বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম

সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১
  • ৫৮
সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

কেএমপির অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগর পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকা হতে ৪৫ পিস ইয়াবা, ২৫ গ্রাম গাঁজা নগদ ১,১০৫ টাকাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন নগরীর দক্ষিণ টুটপাড়া জনকল্যান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্ব পাশের গলি খ্রিষ্টানপাড়ার বাবুল শেখের ছেলে নয়ন শেখ (২০) ও  আড়ংঘাটা তেলিগাতী দক্ষিনপাড়ার মৃত. মোজাফ্ফর মীরের ছেলে রফিক মীর (৫৮)। 

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. শাহ্ জাহান শেখ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় নগরীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। এসময় ৪৫ পিস ইয়াবা, ২৫ গ্রাম গাঁজা নগদ ১,১০৫ টাকাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায়  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

যশোরে র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার

যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন রামনগর খাঁপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২৫০ গ্রাম গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। ১১ জুলাই রাত সাড়ে ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন মুড়লী এলাকার মৃত. রাজ্জাক এর ছেলে মো. আরব আলী (২৫), মৃত. ফজলুল হক এর ছেলে মো.মঈন উদ্দিন (৩০) ও  মৃত. জামাল এর ছেলে মো. সোহরাব হোসেন (৩০)। 

র‌্যাব-জানায়, ১১ জুলাই রাত সাড়ে ১০টার দিকে যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন রামনগর খাঁপাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় চেয়ারম্যান বাড়ীর সংলগ্ন ইয়াছিন আলীর দৗচালা টিনের ঘরের পূর্ব পাশ থেকে 

২৫০ গ্রাম গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে  যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

অভয়নগরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১ জনের মৃত্যু: ২৪ ঘন্টায় ৩০ জন আক্রান্ত

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

অভয়নগরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে জনের মৃত্যু হয়েছে। ছাড়াও ২৪ ঘন্টায় ৩০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে পযর্ন্ত মারা গেছেন ৩৮ জন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে চলিশিয়া এলাকার এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে অঞ্চলে ২৪ ঘন্টায় ৪৮ নমুনায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ জন। নতুন ৫৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করে যশোর খুলনা ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। উপজেলার পৌর ইউনিয়নে করোনা পজিটিভ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে জন ৪নং ওয়ার্ডে জন, ৫নং ওয়ার্ডে জন, ৬নং ওয়ার্ডে ১৯ জন, ৭নং ওয়ার্ডে জন, ৮নং ওয়ার্ডে জন। এছাড়াও করোনা আক্রান্ত হয়ে ইউনিয়নের প্রেমবাগ ইউনিয়নে জন, সুন্দলী ইউনিয়নে ১জন, চলিশিয়া ইউনিয়নে জন, পায়রা ইউনিয়নে জন, শ্রীধরপুর ইউনিয়নে ১জন বাঘুটিয়া ইউনিয়নে ২জন। পযর্ন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন ১৮২ জন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে ২৫ জন, উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা রেফার্ড করা হয়েছে ১০ জনকে। এবং বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন ৪০০ জন। পর্যন্ত সুস্থ্য হয়েছে ১০৩৮ জন। উপজেলায় মোট ৪৬৪৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে যার মধ্যে ১৪৭৬ জনের করোনা ধরা পড়েছে। পরীক্ষ্য বিবেচনায় উপজেলায় শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৭৫ শতাংশ এবং মৃত্যু হার দশমিক শতাংশ। ব্যপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আলীমুর রাজীব বলেন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে জনের মৃত্যু হয়েছে ৪৮নমুনায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ জন। এ  রির্পোটি গতকাল সোমবার হাতে পেয়েছি আক্রান্ত হয়ে উপজেলায় পযর্ন্ত মারা গেছেন ৩৮ জন। যে কারণে কঠোর বিধি নিষেধ সহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে।

জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উপলক্ষে কালিবাড়ি মন্দিরে পূজা অনুষ্ঠিত

খবর বিজ্ঞপ্তি

জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উপলক্ষে পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা সংক্রমনের কারণে স্বাস্থ বিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় খুলনা বাজার পুরাতন কালিমাতা মন্দিরে বছর শুধুমাত্র পূজার আয়োজন করা হয়। সোমবার সকাল থেকে দিন ব্যাপী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আগামী ২০জুলাই এই পূজা শেষ হবে। মন্দিরটি সুসজ্জিত করা হয়েছে। পরিচালনায় ছিলেন উজ্জল ব্যানার্জী সুশান্ত ব্যানার্জী। পুজারী ছিলেন ভোলানাথ ভট্টচার্য আকাশ ব্যানার্জী।

 উপস্থিত ছিলেন মন্দিরের পুরাহিত সেবায়েত শিবচন্দ্র ব্যানার্জী, শ্যামল হালদার, অরবিন্দ সাহা, ভোলানাথ ভট্টচার্য, গোপী কিষান মুন্ধাড়া, প্রশান্ত কুমার কুন্ডু, ধর্মীয় সংবাদ পরিবেশক সমাজসেবী সুব্রত হালদার তপা, প্রশান্ত ব্যানার্জী, শিবনাথ ভক্ত, তোতন হালদার,  রতন দেবনাথ, রাজ কুমার শীল, শংকর ঘোষ, স্বপন সরকার, দিলীপ সাহা, শরৎ মুন্ধাড়া, তরুন রায় শিবু, চিত্তরঞ্জন দাস,বিশ^জিৎ দে মিঠু,শংকর কর্মকার, ভবেশ সাহা, রুপম দে, গনেশ হাজরা,ইন্দ্রজিত কুন্ডু গোপাল, বাবলু বিশ^াস, মুক্তি ব্যানার্জী, শিউলী ব্যানার্জী, কেয়ারানী ব্যানার্জী, বিকাশ সাহা, সনদ বকসী, মিঠুন সাহা পলাশ সাহা।

বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ নগর শাখার সভাপতি শ্যামল হালদার বলেন, করোনা সংক্রমনের কারণে স্বাস্থ বিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মন্দিরে পূজা পালন করা হবে। কোন আনন্দ উৎসব পালিত হবে না।

বিসিবি পরিচালক শেখ সোহেল তাঁর সহধর্মিনীর সুস্থতা কামনায় খুলনা উন্নয়ন কমিটি

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক, বাংলাদেশ আওয়ামী যুব লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ সোহেল তার সহধর্মিনীর সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑবৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, মহাসচিব কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মাদ আলী, সহ-সভাপতি শাহীন জামাল পন, মোঃ নিজাম-উর রহমান লালু, জেড মামুন ডন, মিজানুর রহমান বাবু, অধ্যাপক মোঃ আবুল বাসার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার বদিয়ার রহমান, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, চৌধুরী মোঃ রায়হান ফরিদ, চৌধুরী মিনহাজ উজ-জামান সজল, আরজু ইসলাম আরজু, মামনুরা জাকির খুকুমনি, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব এড. শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মীর বরকত আলী, মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম, মিজানুর রহমান জিয়া, শেখ ইফতেখার চালু, কোষাধ্যক্ষ মিনা আজিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার মনিরুল ইসলাম, মহিলা সম্পাদক রসু আক্তার, দপ্তর সম্পাদক নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, প্রচার সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. লুৎফর রহমান, তথ্য গবেষণা সম্পাদক ইলিয়াস মোল্লা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সরদার রবিউল ইসলাম রবি, যুব বিষয়ক সম্পাদক মতলেবুর রহমান মিতুল, ক্রীড়া সম্পাদক শেখ আবিদ উল্লাহ, সমাজসেবা সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, শ্রম সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, শিক্ষা সম্পাদক অধ্যাপক আযম খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোল্লা মারুফ রশীদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান মুরাদ, পরিবেশ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, সাহিত্য প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়ম-, কৃষি সম্পাদক আহমেদ ফিরোজ ইব্রাহিম, বাণিজ্য সম্পাদক এস এম আখতার উদ্দিন পান্নু, লাইব্রেরী সম্পাদক মল্লিক মাসুদ করিম, নির্বাহী সদস্য রকিব উদ্দিন ফারাজী, এড. আব্দুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, শেখ মুর্শরফ হোসেন, এড. কুদরত-ই-খুদা, আলী আকবর টিপু, আনিসুর রহমান বিশ্বাস, অধ্যক্ষ রেহেনা আক্তার, মোঃ মামুন রেজা, মোঃ তরিকুল ইসলাম, মোঃ শফিকুর রহমান, এস এম জাহিদুর রহমান, জুবায়ের আহমদ খান জবা, শেখ আব্দুস সালাম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, মোঃ হায়দার আলী, কামরুল করিম বাবু, রফিকুল ইসলাম বাবু, প্রমিতি দফাদার প্রমুখ।

ডুমুরিয়ায় প্রতিপক্ষের দা’কোপে পিতা-পুত্র জখম

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় প্রতিপক্ষের ধারালো দা’কোপে রাকিবুল ইসলাম বাবু নামের এক যুবক গুরুতর জখম হয়েছে। আহত ওই যুবক খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।গত রবিবার সকালে উপজেলার মাধবকাটি এলাকায় ঘটনা ঘটে। ঘটনায় আহত’ভাই ওবায়দুল ইসলাম বাদি হয়ে থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছে।এজাহার সূত্রে জান যায়,উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের মাধবকাটি এলাকার মোসলেম হাওলাদারের দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় জমি একই এলাকার সুনিল কুমার মন্ডল জোর পূর্বক দখলের পায়তারা চালিয়ে আসছিল। তারই জের ধরে ঘটনার দিন সকালে সুনিল মন্ডলের নেতুত্বে ভাড়াটিয়া গুন্ডা জাহাঙ্গীর হাওলাদার, খোকা,খোকন সহ ৮/১০ জন দা,লাঠিসোটা নিয়ে পরিকল্পিতভাবে ওই জমি জবর দখল করতে যায়। এসময় বাঁধা দিতে গেলে প্রতিপক্ষ তাদের উপর হামলা চালায়।এতে দা’কোপে রাকিবুল ইসলাম হাত কেটে রক্তাক্ত জখম এবং তার পিতা মোসলেম হাওলাদার লোহার রড হাতুড়ি পেটায় আহত হয়।পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।এ প্রসঙ্গে ওসি মোঃ ওবাইদুর রহমান বলেন,ঘটনায় থানায় একটি এজাহার দাখিল হয়েছে ,তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ডুমুরিয়ায় মৎস্য ঘেরে ঢুকে মাছ লুটের অভিযোগ

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

ডুমুরিয়ায় মাগুরখালী ইউনিয়নে মৎস্য ঘেরে জোর পূর্বক প্রবেশ করে মাছ ক্যাশবাক্স ভেঙ্গে প্রায় লক্ষাধিক টাকা

