডেনের স্বাক্ষর ভিনিসিয়াস আমার ভাইয়ের মত: রোদ্রিগো – স্পোর্টস প্রতিদিন শরণখোলায় পদ্মা সেতুর উদ্ধোধন উপলক্ষ্যে নানা অয়োজনে উৎসব পালন শরণখোলায় ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল এসএসসি পরীক্ষার্থী হুট করে ফরিদপুরের পানিতে লবণাক্ততা বৃদ্ধি, কুমিল্লাবাসী বললো, ‘ফার্স্ট টাইম?’ পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিমান বাহিনীর মনোজ্ঞ ফ্লাইপাস্ট অনুষ্ঠিত

ম্যাপ বিকৃতি : ভারতে টুইটার কর্তার বিরুদ্ধে এফআইআর

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১
ম্যাপ বিকৃতি : ভারতে টুইটার কর্তার বিরুদ্ধে এফআইআর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে টুইটারের এমডি মনীশ মাহেশ্বরীর বিরুদ্ধে আরেকটি এফআইআর করলো উত্তর প্রদেশ পুলিশ। টুইটারে ভারতের বিকৃত ম্যাপ প্রকাশ করার জন্য এই এফআইআর। খবর ডয়চে ভেলে’র।

এফআইআরে অভিযোগ, টুইটারে প্রকাশিত ভারতের ম্যাপে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখকে আলাদা দেশ হিসাবে দেখানো হয়েছে। বজরং দলের এক কর্তা এনিয়ে বুলন্দশহরে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভারতে এমনিতেই টুইটারের সঙ্গে সরকারের সংঘাত তীব্র হয়েছে। টুইটার প্রথমে নতুন ডিজিটাল আইন মানতে চায়নি। দিল্লি পুলিশ তারপর টুইটার অফিসেও হানা দিয়েছিল। গাজিয়াবাদে এক মুসলিম ব্যক্তিকে নিগ্রহ করা সংক্রান্ত টুইট নিয়ে মাহেশ্বরীকে ডেকে পাঠিয়েছিল উত্তর প্রদেশের পুলিশ। তার বিরুদ্ধে এফআইআরও হয়। মাহেশ্বরী কর্ণাটক হাইকোর্টে আবেদন করেন। কর্ণাটক হাইকোর্ট জানায়, মাহেশ্বরীকে উত্তর প্রদেশ যেতে হবে না। দরকার হলে উত্তর প্রদেশের পুলিশ কর্ণাটকে এসে মাহেশ্বরীকে জেরা করতে পারে। তবে তাকে গ্রেপ্তার করা যাবে না।

তার পর এই ম্যাপ বিতর্কে জড়িয়েছেন মাহেশ্বরী। প্রবল প্রতিক্রিয়া হওয়ায় সোমবার ওই ম্যাপ টুইটার সরিযে নেয়। কিন্তু বিতর্ক তাতে মেটেনি। এফআইআরে বলা হয়ছে, টুইটার কর্তৃপক্ষ ইচ্ছে করে এই কাজ করেছেন। তাই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

তবে এক মাস ধরে চলা তীব্র বিরোধের পর টুইটার তাদের গ্লোবাল লিগ্যাল পলিসি ডিরেক্টর জেরেমি কেসেলকে ভারতের গ্রিভ্যান্স অফিসার হিসাবে নিয়োগ করেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন নিয়ম অনুসারে কোনো বেআইনি, আপত্তিকর ও জাতীয় স্বার্থবিরোধী টুইটের বিরুদ্ধে অভিযোগ এলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সামাজিক মাধ্যমগুলিকে অফিসার নিয়োগ করতে হবে।

টুইটার প্রথমে ধর্মেন্দ্র চতুরকে নিয়োগ করেছিল। কিন্তু তিনি ইস্তফা দেন। কারণ, সরকারের এই নিয়োগ নিয়ে আপত্তি ছিল।



Source by [author_name]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি

Recent Posts

সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102