সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:১৮ অপরাহ্ন

ভারতে করোনায় মৃতের পরিবার ক্ষতিপূরণ পাবে: সুপ্রিম কোর্টের রায়

  • আপডেট সময় বুধবার, ৩০ জুন, ২০২১
  • ৩৮
ভারতে করোনায় মৃতের পরিবার ক্ষতিপূরণ পাবে: সুপ্রিম কোর্টের রায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে করোনায় মৃতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে মোদী সরকারকে। কারণ, আইনে সেটাই আছে। রায় সুপ্রিম কোর্টের।

করোনাকে অতিমারি ঘোষণা করার পর যতজন এই রোগে মারা গেছেন, তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে। কারণ, ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটি আইনে সেটা বলা হয়েছে। ফলে কেন্দ্রীয় সরকার দায় এড়িয়ে যেতে পারে না। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অশোক ভূষণের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এই রায় দিয়েছে। তবে কত ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে, সেটা জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষ ঠিক করবে। ছয় সপ্তাহের মধ্যে তাদের নির্দেশিকা তৈরি করে ফলতে হবে বলে সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছে।

করোনায় মৃতের পরিবারকে চার লাখ টাকা দেয়ার আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয়েছিল। কিন্তু নরেন্দ্র মোদী সরকার এই ক্ষতিপূরণ দেয়ার তীব্র বিরোধী ছিল। তারা আদালতকে জানিয়েছিল, করোনায় মৃতের পরিবারকে যদি চার লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়, তা হলে তো সরকারের হাতে বিপর্যয় মোকাবিলার কোনো টাকাই থাকবে না। এমনিতেই করোনার কারণে স্বাস্থ্যখাতে প্রচুর অর্থ দিতে হচ্ছে। তার উপর রাজস্ব আদায় অনেক কম হচ্ছে। তাই ক্ষতিপূরণ দেয়া যাবে না।

কিন্তু আদালত জানিয়ে দেয়, বিপর্যয় মোকাবিলা আইনেই বলা হয়েছে, ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে। তাই যবে থেকে করোনাকে বিপর্যয় আইন অনুসারে অতিমরি বলে চিহ্নিত করা হয়েছে, তারপর থেকে মৃতের পরিবারকে এককালীন ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

মোদী সরকারের যুক্তি ছিল, ক্ষতিপূরণ দিতেই হবে এরকম কোনো কথা আইনে নেই। কিন্তু আদালত জানিয়ে দেয়, আইনে বলা হয়েছে, জাতীয় বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে ন্যূনতম পরিত্রাণ দিতে সরকার দায়বদ্ধ। ক্ষতিপূরণ এই পরিত্রাণের মধ্যেই পড়ে। বিচারপতিরা বলেছেন, ”ন্যূনতম পরিত্রাণের ব্যবস্থা করাটা তাই কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। অনেক দিন কেটে গেছে, কিন্তু এই বিষয়ে কোনো নির্দেশিকা প্রকাশ করেননি জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষ। তারা দায়িত্ব পালনে করতে ব্যর্থ হয়েছেন।”

করোনাকে জাতীয় বিপর্যয় আইনের আওতায় নিয়ে আসার পর প্রায় চার লাখ মানুষ মারা গেছেন। ফলে তাদের পরিবারকে এখন ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। তবে আদালত জানিয়ে দিয়েছে, ক্ষতিপূরণ কত দিতে হবে, সেই ব্যাপারে তারা কোনো নির্দেশ দেবে না। এটা জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষ ঠিক করবে। তারা বিচার করে দেখবে, পরিবারগুলিকে কত টাকা দেয়া উচিত। সেইমতো তারা নির্দেশিকা প্রকাশ করবে।- পিটিআই, এএনআই



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102