লুট করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।গতকাল সোমবার সকালে উপজেলার হেতালবুনিয়া এক মৎস্য ঘেরে ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় ঘের মালিক এম আজাদ হোসেন বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,পাইকগাছা থানার কাশিমপুর এলাকার মৃত তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে এম আজাদ হোসেন মাগুরখালীর হেতালবুনিয়া বিলে ৫০ বিঘা জমি হারিতে নিয়ে মাছ চাষ করে আসছে।এমতবস্থায় স্থানীয় দীপক বিশ্বাস,মনি শংকর আব্দুল হাই’সাথে ওই মৎস্য ঘের নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়।তারই জের ধরে ঘটনার দিন সকালে প্রতিপক্ষ ২০/২৫ বহিরাগত লোকজন নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে দা,লাঠিসোটা নিয়ে ওই মৎস্য ঘের জবর দখলের চেষ্টা চালায়।এবং ঘেরে থাকা বিভিন্ন প্রজাতির মাছ আহরন ঘেরের বাসার ক্যাশ বাক্স ভেঙ্গে লক্ষাধিক টাকা নিয়ে যায়।এ সময় বাঁধা দিতে গেলে মালিকের ভাগ্নে দিপু শ্যালক শরিফুল ইসলাম কে মারপিট করা হয়।ঘটনা প্রসঙ্গে ওসি মোঃ ওবাইদুর রহমান বলেন,অভিযোাগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মহানগর পূজা পরিষদের সম্পাদকম-লী, কার্যনির্বাহী উপদেষ্টাম-লী সদস্যসহ আত্মীয়-স্বজনদের রোগমুক্তি কামনা

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার সম্পাদকম-লীর সদস্য অভিজিৎ চক্রবর্ত্তী দেবুর সহধর্মিনী মণীষা চক্রবর্ত্তী দিপা, কন্যা আয়শী চক্রবর্ত্তী অর্থি, কার্যনির্বাহী পরিষদের সম্মানিত সদস্য গৌতম কু-ুর মাতা বীণা রানী কু-ু, দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার বার্তা সম্পাদক মহানগর পূজা পরিষদের সম্মানিত উপদেষ্টা অরুণ কুমার সাহার সহধর্মিনী অর্চনা সাহা, দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার চীফ রিপোর্টার মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য অমিয় কান্তি পালের সহধর্মিনী রেখা রানী পাল, মহানগর পূজা পরিষদের সম্মানিত উপদেষ্টা ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ), খুলনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তপন কুমার রায়, বিশিষ্ট সমাজসেবক, ধর্মানুরাগী মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনিবাহী সদস্য বাবলু বিশ্বাসের ভ্রাতৃবধূ মুক্তা বিশ্বাস, মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য বাসুদেব কর্মকারের পুত্র পিয়াল কর্মকার, খুলনা সদর থানা পূজা পরিষদের অন্যতম নেতা বিধান চন্দ্র রায়ের পিতা প্রভাত চন্দ্র রায় জ্যৈষ্ঠ ভ্রাতা রাজীব রায়সহ খুলনা মহানগর মহানগর আওতাধীন ৮টি থানা পূজা উদযাপন পরিষদের যে সকল নেতাকর্মী তাঁদের আত্মীয়-স্বজন করোনা আক্রান্তসহ বিভিন্ন রোগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতাল বা বাড়িতে চিকিৎসারত আছেন তাঁদের সুস্থতা, আশু রোগমুক্তি দীর্ঘায়ু কামনা করে সোমবার বিকেল ৫টায় খুলনা আর্য্য ধর্মসভা মন্দির প্রাঙ্গণে এক প্রার্থনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত প্রার্থনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শ্যামল হালদার। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার কু-ুর সঞ্চালনায় প্রার্থনা সভায় মাঙ্গলিক মন্ত্র পাঠ করেন সংগঠনের কার্যনির্বাহী সদস্য বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ চক্রবর্ত্তী। উক্ত প্রার্থনা সভায় অংশগ্রহণ করেনÑবাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, মহানগর শাখার সহ-সভাপতি এ্যাড. অলোকানন্দা দাস, অধ্যাপক তারক চাঁদ ঢালী, কোষাধ্যক্ষ রতন কুমার নাথ, বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদ, খুলনা মহানগর সভাপতি বিশ্বজিৎ দে মিঠু, সদর থানা পূজা পরিষদের সভাপতি বিকাশ কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব সাহা লব, সোনাডাঙ্গা থানা সাধারণ সম্পাদক রামচন্দ্র পোদ্দার, বিশিষ্ট সাংবাদিক মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য বিমল সাহা, অভিজিৎ পাল প্রবীর বিশ্বাস, বিশিষ্ট ধর্মানুরাগী, সমাজসেবক পূজা পরিষদ সম্পাদকম-লীর সদস্য বাবলু বিশ্বাস, গৌরাঙ্গ সাহা, সুশান্ত ব্যানার্জী, স্বপন কুমার ম-ল, বিবেকানন্দ শিক্ষা সংস্কৃতি পরিষদ, খুলনা শাখার সভাপতি সুজিত কুমার মজুমদার, শ্রীগুরু সংঘ খুলনা শাখার সভাপতি সত্যপ্রিয় সোম বলাই, তীর্থালোক সংঘ খুলনার সাধারণ সম্পাদক স্বপন চক্রবর্ত্তী, মহানগর পূজা পরিষদের সম্পাদকম-লীর সদস্য সুব্রত হালদার তপা, উজ্জ্বল ব্যানার্জী, ভোলানাথ দত্ত, ভবেশ সাহা, পলাশ রায়, অশোক ঘোষ, রূপন দে, উজ্জ্বল রায়, সনৎ বকসি, গৌতম মজুমদার, দুলাল সরকার, ছাত্র ঐক্য পরিষদ, খুলনা মহানগর সদস্য সচিব প্রণব চক্রবর্ত্তী, সুশীল দাস, অলোক দে, বাবু শীল, মাণিক শীল, অলোক সাহা, রবিন দাস, নিলয় সাহা, রাজকুমার শীল, সজল দাস, দ্বিপ্র দাস, দিপ্ত বিশ্বাস, অন্তু দে প্রমুখ।

শামীম স্কয়ার মার্কেট দোকান মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি শহীদ ইকবাল বিথারের ১২তম শাহাৎত বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া

খবর বিজ্ঞপ্তি

গতকাল বাদ আছর শামীম স্কয়ার মাকের্ট দোকান মালিক সমিতির পক্ষ থেকে আজমেরী জামে মসজিদে শামীম স্কয়ার মার্কেট দোকান মালিক সমিতির সাবেক সফল সভাপতি সাবেক ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শহীদ ইকবাল বিথারের ১২তম শাহাৎত বার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল তার সহধর্মিনীর জন্য বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া মার্কেটের অসুস্থ সকলের জন্য দোয়া চেয়ে মোনাজাত করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান। সাবেক সফল সভাপতি শহীদ ইকবাল বিথারের রুহের মাগফেরাত শেখ সোহেল এবং তাঁর সহধর্মিনীর সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন মার্কেট কমিটির সভাপতি জেড মাহমুদ ডন, সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান খা,রনজিৎ কুমার ঘোষ,হাফেজ মোঃ শামীম,সাধারণ সম্পাদক মোঃ নেয়ামুল হোসেন কচি, সাহাবুদ্দিন সাবু,অরুন কুমার সাহা,শ্রমিক নেতা হাবিবুর রহমান দুলাল,আব্দুল গফফার মোড়ল,গোপাল দাস রাজু, ফারুক হোসেন, সংগ্রাম খান, কামাল হোসেন, মাহবুব হোসেন, ফায়েকুজ্জামান, হুমায়ুন কবিরসহ আরও অনেকে।

বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ ১৯৬জন আক্রান্ত, মৃত্যু

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটে গেল ২৪ ঘন্টায় ৭৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৯৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।এটাই একদিনে বাগেরহাটে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এই সময়ে বাগেরহাট জেলায় করোনা আক্রান্ত দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে একদিনে ১৭৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।সব মিলিয়ে বাগেরহাটে  করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়াল হাজার ৭৬১ জনে। এর মধ্যে সুস্থ্য হয়েছেন হাজার ২৫১ জন।মোট মারা গেছেন ১০২ জন। সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতাল বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন হাজার ৫১০ জন। সোমবার(১২ জুলাই)দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এসব তথ্য জানিয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে বাগেরহাট সদর উপজেলায় ১৩৩ জন, ফকিরহাটে ২১, মোড়েলগঞ্জে ৩, মোংলায় ১৪, কচুয়ায় ১৫, রামপালে ৪, চিতলমারী এবং শরণখোলায় জন রয়েছে।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, গেল ২৪ ঘন্টায় ৭৩৫ জনের পরীক্ষায় ১৯৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটাই বাগেরহাটে একদিনে সর্বোচ্চ পরীক্ষা সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। তবে আমরা আশা করছি সংক্রমনের এই পরিমান খুব দ্রুত কমে আসবে। এজন্য সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরিধান স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার অনুরোধ করেন তিনি।

বাগেরহাটে করোনা ভ্যাকসিন প্রদান বুথে নেই স্বাস্থ্যবিধি, বাইরে গ্রহিতাদের ভীড়

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন ৫০ শয্যা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ভ্যাকসিন প্রদান বুথে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্য বিধি। রেডক্রিসেন্টের নিবন্ধন টেবিলের সামনে গাদাগাদি করা লোক।একজনের শরীরের সাথে অন্যজনের শরীরে মেশানো। বুথের বাইরে টিকা গ্রহিতাদের উপচে পড়া ভীড়। দীর্ঘ লাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা দাড়িয়ে আছেন নানা বয়সী মানুষ। কেউ কেউ ছাতা নিয়ে, আবার কেউ হাতের ব্যাগ মাথায় দিয়ে দাড়িয়ে আছেন রোদের মধ্যে।নারী বৃদ্ধরা পড়েছে বিড়ম্বনায়।লাইনে দাড়ানো লোকদের গা ঘেসে হেটে যাচ্ছেন, কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীনর রোগীর স্বজনরা।ভ্যাকসিন গ্রহিতার ভীড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন রেড ক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবকরা।সোমবার (১২ জুলাই) বেলা ১১ টায় বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালের সামনে টিকা গ্রহিতাতের এই চিত্র দেখা যায়।তবে স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, যারা আজকের জন্য ম্যাসেজ পেয়েছেন শুধুমাত্র তারা আসলে এই ভীড় হত না।যাদেরকে টিকার ম্যাসেজ দেওয়া হয়নি, তারা আসায় অতিরিক্ত ভীড় হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাযায়, দুই দফায় সিনোফার্মের পাওয়া ২৮ হাজার ৪০০ টিকা রয়েছে বাগেরহাটে। সরকারি নির্দেষনা অনুযায়ী তারিখ থেকে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল সংলগ্ন ৫০ শয্যা  করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে পাঁচটি বুথে এই টিকা দেওয়া হচ্ছে। ৮, ১০ এবং ১১ জুলাই এই তিন দিনে নিবন্ধিত হাজার ৬৩০ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে।

