বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

বাগেরহাটে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান বুথে নেই স্বাস্থ্যবিধি, বাইরে গ্রহিতাদের ভীড়

  • আপডেট সময় সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ১৮
বাগেরহাটে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান বুথে নেই স্বাস্থ্যবিধি, বাইরে গ্রহিতাদের ভীড়

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন ৫০ শয্যা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ভ্যাকসিন প্রদান বুথে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্য বিধি। রেডক্রিসেন্টের নিবন্ধন টেবিলের সামনে গাদাগাদি করা লোক।একজনের শরীরের সাথে অন্যজনের শরীরে মেশানো। বুথের বাইরে টিকা গ্রহিতাদের উপচে পড়া ভীড়। দীর্ঘ লাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা দাড়িয়ে আছেন নানা বয়সী মানুষ। কেউ কেউ ছাতা নিয়ে, আবার কেউ হাতের ব্যাগ মাথায় দিয়ে দাড়িয়ে আছেন রোদের মধ্যে।নারী বৃদ্ধরা পড়েছে বিড়ম্বনায়।লাইনে দাড়ানো লোকদের গা ঘেসে হেটে যাচ্ছেন, কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীনর রোগীর স্বজনরা।ভ্যাকসিন গ্রহিতার ভীড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবকরা।সোমবার (১২ জুলাই) বেলা ১১ টায় বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালের সামনে টিকা গ্রহিতাতের এই চিত্র দেখা যায়।তবে স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, যারা আজকের জন্য ম্যাসেজ পেয়েছেন শুধুমাত্র তারা আসলে এই ভীড় হত না।যাদেরকে টিকার ম্যাসেজ দেওয়া হয়নি, তারা আসায় অতিরিক্ত ভীড় হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাযায়, দুই দফায় সিনোফার্মের পাওয়া ২৮ হাজার ৪০০ টিকা রয়েছে বাগেরহাটে। সরকারি নির্দেষনা অনুযায়ী তারিখ থেকে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন ৫০ শয্যা  করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে পাঁচটি বুথে এই টিকা দেওয়া হচ্ছে। ৮, ১০ এবং ১১ জুলাই এই তিন দিনে নিবন্ধিত হাজার ৬৩০ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

ষাটগম্বুজ থেকে টিকা নিতে আসা সুজয় দে বলেন, সকাল ৮টা থেকে এসে লাইনে দাড়িয়েছি।রোদের মধ্যে দাড়িয়ে খুব খারাপ অবস্থা আমাদের। এভাবে দাড়িয়ে থেকে অনেকেই অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে।

টিকা নিয়ে বের হওয়া হাজেরা বেগম বলেন, সকাল ৮টায় আসতে বললেও এসেছিলাম সাতটায়। তারপরও প্রায় তিন ঘন্টা দাড়িয়ে থেকে টিকা দিতে পেরেছি। এজন্য সকলকে ধন্যবাদ।

লাইনে দাড়ানো আব্দুল গফফার সুব্রত পাল বলেন, এত অব্যবস্থাপনা চিন্তা করা যায় না। সবাইকে একজায়গায় এনে স্বাস্থ্য বিধি লঙ্গন না করে, এলাকায় এলাকায় টিকা দেওয়ার দাবি জানান তারা।

বাগেরহাট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুব প্রধান শরিফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, জুলাই থেকেই আমাদের ৫০ জন স্বেচ্ছাসেসবক এখানে কাজ করছে। কিন্তু টিকা নিতে আসা লোকের চাপ এত বেশি যে আমরা তাদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছি। টিকা গ্রহিতারা বসে অপেক্ষা করবে এমন কোন জায়গা ছিল না। আমরা বসার জন্য একটি প্যান্ডেলও করেছি। লোক এত বেশি যে সবাইকে বসতেও দেওয়া যাচ্ছে না। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি সকলকে স্বাভাবিকভাবে টিকা দিয়ে বাড়ি ফেরাতে।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, প্রতিদিন ৪০০ মানুষকে টিকা দেওয়ার সক্ষমতা আছে। আমরা চারশ মানুষকেই ম্যাসেজ দিয়েছি। কিন্তু ম্যাসেজ না পেয়েও কিছু মানুষ টিকা কার্ড নিয়ে হাসপাতালে এসেছে। যার ফলে এই ভীড়ের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা তাদের না আসতে অনুৎসাহিত করছি।মাইকিং করে তাদেরকে না আসার জন্য বলে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যারা রেজিষ্ট্রেশন করেছেন তারা সবাই টিকা পাবেন।তারা হুরো করার কিছু নেই। আমাদের পর্যাপ্ত টিকার মজুত রয়েছে। এই টিকা দেওয়া শেষ হলে আমাদেরকে আরও টিকা বরাদ্দ দেওয়া হবে।

 বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ ১৯৬জন আক্রান্ত, মৃত্যু

বাগেরহাটে গেল ২৪ ঘন্টায় ৭৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৯৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।এটাই একদিনে বাগেরহাটে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এই সময়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্ত দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে একদিনে ১৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।সব মিলিয়ে বাগেরহাটে  করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়াল হাজার ৭৬১ জনে। এর মধ্যে সুস্থ্য হয়েছেন হাজার ২৫১ জন।মোট মারা গেছেন ১০২ জন। সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতাল বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন হাজার ৫১০ জন। সোমবার(১২ জুলাই)দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এসব তথ্য জানিয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে বাগেরহাট সদর উপজেলায় ১৩৩ জন, ফকিরহাটে ২১, মোড়েলগঞ্জে ৩, মোংলায় ১৪, কচুয়ায় ১৫, রামপালে ৪, চিতলমারী এবং শরণখোলায় জন রয়েছে।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, গেল ২৪ ঘন্টায় ৭৩৫ জনের পরীক্ষায় ১৯৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটাই বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ পরীক্ষা সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। তবে আমরা আশা করছি সংক্রমনের এই পরিমান খুব দ্রুত কমে আসবে। এজন্য সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরিধান স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

বাগেরহাটে ক্রীড়াবিদদের মাঝে খাদ্য সামগ্রি বিতরণ

বাগেরহাটে অস¦চ্ছল ক্রীড়াবিদ ক্রীড়া সংগঠকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে।  সোমবার (১২ জুলাই) দুপুরে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাগেরহাট শেখ হেলাল উদ্দিন কাবাডি স্টেডিয়ামে এই খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করা হয়। এসময়, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমান, বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার নাসির উদ্দিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ মোছাব্বেরুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি হায়দার আলী বাবু, কোষাধ্যক্ষ সরদার ওমর ফারুক, পৌর কাউন্সিলর রেজাউর রহমান মন্টু, তৌহিদুর রহমান জনি,এ্যাড. স্বপন কুমার দাসসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান বলেন, লকডাউনে কর্মহীন মানুষ যাতে খাবারের কষ্টে না ভোগে জন্য আমরা খাদ্য সামগ্রি বিতরণ শুরু করেছি। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

বাগেরহাটে বাস-মালিক সমিতির পক্ষ থেকে পরিবহন শ্রমিকদের টিকার নিবন্ধন

করোনা থেকে সুরক্ষা পেতে টিকা নিতে হবে। আর টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করতে হবে অনলাইনে। কিন্তু স্বল্প শিক্ষিত, কোন কোন ক্ষেত্রে অশিক্ষিত বা অক্ষরজ্ঞানহীন পরিবহন শ্রমিকরা অনলাইনে কিভাবে নিবন্ধন করবেন। পরিবহন শ্রমিকদের অনলাইনে নিবন্ধন এবং টিকা প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে বাগেরহাট বাস মালিক সমিতি। বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে বাগেরহাটে পরিবহন শ্রমিকদের অনলাইনে করোনা ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধন করে দেওয়া শুরু হয়েছে।সোমবার (১২ জুলাই) বিকেলে বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি।

বিনামূল্যে কোন ঝামেলা ছাড়া অনলাইনে টিকার নিবন্ধন সম্পূর্ণ করতে পারায় খুশি শ্রমিকরা।পরিবহন শ্রমিক আতিয়ার রহমান, এশারাত হোসেন, রাজিব হোসেন, আব্দুস ছত্তার, মোঃ এখলাস শেখসহ কয়েকজন বলেন, আমাদের টিকা দেওয়ার খুব ইচ্ছে। কিন্তু চিন্তায় ছিলাম, কিভাবে অনলাইনে নিবন্ধন করব ভেবে পাচ্ছিলাম না। হঠাৎ করে সমিতি থেকে ফোন দিয়ে বলেছে যারা টিকা নিবেন, তারা অফিসে এসে নিবন্ধন করে যাবেন। অফিসে আসলাম জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে, কোন ঝামেলা ছাড়াই নিবন্ধন করে টিকা কার্ড নিয়ে বাড়ি চলে যাচ্ছি।সমিতির পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ নেওয়ায়, আমাদের খুব উপকৃত হয়েছে।

বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি বলেন, বেশিরভাগ পরিবহন শ্রমিকরা অনলাইন সম্পর্কে অজ্ঞ। তাই তাদের কথা চিন্তা করে আমরা টিকার জন্য নিবন্ধন করে দিচ্ছি। আমাদের হাজার ২০০ শ্রমিক রয়েছে। এদের মধ্যে যাদের বয়স ৩৫ হয়েছে, তাদের সকলকে আমরা নিবন্ধন করে দিব।

কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষথেকে এতিমদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

বাগেরহাটের কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এতিমখানায় বসবাস করা এতিম নিবাসীদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে উপজেলার মঘিয়া এতিমখানা লিল্লাহ বোডিংয়ের  নিবাসীসের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডেটল সাবান বিতরণ করা হয়। এসময়, কচুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি খোন্দকার নিয়াজ ইকবাল, উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবিলীগের সভাপতি শিকদার রিপন,  কচুয়া প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক রথীন্দ্র নাথ সাহা, নির্বাহী সদস্য খান সুমন, সাংবাদিক মোঃ রুম্মান, টাইম টেলিভিশনের বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি রাজীব শেখ রাজু, প্রনব করাতী উপস্থিত ছিলেন। পরে উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানার নিবাসীদের মাঝে এই সুরক্ষা সামগ্রী পৌছে দেওয়া হয়।


Post Views:
2



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102