ষাটগম্বুজ থেকে টিকা নিতে আসা সুজয় দে বলেন, সকাল ৮টা থেকে এসে লাইনে দাড়িয়েছি।রোদের মধ্যে দাড়িয়ে খুব খারাপ অবস্থা আমাদের। এভাবে দাড়িয়ে থেকে অনেকেই অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে।

টিকা নিয়ে বের হওয়া হাজেরা বেগম বলেন, সকাল ৮টায় আসতে বললেও এসেছিলাম সাতটায়। তারপরও প্রায় তিন ঘন্টা দাড়িয়ে থেকে টিকা দিতে পেরেছি। এজন্য সকলকে ধন্যবাদ।

লাইনে দাড়ানো আব্দুল গফফার সুব্রত পাল বলেন, এত অব্যবস্থাপনা চিন্তা করা যায় না। সবাইকে একজায়গায় এনে স্বাস্থ্য বিধি লঙ্গন না করে, এলাকায় এলাকায় টিকা দেওয়ার দাবি জানান তারা।

বাগেরহাট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির যুব প্রধান শরিফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, জুলাই থেকেই আমাদের ৫০ জন স্বেচ্ছাসেসবক এখানে কাজ করছে। কিন্তু টিকা নিতে আসা লোকের চাপ এত বেশি যে আমরা তাদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছি। টিকা গ্রহিতারা বসে অপেক্ষা করবে এমন কোন জায়গা ছিল না। আমরা বসার জন্য একটি প্যান্ডেলও করেছি। লোক এত বেশি যে সবাইকে বসতেও দেওয়া যাচ্ছে না। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি সকলকে স্বাভাবিকভাবে টিকা দিয়ে বাড়ি ফেরাতে।

বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, প্রতিদিন ৪০০ মানুষকে টিকা দেওয়ার সক্ষমতা আছে। আমরা চারশ মানুষকেই ম্যাসেজ দিয়েছি। কিন্তু ম্যাসেজ না পেয়েও কিছু মানুষ টিকা কার্ড নিয়ে হাসপাতালে এসেছে। যার ফলে এই ভীড়ের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা তাদের না আসতে অনুৎসাহিত করছি।মাইকিং করে তাদেরকে না আসার জন্য বলে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যারা রেজিষ্ট্রেশন করেছেন তারা সবাই টিকা পাবেন।তারা হুরো করার কিছু নেই। আমাদের পর্যাপ্ত টিকার মজুত রয়েছে। এই টিকা দেওয়া শেষ হলে আমাদেরকে আরও টিকা বরাদ্দ দেওয়া হবে।

বাগেরহাটে ক্রীড়াবিদদের মাঝে খাদ্য সামগ্রি বিতরণ

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটে অস¦চ্ছল ক্রীড়াবিদ ক্রীড়া সংগঠকদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে।  সোমবার (১২ জুলাই) দুপুরে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাগেরহাট শেখ হেলাল উদ্দিন কাবাডি স্টেডিয়ামে এই খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করা হয়। এসময়, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক পৌর মেয়র খান হাবিবুর রহমান, বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরদার নাসির উদ্দিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ মোছাব্বেরুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি হায়দার আলী বাবু, কোষাধ্যক্ষ সরদার ওমর ফারুক, পৌর কাউন্সিলর রেজাউর রহমান মন্টু, তৌহিদুর রহমান জনি,এ্যাড. স্বপন কুমার দাসসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান বলেন, লকডাউনে কর্মহীন মানুষ যাতে খাবারের কষ্টে না ভোগে জন্য আমরা খাদ্য সামগ্রি বিতরণ শুরু করেছি। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

বাগেরহাটে বাস-মালিক সমিতির পক্ষ থেকে পরিবহন শ্রমিকদের টিকার নিবন্ধন

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

করোনা থেকে সুরক্ষা পেতে টিকা নিতে হবে। আর টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করতে হবে অনলাইনে। কিন্তু স্বল্প শিক্ষিত, কোন কোন ক্ষেত্রে অশিক্ষিত বা অক্ষরজ্ঞানহীন পরিবহন শ্রমিকরা অনলাইনে কিভাবে নিবন্ধন করবেন। পরিবহন শ্রমিকদের অনলাইনে নিবন্ধন এবং টিকা প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে বাগেরহাট বাস মালিক সমিতি। বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে বাগেরহাটে পরিবহন শ্রমিকদের অনলাইনে করোনা ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধন করে দেওয়া শুরু হয়েছে।সোমবার (১২ জুলাই) বিকেলে বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি।

বিনামূল্যে কোন ঝামেলা ছাড়া অনলাইনে টিকার নিবন্ধন সম্পূর্ণ করতে পারায় খুশি শ্রমিকরা।পরিবহন শ্রমিক আতিয়ার রহমান, এশারাত হোসেন, রাজিব হোসেন, আব্দুস ছত্তার, মোঃ এখলাস শেখসহ কয়েকজন বলেন, আমাদের টিকা দেওয়ার খুব ইচ্ছে। কিন্তু চিন্তায় ছিলাম, কিভাবে অনলাইনে নিবন্ধন করব ভেবে পাচ্ছিলাম না। হঠাৎ করে সমিতি থেকে ফোন দিয়ে বলেছে যারা টিকা নিবেন, তারা অফিসে এসে নিবন্ধন করে যাবেন। অফিসে আসলাম জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে, কোন ঝামেলা ছাড়াই নিবন্ধন করে টিকা কার্ড নিয়ে বাড়ি চলে যাচ্ছি।সমিতির পক্ষ থেকে এই উদ্যোগ নেওয়ায়, আমাদের খুব উপকৃত হয়েছে।

বাগেরহাট বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি বলেন, বেশিরভাগ পরিবহন শ্রমিকরা অনলাইন সম্পর্কে অজ্ঞ। তাই তাদের কথা চিন্তা করে আমরা টিকার জন্য নিবন্ধন করে দিচ্ছি। আমাদের হাজার ২০০ শ্রমিক রয়েছে। এদের মধ্যে যাদের বয়স ৩৫ হয়েছে, তাদের সকলকে আমরা নিবন্ধন করে দিব।

কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষথেকে এতিমদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটের কচুয়া প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এতিমখানায় বসবাস করা এতিম নিবাসীদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে উপজেলার মঘিয়া এতিমখানা লিল¬াহ বোডিংয়ের  নিবাসীসের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডেটল সাবান বিতরণ করা হয়। এসময়, কচুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি খোন্দকার নিয়াজ ইকবাল, উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবিলীগের সভাপতি শিকদার রিপন,  কচুয়া প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক রথীন্দ্র নাথ সাহা, নির্বাহী সদস্য খান সুমন, সাংবাদিক মোঃ রুম্মান, টাইম টেলিভিশনের বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি রাজীব শেখ রাজু, প্রনব করাতী উপস্থিত ছিলেন। পরে উপজেলার বিভিন্ন এতিমখানার নিবাসীদের মাঝে এই সুরক্ষা সামগ্রী পৌছে দেওয়া হয়।

অভয়নগর উপজেলায় অক্সিজেন কনসেনটেটর মেশিন মেডিকেল সরঞ্জাম প্রদান

অভয়নগর ( যশোর ) প্রতিনিধি:

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের সুচিকিৎসার জন্য জাতীয় সংসদের মাননীয় সংসদ সদস্য (যশোরÑ১) আসনের এমপি শেখ আফিল উদ্দিন এর নিজস্ব অর্থায়নে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  অক্সিজেন কনসেনটেটর মেশিন মেডিকেল সরঞ্জাম  প্রদান করা হয়েছে। সোমবার (১২ জুলাই) সকাল ১১:৩০ মিনিটে উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে অভয়নগর উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো.আমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে অক্সিজেন কনসেনটেটর মেশিন মেডিকেল সরঞ্জাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডাক্তার আলিমুর রাজির’র  হাতে হস্তান্তর প্রধান অতিথীর বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অভয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর। এসময় বিশেষ অতিথী হিসাবে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক স্পন্দন এর নিবার্হী সম্পাদক মো. মাহাবুব আলম (লাবলু), রোটারি ক্লাব অব নওয়াপাড়া এর প্রেসিডেন্ট শাহ্ মুকিত জিলানী, অভয়নগর  থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম শামীম হাসান, নওয়াপাড়া প্রেস ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজরুল ইসলাম মল্লিক, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা.আলিমুর রাজিব, রোমান জুট মিলস লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব আলহাজ্ব মোহাম্মাদ আলি। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন, নওয়াপাড়া পৌর সভার প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব মিজানুর রহমান, নওয়াপাড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোজাফ্ফার আহমেদ, রোমান জুট মিলস লিঃ এর পরিচালক মো. রাকিব সহ স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ। মেসার্স আফিল ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল এর আয়োজনে ১০টি অক্সিজেন কনসেনটেটর মেশিন, ১৫টি অক্সিমিটার, বক্স হেক্সিসল ২হাজার৫০০টি মাস্ক প্রদান করা হয়। শেখ আফিল উদ্দিন এর পক্ষে দৈনিক স্পন্দন এর নির্বাহী সম্পাদক মো.মাহবুব আলম (লাবলু) এসকল সরঞ্জাম উপজেলা পরিষদে হস্তান্তর করেন। এবং তিনি শেখ আফিল উদ্দিন’বক্তব্য সকলের সামনে তুলে ধরে বলেন, উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যদি হাই ফ্লো ন্যাজেল ক্যানোলা অক্সিজেন প্রয়োজন হলে সেটি স্থাপনে সকল ব্যবস্থা শেখ আফিল উদ্দিন করবেন বলে জানান। সরঞ্জাম হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন, নওয়াপাড়া মডেল কলেজের প্রভাষক দেবাশীষ রাহা।

কাটাখালী হাইওয়ে পুলিশের দরিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ

ফকিরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের ফকিরহাট কাটাখালী হাইওয়ে থানা পুলিশের উদ্যোগে লকডাউনে কর্মহীন ভ্যান শ্রমিকদের মাঝে রান্না করা খাবার মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার দুপুর ১২টায় কাটাখালী পুলিশ বক্স চত্ত্বরে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মেনে খাদ্য বিতরণ করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, যশোর সার্কেল এর সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার আলী আহম্মেদ হাশমী। এসময় উপস্থিত ছিলেন,কাটাখালী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) মো. আলী হোসেন (পিপিএম সেবা), এসআই মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ হাসান, জয়ন্ত দাশ প্রমূখ। এদিন ১৫০ জন ভ্যান শ্রমিককে একবেলা রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়েছে। খাবার মাস্ক পেয়ে সকলেই খুশি হয়ে হাইওয়ে পুলিশ প্রশাসনকে সাধুবাদ জানান।

খুলনা বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ

তথ্য বিবরণী

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনে খুলনা বিভাগের ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া জেলাসহ বিভিন্ন জেলায় করোনায় কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সোমবার বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে পৌরসভার এক হাজার বিভিন্ন দোকান কর্মচারী, চা-বিক্রেতাসহ অন্যান্য পেশাজীবীদের মাঝে জনপ্রতি ১০ কেজি চাল তিনশত টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান এসব খাদ্যসামগ্রী নগদ অর্থ বিতরণ করেন। কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসন আজ (সোমবার) একশত উপকারভোগী পরিবারের মাঝে নগদ ৮৩ হাজার টাকা, দুইশত উপকারভোগী পরিবারের মাঝে ত্রাণ হিসেবে দুই মেট্রিক টন চাল এবং ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় তিন হাজার উপকারভোগীদের মাঝে ৩০ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য বিতরণ করা হয়।

খুলনায় আরও করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন ছয়শত ৬৯ জন

তথ্য বিবরণী

সোমবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনশত এক জন এবং জেনারেল হাসপাতালে তিনশত ৬৮ জন করোনা ভ্যাকসিন প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে পুরুষ তিনশত ৩৯ জন এবং তিনশত ৩০ জন মহিলা। পর্যন্ত এক লাখ ৮২ হাজার সাতশত ৪৩ জন করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। যার মধ্যে সাইনোফার্মার টিকা নিয়েছেন ছয় হাজার সাতশত ৮৬ জন। খুলনা সিভিল সার্জন দপ্তর থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসকল তথ্য জানানো হয়েছে।

করোনা মহামারী থেকে রক্ষা পেতে রূপসায় এলাকাবাসীর দোয়া মাহফিল

রূপসা প্রতিনিধি :

মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতবরণকারীদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠান রূপসা উপজেলার বাগমারা মধ্যপাড়া জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। মসজিদ পরিচালনা কমিটি সোমবার জোহরবাদ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে দোয়া পরিচালনা করেন খুলনার আল হেরা জামে মসজিদের পেশ ইমাম রিয়াজুল ইসলাম শফিক। দোয়া মাহফিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনা-আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মুর্শেদীর সুস্বাস্থ্য দীর্ঘায়ু এবং বাংলাদেশের সূখ-শান্তি সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। 

মসজিদ পরিচালনা কমিটির সহ সভাপতি এস এম মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মো. ফরিদ উদ্দীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠান পূর্ব আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন সিএন্ডবি জামে মসজিদের পেশ ইমাম আলহাজ¦ মাওলানা ফজলুল করীম, মডার্ণ সী ফুডস মসজিদের ইমাম মাওলানা রেজাউল করীম, বাগমারা দারুস সালাম জামে মসজিদে ইমাম মাওলানা মিজানুর রহমান, বাগমারা মধ্যপাড়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা ইমরান হোসেন, নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, মসজিদ কমিটির উপদেষ্টা সদস্য আলহাজ¦ আমজাদ হোসেন, আলহাজ¦ মো. সাখাওয়াত হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুজ সরদার, রাজিব হাসান মুন্না, লাভলু শেখ, মো. জাকির হোসেন, মো. আবুল হোসেন, শহীদ শেখ, বদর উদ্দীন, আবু বক্কার শেখ, মো. রফিকুল ইসলাম, তহমান গাজী, মুজিবর রহমান, আজিজুল ইসলাম, সজিব প্রমূখ।

রামপালে শেখ তন্ময়ের পক্ষ থেকে দুইশতাধিক হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার

রাজনীতি করতে হলে সততা আর জনপ্রিয়তা লাগে, লাগে যোগ্যতাও। একজন দক্ষ পরিশ্রমী আদর্শবান রাজনৈতিক ব্যক্তির মূল বৈশিষ্ট্য হলো অবহেলিত জনগনের পাশে থাকা তাদের খোঁজখবর রাখা। নিজের আখেরি গোছানোর জন্য শুধু তৎপর থাকলেই চলেনা। বিপদে – আপদে বিশেষ করে করোনার এই মহামারীতে অসহায় দিন মজুরী খেটে খাওয়া মানুষের পাশে কারকি ভুমিকা? সরকারি অনুদান নয় বরং নিজস্ব তহবিল থেকে কতটা সহায়তা করেছেন আপনারা? কার খোঁজখবর নিয়েছেন আজকের হাইব্রিড নেতারা। আমাদের বাগেরহাট –আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের পক্ষ থেকে রামপালের প্রতিটি দুঃখী মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছন তিনি। খোঁজখবর নিচ্ছেন, ত্রাণ দিচ্ছেন। আপনারা চাইলে আগামীতে রামপাল – মোংলার অভিভাবক সিসাবে আমরা শেখ তন্ময়কে পাশে পেতে চাই। সে নিজের জন্য নয় বরং জনগনের কল্ল্যানে কাজ করেন এবং আজন্মকাল আপনাদেরই সেবা করে যেতে চান। সোমবার সকালে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাবেক রামপাল উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ মোঃ আবু সাঈদ এসব কথা বলেন।

বাগেরহাট –আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের নিজস্ব তহবিল থেকে করোনা মহামারীর প্রাদুর্ভাবের কারণে রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নে একশত পরিবার রাজনগর ইউনিয়নে একশত প্রকৃত হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। পর্যায়ক্রমে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নেই  বাগেরহাট –আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের পক্ষ থেকে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত থাকবে। প্রতিটি প্যাকেটে রয়েছে, ১০ কেজি চাল, কেজি আলু, কেজি ডাল, কেজি পেঁয়াজ আধাকেজি লবন দেয়া হচ্ছে।

উপকারভোগী কয়েকজন জানান, করোনা কালিন সময় আমাদের এই দুঃখ দূর্দশায় যে আমাদের খোঁজখবর রাখেন তিনিই মহান, তিনিই আমাদের অভিভাবক। আজ আমাদের কাজ নেই তাই তিন বেলা ঠিক মতো পেটভোরে খেতেও পারিনা। আজ ব্যাগভর্তি বাগেরহাটের এমপি আমাদের জন্য খাবার পাঠিয়েছেন তার জন্য দু-হাত ভোরে দোয়া করি আগামীতে রামপাল – মোংলার এমন যোগ্য তৎপর দক্ষ ব্যক্তিকেই জনগনের সেবক হিসাবে পাশে পেতে চায় বলে আশা ব্যাক্ত করেন তারা।

নিজস্ব তহবিল হতে সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী  বিতরণকালে অন্যান্যর মধো আরো উপস্থিত ছিলেন, বাগেরহাট পিসি কলেজের সাবেক ভিপি রামপাল উপজেলার বাঁশতলী ইউনিয়নে বীনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, গৌরম্ভা ইউনিয়নে বীনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যান রাজিব সরদার রাজনগর ইউনিয়ন পরিষদের বারবার নির্বাচিতা চেয়ারম্যান সরদার আব্দুল হান্নান ডাবলুসহ স্থানীয় বিভিন্ন পর্যায়ের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা এসময়ে উপস্থিত ছিলেন।

বাগেরহাট জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান মোড়েলগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা আকরামুজ্জামান

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

বাগেরহাট জেলার শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন মোড়েলগঞ্জে হোগলাবুনিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আকরামুজ্জামান।

বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান কর্তৃক মনোনিত বাছাই বোর্ড জুলাই জেলার শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে আকরামুজ্জামানের নাম ঘোষনা করেন। সোমবার ১১টায় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে এক প্রতিক্রিয়ায় আকরামুজ্জামান বলেন, ১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে দেশ মাতৃকার টানে স্বাধীনতার যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছিলাম। আর জনগনের সেবায় নিজেকে নিবেদিত করতে ২০১৬ সালে ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করি। বিগত বছরে রাস্তাঘাট, ব্রীজ কালভার্ডসহ অবকাঠামো উন্নয়নে ইউনিয়নে প্রায় ২৫ কোটি টাকার কাজ হয়েছে। স্বাধীনতার পরবর্তীতে এতা উন্নয়ন হয়নি। নারীর ক্ষমতায়নে অগ্রাধিকার মূল্যায়ন, মাদক সন্ত্রাসমুক্ত এলাকা, সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে পরিবর্তন, শিক্ষার মান্নোয়নে পরিবেশ, কোভিট-১৯ সচেতনতায় কাজ করে যাচ্ছেন সার্বক্ষনিক ইতোপূর্বে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠছন থেকে সম্মাননা ক্রেষ্ট পেয়েছেন তিনি।

মোড়েলগঞ্জে শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে মৌসুমি ফল বিতরণ করেন চেয়ারম্যান সাইফুল

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

বাগেরহাট-আসনের সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময় এমপির পক্ষ থেকে মোড়েলগঞ্জের বিভিন্ন এতিম খানা হেফজখানার শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে মৌসুমি ফল বিতরণ করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কার্যনির্বাহী সংসদের কার্যকরি সদস্য, নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম। সোমবার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের পিসি বারইখালী গ্রামের হাজি আব্দুল আজিজ হাফিজিয়া মাদ্রাসা, খান আবুবক্কার হাফেজিয়া একাডেমি, হোগলপাতি-ভাষান্দল ফারুক-বিন আব্দুল করিম হাফেজিয়া মাদরাসা, চাপরাশিবাড়ী হেফজখানা, মালবাড়ী হেফজখানা, ওমর ফারুক হাফেজিয়া মাদ্রাসা, দীঘিরপাড়  হেফজখানা, মৃধাবাড়ী হাফেজিয়া মাদ্রাসা সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে মৌসুমি ফল বিতরণ করা হয়েছে। সময় তার সাথে ছিলেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো. জাকির হোসেন, ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম তালুকদার, প্রধান শিক্ষক হাফেজ মো. সরোয়ার হোসেন প্রমুখ।

সরকারের উদাসীনতা একগুঁয়েমির কারণে জনগণের রুটি-রুজি বন্ধের পথে: মঞ্জু

খবর বিজ্ঞপ্তি

কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক খুলনা মহানগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, সরকারের দূরদর্শিতা অভাবে এবং ব্যর্থতার কারনে আমরা কঠিন সময়ের মধ্যে দিনাতিপাত করছি। সাধারন মানুষের জীবন-জীবিকা আজ স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। নিম্ন আয় থেকে শুরু করে মধ্যম আয়ের মানুষের জীবিকা বন্ধ হয়ে গেছে। সরকারের অপরিকল্পিত নীতির কারণে পুরো জাতিকে আজ খেসারত দিতে হচ্ছে। করোনা প্রকোপের দেড় বছরেও হাসপাতালগুলোতে হাইফ্লো অক্সিজেন, আইসিইউ সঙ্কট রয়েছে। সরকারের উদাসীনতা একগুঁয়েমির কারণে জনগণের রুটি-রুজি বন্ধের পথে।

সাবেক সংসদ সদস্য মঞ্জু আরও বলেন, সরকার বলছিলো আমরা করোনার চেয়েও শক্তিশালী। পৃথিবীর অনেক দেশে এমনকি ভারতেও যেখানে লকডাউন প্রত্যাহার করে জনজীবন আজ প্রায় স্বাভাবিক, জীবিকা চলমান; অথচ সেখানে আমাদের জীবন আজ শঙ্কার মুখে। সোমবার (১২ জুলাই) খুলনা সদর থানার ২৮ নং ওয়ার্ডে দৌলতপুর থানার ৩নং ওয়ার্ডের  বিভিন্ন এলাকায় কর্মহীন ক্ষুধার্ত ৫শ’ মানুষের মাঝে রান্না খাবার বিতরণকালে মঞ্জু এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মানুষের পেটে ক্ষুধা রেখে বিধিনিষেধ, লকডাউন, কঠোর লকডাউন এমনকি কারফিউ কার্যকর করা সম্ভব হবে না। বেলা সাড়ে ১২টায় খুলনা সদর থানার ২৮ নং ওয়ার্ডে বিএনপির অঙ্গদলের উদ্যোগে টুটপাড়া সেন্ট্রাল রোড, পশ্চিম টুটপাড়া, দক্ষিন টুটপাড়া, মিয়াপাড়া এলাকায় রান্না খাবার বিতরনকালে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, জাফরুল্লাহ খান সাচ্চু, রেহানা ঈসা, আরিফুজ্জামান অপু, মেহেদী হাসান দিপু, ইউসুফ হারুন মজনু, হাসানুর রশিদ মিরাজ, ইসাহাক তালুকদার, জি এম রফিকুল হাসান, ডা. ফারুক হোসেন, হাবিবুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম লিটন, শামীম আশরাফ, সেলিম বড়মিয়া, রাশিদুল আলম বাপ্পি, সাজ্জাদ হোসেন জিতু, আবু তালেব, আল মামুন, আনিসুর রহমান সেলিম, মাসুদ রুমী, মো. এাসুদ, জাহাঙ্গীর হোসেন, আলম প্রমূখ। অপরদিকে দুপুর দেড়টায় দৌলতপুর থানার ১নং ওয়ার্ডের মানিকতলা ৩নং ওয়ার্ডের কার্তিককুল এলাকায় রান্না খাবার বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন শেখ মুশাররফ হোসেন, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, সিরাজুল হক নান্নু, মেহেদী হাসান দিপু, ইউসুফ হারুন মজনু, মিজানুর রহমান মিলটন, বেলায়েত হোসেন, আ.হালিম, শরিফুল আনাম, আবুল কালাম শিকদার,মাজেদুল ইসলাম, জলিল হাওলাদার, সাইদুল ইসলাম, হেমায়েত হোসেন, শওকত আলী, আইয়ুব আলী, আকরাম হোসেন, শওকত হায়াত, শামীম আশরাফ, মিঠু খান, এরশাদ হোসেন, রাজিবুল আলম বাপ্পি, তানিরুল হুদা লিটন, নাজমুল হোসেন, রাকিব হোসেন, জামিল হোসেন, মো.হুমায়ুন, ওলিয়ার রহমান, আসাদুর রহমান প্রমূখ।

পাইকগাছায় অক্সিজেন ব্যাংকের উদ্বোধন

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছায় করোনা সংক্রমনের হার প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। সেই সাথে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিলও। পাইকগাছা হাসপাতালে অক্সিজেন সংঙ্কটের কারণে রোগীদের পাঠানো হয় খুলনা করোনা হাসপাতালে। অনেকেই আবার অক্সিজেন সঙ্কটে মারাও যাচ্ছে। সে সব কথা চিন্তা করে পাইকগাছায় ব্যক্তি উদ্যোগে বিনা মূল্যে মানুষের পাশে অক্সিজেন সেবা দেয়ার জন্য কয়েকটি অক্সিজেন ব্যাংক গড়ে উঠেছে। সর্বশেষ সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান এসএম এনামুল হকের আর্থিক সহযোগিতায় সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে উদ্বোধন করেছেন “পাইকগাছা অক্সিজেন ব্যাংক”তারা বিনা খরচে বিনা পরিবহন মূল্যে সেবা দিয়ে যাবেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, আমার মনে হয়েছে একটি সিলিন্ডার মানে একটি জীবন। কোন মানুষ যেন অক্সিজেন অভাবে যেন মারা না যায় তার জন্য অক্সিজেন ব্যাংকের উদ্বোধন করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন অক্সিজেন ব্যংকে আরো ১০ টি সিলিন্ডার সংযোজন করা হবে বলে তারা আমাকে জানিয়েছেন। সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার হক, উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা নীতিষ চন্দ্র গোলদার, প্রেসক্লাব সভাপতি এ্যাড. এফএমএ রাজ্জাক, কাউন্সিলর এসএম এমদাদুল হক, এসএম তৈয়বুর রহমান, কামাল আহম্মদ সেলিম নেওয়াজ।

খবর প্রকাশের জের: আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর বরাদ্ধ দেয়ার আশ্বাসে হরিঢালীর গৃহহীন সঞ্জয় দাসের পরিবারে আনন্দের বন্যা

এইচ এম হাশেম, কপিলমুনি

কপিলমুনির পার্শ্ববর্তী হরিঢালী ইউনিয়নের দক্ষিন সলুয়া গ্রামের ভূমিহীন- গৃহহীন দলিত সঞ্জয় দাসের পরিবারে এখন বইছে আনন্দের বন্যা। কর্তৃপক্ষ আশ্রায়ন প্রকল্পের একটি ঘর তাকে বরাদ্ধ দেয়ার আশ্বাসে তাদের আনন্দ। দীর্ঘদিন গৃহহীন হয়ে অত্যন্ত মানবেতর জীবন যাপন করছিল সঞ্জয় দাসের পরিবার। পরিবারের বৃদ্ধা মা সহ পাঁচজন সদস্যের সিমাহীন কষ্টের কথা গত ২৭ জুন দৈনিক খুলনাঞ্চল অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হলে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। সেই সূত্র ধরে  পাইকগাছা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহারিয়ার হক গত জুন সঞ্জয় দাসের খোঁজখবর নেন। মুজিব বর্ষের  উপহার হিসাবে আশ্রায়ন প্রকল্পের একটি ঘর দেয়া হবে বলে তিনি সঞ্জয়কে আশ্বস্থ করেন। এসময় সঞ্জয়ের তথ্যবিবরনী তিনি তাঁর ব্যাক্তিগত ডাইরীতে লিপিবদ্ধ করেন। খবরে সঞ্জয় সহ তার পরিবার নতুন ঠিকানার আশায় বুক বেঁধেছে।

সঞ্জয়ের বৃদ্ধ মা চপলা রানী দাস বলেন, ‘পেটে খিদে থাকলেও রাতে মাথাটা গুঁজে ঘুম পড়তে পারবো।’ সঞ্জয়ের কিশোর পুত্র সুমন দাস আনন্দে কেঁদে বললো, ‘নিজেদের একটা আশ্রয় হচ্ছে এর থেকে আর কিছু চাওয়া পাওয়ার নেই।’ তবে দ্রুত ঘরটি পাওয়ার আশায় সঞ্জয়ের পরিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার হকের দিকে মুখিয়ে আছে।

খুলনায় করোনা চিকিৎসায় ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের দাবীতে নাগরিক সমাজের উদ্যোগে স্বাস্থ্য মন্ত্রী বরাবর ই-মেইল বার্তা প্রেরণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনায় করোনা চিকিৎসায় ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের দাবীতে স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর ইমেইলের মাধ্যমে খুলনা নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে সোমবার বেলা ১টায় স্মারকলিপি প্রেরণ করা হয়। সংগঠনের আহ্বায়ক খুলনা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব অ্যাড. মহসীন এবং সদস্য সচিব অ্যাড. মোঃ বাবুল হাওলাদার স্মারকলিপি প্রেরণ করেন। সময়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑগণসংহতি আন্দোলনের খুলনা জেলা সমন্বয়কারী মুনীর চৌধুরী সোহেল, বাসদ খুলনা জেলা সমন্বয়কারী জনার্দন দত্ত নাণ্টু, সাংবাদিক এইচ এম আলাউদ্দিন, আইন অধিকার বাস্তবায়ন ফোরামের খুলনা বিভাগীয় সভাপতি এস এম দেলোয়ার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা, সন্তান প্রজন্ম কল্যাণ সমবায় সমিতি লিঃ-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রোটাঃ আলহাজ্ব হোসাইন মোঃ ইউছা ওয়ায়েজ আর রাফী নাজু, সিপিবি নেতা এস এম চন্দন, যুব ইউনিয়ন নেতা আফজাল হোসেন রাজু, নতুনতাঁরা’প্রতিষ্ঠাতা মহাপরিচালক কবি সাইফুর মিনা, অ্যাড. মুক্তারুজ্জামান প্রমুখ। 

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, চলমান করোনা মহামারী খুলনা বিভাগে ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। প্রতিদিনই আক্রান্ত মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। খুলনায় করোনা চিকিৎসায় শয্যা, অক্সিজেন, জনবল ইত্যাদি প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। ইতোমধ্যে সরকারের পক্ষে আপনি ৫টি ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের ঘোষণা প্রদান করেছেন। ভৌত অবকাঠামোগত সংকট বিবেচনায় খুলনায় অতিদ্রুত প্রয়োজনীয় সংখ্যক শয্যাবিশিষ্ট ফিল্ড হাসাপাতাল স্থাপন অত্যন্ত জরুরী। অন্যথায় বিদ্যমান সংকট মোকাবেলা করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। ইতোপূর্বে করোনা পরিস্থিতিতে খুলনা অঞ্চলে মানবিক বিপর্যয়ের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও প্রথমে শুধুমাত্র ঢাকায় এবং পরবর্তীতে খুলনায়ও ফিল্ড হাসপাতাল স্থাপনের ঘোষণা প্রদান করেছেন, যা খুলনাবাসীর মনে প্রাণের সঞ্চার করেছে। সীমান্তবর্তী জেলা এবং ২টি স্থল বন্দর ১টি সমুদ্র বন্দর দ্বারা পরিবেষ্টিত খুলনায় পার্শ্ববর্তী পিরোজপুর, বাগেরহাট, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুর, নড়াইল, যশোর, সাতক্ষীরাসহ আশপাশের জেলার করোনা রোগীদের চিকিৎসা খুলনাতেই হয়। এমতাবস্থায় যাচাই-বাছাইপূর্বক খুলনায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক শয্যাবিশিষ্ট করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল অনতিবিলম্বে স্থাপনের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে আপনার সদয় সুদৃষ্টি কামনা করা হয়।

খুলনায় করোনায় কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ

তথ্য বিবরণী

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে চলমান কঠোর লকডাউনে খুলনায় কর্মহীন হয়ে পড়া দুইশত পরিবহন শ্রমিক, একশত ১৫ জন মাহেন্দ্র চালক একশত ১৫ জন হতদরিদ্র প্রতিবন্ধীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। খাদ্যসহায়তার মধ্যে ছিলো ১০ কেজি চাল, দুই কেজি আলু, ৫০০ গ্রাম ডাল, তৈল ৫০০ গ্রাম একটি সাবান। খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার সোমবার সকালে খুলনা রেলস্টেশন চত্ত্বরে এই খাদ্যসহায়তা বিতরণ করেন। প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক বলেন, এই দুর্যোগে সরকার আপনাদের পাশে আছেন। কোভিডে যারা ঘর থেকে বের হতে পারছেন না তাদের ঘরে ঘরে খাদ্যসহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। ৩৩৩ কল এর মাধ্যমে পরিবারকে খাদ্যসহায়তা দেওয়া হচ্ছে। খাদ্যসামগ্রী স্বচ্ছতার সাথে মেয়র অন্যান্য জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনের সমন্বয়ের মাধ্যমে বিতরণ করা হচ্ছে। এই দুর্যোগে কোন অসহায়, দুস্থ দরিদ্র পরিবার যেন বাদ না যায় সেদিকে আমাদের  নজর রয়েছে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ মাস্ক পরিধানে তিনি সকলকে অনুরোধ করেন। এছাড়া জেলা প্রশাসক অপ্রয়োজনে বাইরে বের না হওয়ার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহবান জানান।

খুলনা জেলা প্রশাসন আয়োজিত খাদ্যসহায়তা বিতরণে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইউসুপ আলী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা আইসিটি) মোঃ সাদিকুর রহমান খান, খুলনা শ্রম দপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন, সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাঈয়েদুজ্জামান স¤্রাট, মহানগর শ্রমিক লীগের (ভারপ্রাপ্ত) সভাপতি মোঃ মোতালেব মিয়া, সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ কুমার ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলনায় কোরবানির পশুর হাটের উদ্বোধন ১৫ জুলাই

তথ্য বিবরণী

প্রতি বছরের মতো এবছরও পবিত্র ঈদ-উল-আয্হা উপলক্ষে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে খুলনার জোড়াগেট বাজার চত্ত্বরে আগামী ১৫ জুলাই থেকে ঈদের দিন সকাল পর্যন্ত কোরবানির পশুর হাট বসবে। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে পশুর হাট পরিচালনা করা হবে। হাটে প্রবেশের ক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে প্রবেশ পথে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা থাকবে। বয়স্ক শিশুরা পশুর হাটে প্রবেশ করতে পারবেন না। অনলাইনের মাধ্যমেও পশু ক্রয় এবং বিক্রয় করা যাবে। পশুর হাটে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা, বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনায় জাল নোট শনাক্তকরণ, কম্পিউটারাইজড পদ্ধতিতে হাসিল আদায়সহ সকল আধুনিক ব্যবস্থাপনা থাকবে। এছাড়া সার্বক্ষণিক পশু চিকিৎসা হাটে আগতদের চিকিৎসার সুব্যবস্থা, পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার হোটেলের সু-ব্যবস্থা, আধুনিক পাবলিক টয়লেট, ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ র‌্যাবের সমন্বয়ে ২৪ ঘন্টা নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। আগামী ১৫ জুলাই এই কোরবানির পশুর হাটের উদ্বোধন করা হবে।

আল-কারীম অক্সিজেন সেবার অক্সিজেন সেবা কার্যক্রম অব্যাহত

খবর বিজ্ঞপ্তি

১২ জুলাই সোমবার ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর শাখার ব্যবস্থাপনায় আল-কারীম অক্সিজেন সেবার ৩০ ত্রিশ জন সেচ্ছাসেবক ২৪ ঘন্টা লাগাতার অক্সিজেন নিয়ে ছুটে চলেছেন অসুস্থ আক্রান্ত রোগীদের বাসায় বাসায়। আল-কারীম অক্সিজেন সেবার কাজে সন্তোষ প্রকাশ করে বিভিন্ন ব্যাক্তি সংগঠন তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছেন। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর অধক্ষ্য মাওলানা আব্দুল আউয়াল সেচ্ছাসেবীদের সুরক্ষা সামগ্রী, ইসলামী আন্দোলন সোনাডাঙ্গা থানা ইসলামী যুব আন্দোলন খুলনা মহানগর নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন।

উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব মুফতী আমানুল্লাহ, মুফতী মাহবুবুর রহমান, শেখ মোঃ নাসির উদ্দীন, শেখ হাসান ওবায়দুল করীম, আবু বেলাল, মুফতী ইমরান হুসাইন, মাওলানা দ্বীন ইসলাম, মাওলানা আব্বাস আমীন, মুফতী শেখ আমীরুল ইসলাম, মোল্লা রবিউল ইসলাম তুষার, আলহাজ্ব মোঃ আবুল কাশেম, মোঃ ইমরান হুসাইন, ফেরদাউস গাজী সুমন, আব্দুর রশিদ, মোঃ ইব্রাহিম ইসলাম আবীর, মোমিন ইসলাম নাসিব, মুফতী আমানুল্লাহ আমান, হাফেজ মোঃ হাসান, মোঃ আরিফুল ইসলাম, নাজমুল ইসলাম, মিরাজ আল সাদী, মোঃ সাব্বির হোসেন, হাবিবুল্লাহ মেসবাহ, উসামা আবরার, আব্দুল্লাহ সজীব সহ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ।

সরকারী নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে দিঘলিয়ায় জুট টেক্সটাইল মিলস লিঃ এর শ্রমিক পরিবহন উৎপাদন অব্যাহত

আসাদ, দিঘলিয়া

কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের মহামারি ঠেকাতে সরকার যখন দেশকে কঠোর লক ডাউনের আওতায় এনেছে, গন পরিবহনও যখন বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে তখন দিঘলিয়া উপজেলার দেয়াড়া গ্রামস্থ জুট টেক্সটাইল মিলস লিঃ সরকারী নিয়ম নীতি না মেনে শ্রমিকদের জন্য গন পরিবহন উৎপাদন অব্যাহত রেখেছে।

গতকাল দুপুর টায় সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় মিল গেট দিয়ে শিফট এর শ্রমিকরা বের হচ্ছে বি শিফট এর শ্রমিকরা গেট দিয়ে ভেতরে ঢুকছে, তাদের বেশির ভাগ লোকের মুখে মাক্স নাই, ঠেলা ঠেলি করে বের হচ্ছে ভিতরে ঢুকছে। আবার দুরের শ্রমিক পরিবহনের জন্য যে গাড়ী ব্যাবহার করা হচ্ছে তাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বসলে সর্বোচ্চ ১৫-২০ জন লোক বহন করতে পারে, সেখানে ৪০-৫০ জন লোক গাদা গাদী করে বহন করছে, কেও বসে, কেও দাড়িয়ে, কেওবা বাদুর ঝোলা হয়ে বাম্পারে ঝুলে গন্তব্যে রওনা হয়েছে। এতে করে শ্রমিকদের কেও একজন করোনা পজেটিভ থাকলে একজনের শরির থেকে আর একজনের শরিরে ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পরার সমুহ সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও এই মিলের অনেক শ্রমিক সাতক্ষীরা জেলা খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা থেকে কাজের উদ্যেশ্যে দিঘলিয়ায় প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছে, এর ফলে এই এলাকার শ্রমিকদের মাধ্যমে দিঘলিয়া উপজেলা ব্যাপি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে এলাকার সচেতন মহলের মতামত।

এবিষয়ে জানতে জুট টেক্সটাইল মিলস লিঃ এর সহকারী মহাব্যাবস্থাপক এস এম শহিদুল আলম এর ব্যাক্তিগত মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা শ্রমিকদের মাক্স ব্যাবহার, পরিবহনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে বলেছি কিন্তু শ্রমিকরা মানতে চায়না। তারপরও আমরা চেষ্টা করবো সরকারী বিধি মেনে শ্রমিক পরিবহন পন্য উৎপাদন করতে।

আলাপকালে দিঘলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহবুবুল আলম বলেন, আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মিল কতৃপক্ষকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে উৎপাদন করতে পরিবহন করতে বলেছি, তারপরও যদি তারা সরকারী সিদ্ধান্ত না মানে তাহলে আমরা মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজা নিশ্চিত করবো।

উল্লেখ্য উক্ত মিলে শিফটে হাজার শত শ্রমিক কাজ করতো কিন্তু করোনা কালীন  সময়ে সি শিফট বন্ধ করে বি শিফটে প্রায় ১৫ শত শ্রমিক কাজ করে। কতৃপক্ষর এমন উদাসিনতায় করোনা ভাইরাস একজনের দেহ থেকে অন্য জনের দেহে সংক্রামিত হয়ে দিঘলিয়ায় মহামারি ধারন করা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

খুলনা জেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফের সহধর্মিনীর সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি প্রদান

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতীয় শ্রমিক লীগ, খুলনা জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মোঃ মারুফের সহধর্মিনী নিগার সুলতানা করোনা ভাইরাস কিডনিজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন। তাঁর রোগমুক্তি, দ্রুত সুস্থতা দীর্ঘায়ু কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑজাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খুলনা জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বি এম জাফর, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ পীর আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ তারিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মুন্সী সেলিম আহমেদ, মোঃ নিজামুল হক বাবলু, এস এম আসাদুজ্জামান আসাদ, মোঃ ফরিদ আহমেদ, মোঃ আলম হওলাদার, মোছাঃ তাছলিমা বেগম, তপন কুমার বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহীন আহমেদ, মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী রাহাত, মোঃ ফারুখ হাসান, মোঃ নজরুল ইসলাম সিকদার, প্রচার সম্পাদক শেখ মঈনুল ইসলাম মোহন, দপ্তর সম্পাদক কামরুল গাজী, অর্থ সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন, শ্রমিকনেতা এইচ এম রোকন, মোঃ সোহাগ হাওলাদার প্রমুখ।

শেখ সোহেল তার পরিবারের সুস্থ্যতা কামনায় মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদ

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানএর ভ্রাতুস্পুত্র, যুবলীগ কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য, বিবিসি পরিচালক, খুলনা যুব সমাজের আইকন, মানবিক নেতা বঙ্গবন্ধু পরিষদ খুলনা মহানগর এর অবিভাবক শেখ সোহেল এবং তার সহধর্মিনী সাহরিন জাহান হায়দার করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের আশু রোগ মুক্তি সুস্থ্যতা কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ খুলনা মহানগর নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি প্রদানকারী নেতৃবৃন্দরা হলেন খুলনা মহানগর আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক পরিষদের খুলনা মহানগর প্রধান উপদেষ্টা মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সোনাডাঙ্গা থানা আ’লীগের সহ-সভাপতি পরিষদের মহানগর সভাপতি এস এম রাজুল হাসান রাজু, বাংলাদেশ আওয়ামী বঙ্গবন্ধু লীগ কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি খুলনা মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন মল্লিক, পরিষদের মহানগর সহ-সভাপতি শরিফ এনামুল কবির, মহানগর সাধারন সম্পাদক এম আসাদুজ্জামান মুন্না, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসমত আলী, আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম বাবু, কবি হুসাইন বিল্লাহ, রোটাঃ ইঞ্জি মিজানুর রহমান, কবি হাফিজুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাছিরউদ্দিন সরদার, মনিরুজ্জামান লাভলু, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ডা. হাফিজুর রহমান সোহেল, এনায়েত হোসেন, আলীনুর হোসেন মাতুব্বর, মহিদুল ইসলাম নান্নু, এইচ এম নুরুল হক, কাজী হাসনাত হোসেন কমিট, খন্দোকার জাহাঙ্গীর আলম, এ্যাড. জিনারুল ইসলাম, মোঃ ইউনুছ আলী মোল্লা, কবি আসাদুজ্জামান মিথুন, সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ চৌধুরী রিমন, ধীরাজ কুমার মন্ডল, ডা. অহিদ সিকদার, মোঃ রেজাউল করিম, মশিউর রহমান মিলন, শারাফাত উল্লাহ স্বপন, ডা. নুরুল ইসলাম, শাহীন শরীফ বাবু, এইচ,এম আরিফ, ইঞ্জি. শান্তনু বৈরাগী, বিশ্বজিত মন্ডল, মোঃ আশিক চৌধুরী, মল্লিক মোশারফ হোসেন নিটল, আদম গাজী মান্দার, আওলাদুল আমিন, কাজী রায়হান হোসেন রুপম, মোঃ কামাল হোসেন, সামসুজ্জামান রিপন, আফজাল হোসেন আনজালা, আব্দুস সালাম সরদার, আব্দুর জব্বার কমান্ডারপ্রমুখ।

খুলনা বিভাগে আরও ৪৮ জনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে এক হাজার ৬৪২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগে রবিবার (১১ জুলাই) বিভাগে ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছিল। জুলাই বিভাগে সর্বোচ্চ ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছিল। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক রাশিয়া সুলতানা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। বাকিদের মধ্যে যশোরে ১২ জন, কুষ্টিয়ায় নয় জন, ঝিনাইদহে ছয় জন, চুয়াডাঙ্গায় তিন জন, বাগেরহাটে দুই জন, সাতক্ষীরা, নড়াইল এবং মাগুরায় একজন করে মারা গেছেন।

এদিকে খুলনার সরকারি-বেসরকারি চার হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে ১২ জন করোনা পজিটিভ পাঁচ জন করোনা উপসর্গের রোগী ছিলেন। রবিবার (১১ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে সোমবার (১২ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত এসব রোগীর মারা যান। খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, এখানের ২০০ বেডে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৯৯ জন করোনা পজিটিভ উপসর্গের রোগী ভর্তি রয়েছেন। রেড জোনে ১২৫ জন, ইয়েলো জোনে ৩৪ জন, আইসিইউতে ২০ জন এইচডিইউতে ২০ জন। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৩ হাজার ১৯২ জন। মারা গেছেন এক হাজার ৬৪১ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৭ হাজার ১০৬ জন।

খুলনার চার হাসপাতালে ১৭ মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনার সরকারি-বেসরকারি চার হাসপাতালে আরও ১৭ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে ১২ জন করোনা পজিটিভ পাঁচ জন করোনা উপসর্গের রোগী ছিলেন। রবিবার (১১ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে সোমবার (১২ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত এসব রোগীর মারা যান। খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, এখানের ২০০ বেডে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৯৯ জন করোনা পজিটিভ উপসর্গের রোগী ভর্তি রয়েছেন। রেড জোনে ১২৫ জন, ইয়োলো জোনে ৩৪ জন, আইসিইউতে ২০ জন এইচডিইউতে ২০ জন। নতুন ভর্তি ৫১ জন, ছাড়পত্র নিয়েছেন ৪০ জন। মারা গেছেন ১০ জন। এর মধ্যে পাঁচ জন করোনা পজিটিভ পাঁচ জন করোনা উপসর্গের রোগী ছিলেন। বেসরকারি গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. গাজী মিজানুর রহমান জানান, সকাল ৯টা পর্যন্ত আমাদের হাসপাতালের ১৫০ বেডের বিপরীতে ১২৯ রোগী ভর্তি রয়েছেন। নতুন ভর্তি ২৯ জন। সুস্থ হয়েছেন ৩১ জন। মারা গেছেন তিন জন।

খুলনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিট মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, এখানের ৮০ বেডের বিপরীতে সকাল ৮টা পর্যন্ত ৭৬ জন পজিটিভ ভর্তি রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি ২০ জন। ছাড়পত্র নিয়েছেন ১২ জন। মারা গেছেন তিন জন। শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. প্রকাশ চন্দ্র দেবনাথ জানান, এখানের ৪৫ বেডে ১২ জুলাই সকাল সোয়া টা পর্যন্ত ৪৫ জন করোনা পজিটিভ রোগী ভর্তি রয়েছেন। নতুন ভর্তি চার জন। ছাড়পত্র নিয়েছেন একজন। আইসিইউতে ১০ রোগী ভর্তি আছেন। মারা গেছেন একজন।

কুড়িয়ে পাওয়া নবজাতকের বিষয়ে জানতেও লাগবে তথ্য অধিকারের আবেদন!

 কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় মেহগনি বাগানে একদিন বয়সের এক কন্যা নবজাতককে উদ্ধার করে পুলিশ। তার বিষয়ে জানতেও লাগবে তথ্য অধিকারের আবেদন।

নবজাতক সুস্থ আছে বা কী ধরনের সমস্যা আছে- ব্যাপারে জানতে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যায় উপজেলার কর্মরত সাংবাদিকরা। সময় জরুরি বিভাগ থেকে স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে যেতে বলা হয়।  কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীমা শিরিন লুবনা সাংবাদিকদের জানান, তথ্য অধিকারের ওপর নতুন নোটিশ এসেছে মন্ত্রণালয় থেকে। নোটিশের বাইরে আমরা কোনো কাজ করতে পারব না। আপনারা স্বাক্ষর করে তথ্য নেবেন। আমরা সেটি রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করে রাখব যে- তথ্য আমরা অমুক তারিখে ওই পত্রিকার সাংবাদিককে দিয়েছি। এখন একদম রেজিস্টার করে আমরা তথ্য দিচ্ছি।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত বেসরকারি টিভি চ্যানেল একাত্তর টেলিভিশনের কালীগঞ্জ উপজেলা সংবাদদাতা মিশন আলী জানান, নবজাতক উদ্ধারের পর তার শারীরিক সমস্যা আছে কিনা- এমন তথ্য জানতে চাওয়া হয় স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে। তিনি তথ্য অধিকারে আবেদন স্বাক্ষর করে তথ্য নিতে বলেন। এটি আসলেই দুঃখজনক। নবজাতকের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানতে কেন তথ্য অধিকারের আবেদন করতে হবে এটি আমার বোধগম্য নয়। এমন কোনো আইন আছে কিনা আমার জানা নাই।

কালীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি জামির হোসেন জানান, একটি বাগানে পাওয়া নবজাতকের চিকিৎসার ব্যাপারে সাংবাদিকরা তথ্য নিতে গেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা তথ্য অধিকারের যে কথা বলেছেন সেটি অমানবিক। একটা নবজাতকের তথ্যের জন্য কেন তথ্য অধিকারে আবেদন করতে হবে? আর কেনই বা স্বাক্ষর করতে হবে?

কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া জেরিন জানান, তথ্য অধিকার আইন আছে। জনগণের তথ্য সুরক্ষার জন্য আইন রয়েছে। তবে নবজাতকের ব্যাপারে তাদের কোনো ইন্টার্নাল বিষয় আছে কিনা আমার জানা নাই।

উল্লেখ্য, রোববার দুপুরের দিকে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার শিবনগর এলাকার একটি মেহগনি বাগান থেকে নবজাতককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। কন্যা নবজাতকটি জীবিত অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর তার চিকিৎসার জন্য কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

এর আগে, গত ২০২০ সালের ২৬ নভেম্বরে দৈনিক যুগান্তরে করোনায় হোটেলে না থেকেও চিকিৎসকদের বিল ৫৭৬০০ টাকা শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শামীমা শিরিন লুবনার বিরুদ্ধে করোনাকালীন চিকিৎসক, নার্স কর্মচারীদের বরাদ্দের টাকা ভুয়া বিল-ভাউচারের মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি।

এর সত্যতা পাওয়ার প্রতিবেদনটি পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (প্রশাসন) দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া কালীগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান লাড্ডুর সঙ্গে দুর্ব্যবহারের প্রতিবাদে শহরে এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঝাড়ু জুতা প্রদর্শন করে বিক্ষোভ মিছিল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়।

সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার বসন্তপুর সীমান্তের বিপরীতে ভারতের হিঙ্গলগঞ্জে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন। সোমবার রাতে বিএসএফের হিঙ্গলগঞ্জ ক্যাম্প সদস্যদের গুলিতে ঘোষপাড়া গ্রামে নিহত হন তিনি। নিহতের মরদেহ বিএসএফের কাছে রয়েছে বলে জানা গেছে।

নিহত যুবকের নাম আবদুর রাজ্জাক। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের কামদেবপুর গ্রামের রমজান আলি গাজীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, রাজ্জাক একজন গরু ব্যবসায়ী। গরু কিনতে তিনি অবৈধভাবে ভারতে গিয়েছিলেন। সোমবার রাতে বিএসএফের হিঙ্গলগঞ্জ ক্যাম্প সদস্যরা তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থল ঘোষপাড়া গ্রামে নিহত হন তিনি। বিএসএফ পরে লাশটি তাদের হেফাজতে নিয়ে যায়। ফেসবুকের মাধ্যমে আব্দুর রাজ্জাকের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে বলে জানিয়েছেন ভাড়াশিমলা ইউপি সদস্য আব্দুল খালেক।

এদিকে লাশ ফেরত পাওয়ার জন্য আব্দুর রাজ্জাকের পরিবারের লোকজন বিজিবির বসন্তপুর ক্যাম্পে যোগাযোগ করেছে। তারা তাদের মাধ্যমে লাশটি ফেরত আনার চেষ্টা করছে। ভাড়াশিমলা ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ জানান, আব্দুর রাজ্জাকের লাশ ফিরে পাওয়ার জন্য তারা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল খালেকের নেতৃত্বে বিজিবির মাধ্যমে বিএসএফফের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন। বিজিবির ১৭ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল ইয়াসিন আলম চৌধুরী বলেন, সম্পর্কে কোনো তথ্য তার কাছে নেই। ঘটনা সত্য কিনা তা জানার চেষ্টা করছি। অপরদিকে কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফা জানান, তিনি খবরটি শুনেছেন। নিহত যুবকের নাম-পরিচয়ও জানতে পেরেছেন।

প্রসঙ্গে বিজিবির বসন্তপুর ক্যাম্পের হাবিলদার মো. খলিল জানিয়েছেন, রাজ্জাকের পরিবারের কাছ থেকে তথ্য পাওয়ার পর আমরা বিএসএফের কাছ থেকে বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি।

বিএনপি পরিচালিত কল সেন্টারে অনুদানের অক্সিজেন সিলিন্ডার নগদ অর্থ প্রদান অব্যাহত

খবর বিজ্ঞপ্তি

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তÍদের চিকিৎসা সহায়তায় বিএনপি পরিচালিত কল সেন্টারে আরও দুইটি অক্সিজেন সিলিন্ডার ১৫ হাজার টাকা অনুদান গ্রহণ করা হয়েছে। এনিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা দাঁড়াল ৪০টি।

সোমবার (১২ জুলাই) বেলা ১১টায় অস্থায়ী কল সেন্টার অফিসে খুলনা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র সদস্য এড. তফসির আহমেদ চুনী দুইটি অক্সিজেন সিলিন্ডার তার  মামী শিক্ষাবিদ রেহেনা আক্তারের মাধ্যমে প্রদান করেন। একই সময়ে সাবেক মেয়র সিরাজুল ইসলাম এর ছেলে জাহিদুল ইসলাম হাজার টাকা এবং সাবেক ছাত্রনেতা রুবায়েত আহসান খান রানার মাধ্যমে ডা. শামীম আহমেদ তাহমিদ রশিদ তিতু ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন। অনুদান গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ আত্মমানবতার সেবায় তাদের অনুদান কৃতজ্ঞার সাথে স্বরণ কনের ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি, জাফরউল¬াহ খান সাচ্চু, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, মেহেদী হাসান দিপু, ইউসুফ হারুন মজনু, হাসানুর রশিদ মিরাজ, ডা. ফারুক হোসেন, সিরাজুল ইসলাম লিটন, সাজ্জাত হোসেন জিতু, রাজিবুল হাসান বাপ্পী, শেখ আল মামুন, সেলিম বড় মিয়া মাসুদ রুমী।

যুবলীগের স্মরণ সভায় অশ্রু সিক্ত নয়নে রুনু ইকবাল বিথার

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য, ২৪নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর শহীদ ইকবাল বিথারের মৃত্যুবার্ষিকীতে খুলনা মহানগর যুবলীগের স্মরণ সভা দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। খুলনা মহানগর যুবলীগের আহবায়ক সফিকুর রহমান পলাশের সভাপতিত্বে যুগ্ম আহবায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজনের পরিচালনায় স্মরণ সভায় প্রধান অতিথিরবক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা। সময় তিনি বলেন, শহীদ ইকবাল বিথার বঙ্গবন্ধুর আদর্শে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি অবিচল ছিলেন। দল খুলনবাসির সেবায় তিনি আমৃত্যু কাজ করে গেছেন। তার মৃত্যু আমাদের জন্য একটি অপূরনীয় ক্ষতি। আজকের এই দিনে আমরা তার আত্মার শান্তি কামনা করি। সেই সাথে এই হত্যা মামলা সহ সকল রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের হত্যা মামলার সুষ্ঠ বিচারের দাবি জানান তিনি।

সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, শ্যামল সিংহ রায়, মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, শহীদ ইকবাল বিথারের স্ত্রী রুনু ইকবাল বিথার। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রুনু ইকবাল বিথার, দলের খুলনবাসির প্রতি শহীদ ইকবাল বিথারের যে টান ছিল সেটি তুলে ধরেন। সময় তিনি অশ্রুসিক্ত নয়নে বলেন, দীর্ঘদিন পরে হলেও দলীয় কার্যালয়ে শহীদ ইকবাল বিথারের স্মরণ সভার আয়োজন হয়েছে এটই প্রমান করে হত্যার মধ্যদিয়ে শহীদ ইকবাল বিথারকে শেষ করা যায়নি। তিনি বেচে থাকবেন আমাদের মাঝে আওয়ামী লীগের অগনিত কর্মীর হৃদয়ে। তিনি আরো বলেন, শহীদ ইকবাল বিথারের হত্যা শুধু আমাকে স্বামী হারা বা আমার সন্তানকে পিতৃহারা করেনি, খুলনাবাসিকেও যোগ্য নেতৃত্ব হারা করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিন্রা প্রতি আমার আমার পরিবারের দৃঢ় বিশ^াষ রয়েছে। আমরা বিশ^াস করি শহীদ ইকবাল বিথারের হত্যাকান্ডের বিচার হবে।

সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা আকীল উদ্দিন, কাউন্সিলর ইমাম হাসান চৌধুরী, নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল, নগর যুবলীগ নেতা রোজী ইসলাম নদী, আব্দুল কাদের শেখ, আবুল হোসেন, সওকত হোসেন, অভিজিৎ চক্রবর্তী দেবু, কবির পাঠান, তাজুল ইসলাম, মহিদুল ইসলাম মিলন, মশিউর রহমান সুমন, কে এম শাহিন হাসান, সাবেক ছাত্রনেতা অভিজিৎ পাল, যুবলীগ নেতা ইলিয়াস হোসেন লাবু, রবিউল ইসলাম লিটন, হাসান শেখ, কাঞ্চন শিকদার, ইমরুল ইসলাম রিপন, জামাল শেখ, মাসুম উর রশিদ, মাসুম আহমেদ ডলার, হারুন উর রশিদ, আনিসুর রহমান, জামাল শেখ, লাবু আহমেদ, জিহাদুল ইসলাম জিহাদ, মহিদুল ইসলাম শান্ত, ছাত্রলীগ নেতা আসাদুজ্জামান বাবু, জব্বার আলী হিরা, জহির আব্বাস, সোহান হোসনে শাওন, মাহমুদুল হাসান রাজেস, হিরন হাওলাদার, নিশাত ফেরদৌস অনি প্রমূখ।

স্মরণ সভা শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মহানগর শ্রমিক লীগ নেতা হাফেজ মোঃ আব্দুর রহিম।

খালিশপুরে ইমাম পরিষদের ফ্রি অক্সিজেন সেবার উদ্বোধন

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা জেলা ইমাম পরিষদ খালিশপুর থানার উদ্যোগে করোনা আক্রান্ত রোগীদের ফ্রি অক্সিজেন সেবা কার্যক্রমের উদ্বোধন রোববার অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরিষদের থানা সভাপতি মাওলানা কারামত আলীর সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা ইমাম পরিষদ এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গোলাম কিবরিয়া, কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) শাহাবুদ্দিন আহমাদ, খালিশপুর থানার ভাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কামাল খান, ইমাম পরিষদেরর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এফ এম নাজমুস সউদ, অর্থ সম্পাদক মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, মাওলানা আনোয়ারুল আযম প্রমুখ।

নওয়াপাড়ায় হাজার পানি বন্দি পরিবারের পাশে দাড়ালেন আব্দুস সালাম শেখ

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি

অভয়নগর নওয়াপাড়া পৌর সভার ৪নং ওয়ার্ডের মদিনা বাগ পশ্চিমপাড়ায় পানি বন্দি দুই হাজার পরিবারের পাশে দাড়ালেন ওয়ার্ড কাউন্সিলার পদ প্রার্থী আব্দুস সালাম শেখ। তার উদ্দ্যেগে এলাকার দুই শতাধিক নারী-পুরুষ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পানি অপসারণের জন্য নালা কাটতে অংশ গ্রহন করেন। এসময় আরোও উপস্থিত ছিলেন, আবু নঈম মোড়ল, আব্দুল হালিম মোড়ল, মো. ইমরান শেখ, মো. মিজানুর রহমান পাখি, তরিকুল ইসলাম রুবেল, জাহির উদ্দীন শেখ, আব্দুল খায়ের, বাবু সরদার, নূর ইসলাম বিশ্বাস, কামরুল ইসলাম, মো. হুমায়ন কবির, জালাল সরদার, মো. মিনারুল ইসলাম প্রমুখ। পরে স্বেচ্ছাশ্রমে অংশ নেওয়া সকলের জন্য খিচুড়ীর আয়োজন করা হয়।

রূপসা উপজেলা অক্সিজেন ব্যাংকের স্বেচ্ছাসেবীদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত  

রূপসা প্রতিনিধিঃ          

রূপসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে ১২জুলাই  দুপুরে অনুশীলন মজার স্কুলের আয়োজনে রূপসা উপজেলা প্রশাসন উপজেলা এসডিজি ফোরামের সহায়তায় রূপসা উপজেলা অক্সিজেন ব্যাংকের স্বেচ্ছাসেবীদের ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়। এসডিজি প্রজেক্টের প্রকল্প কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফার সঞ্চালন উপজেলা স্বাস্থ্য প,কর্মকর্তা শেখ শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে স্বাগত বক্তৃতা করেন অনুশীলনের নির্বাহী পরিচালক অলোক চন্দ্র দাস। প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন বাদশা,উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবাইয়া তাছনিম,থানা অফিসার ইনচার্জ সরদার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মজিদ ফকির, মোরশেদুল আলম বাবু আব্দুল গফুর খান।খুলনা অক্সিজেন ব্যাংকের সালেহ উদ্দিন সবুজ,এসডিজি ফোরাম অক্সিজেন ব্যাংকের জুলফিকার আলী, গোলাম ফারুক স্মৃতি সংসদ অক্সিজেন ব্যাংকের সাজেদ হাওলাদার,আর আর এন অক্সিজেন ইউনিটের মাহাদী হাসান।প্রশিক্ষক হিসেবে ওরিয়েন্টেশন পরিচালনা করেন  আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সঙ্গীতা চৌধুরী, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিট ডাঃ মেহেদী হাসান।

মহেশপুরে করোনায় দুই জনের মৃত্যু: আক্রান্ত আরো ১৫

মহেশপুর(ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের মহেশপুরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পৌর এলাকার জলিলপুর খান পাড়ার সনু খান (৫০) এসবিকে ইউনিয়নের সুন্দরপুর গ্রামের আলমামুনের (২৪) মৃত্যু হয়েছে। দু’জনই ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত রোববার রাতে মারা যান।

এদিকে গতকাল সোমবার মহেশপুরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে আরো ১৫ জন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাঃ হাসিবুর সাত্তার জানান, মহেশপুরের জলিলপুর খান পাড়ার সনু খান সুন্দরপুর গ্রামের আলমামুন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায়  রোববার রাতে তাদের মৃত্যু হয়।

তিনি আরো জানান, মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩৭ জনের করোনা ভাইরাসের নমুনা নেওয়া হয়। পরে ৩৭ জনের মধ্যে ১৫ জনের করোনা প্রজেটিফ রিপোট আসে।

এদিকে টানা ১২তম দিনের মতো চলছে কঠোর ভাবে অলডাউন। সকাল থেকেই একেবারেই জনশুন্য মহেশপুর শহর। মোড়ে মোড়ে রয়েছে পুলিশের চেকপোষ্ট। সেই সাথে রয়েছে বিজিবি আর সেনা সদস্যদের টহল।


Post Views:
9



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102