রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৫ অপরাহ্ন

পানি টেনেই জীবন চলে সীতার

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১
  • ১১
পানি টেনেই জীবন চলে সীতার

 মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

ভ্যান চালিয়ে হোটেল, চায়ের দোকানে পানি দিয়েই জীবিকা নির্বাহ করে চলেছেন সীতা বিশ্বাস (৫২) নামের এক নারী। তিনি ২৫ বছর এভাবেই পানি টেনে দিনাতিপাত করে চলেছেন। তার কপালে আজও জোটেনি ভিজিডি কিংবা ভিজিএফসহ সরকারি কোনো সুবিধা।

সীতা বিশ্বাস যশোরের মনিরামপুর পৌরশহরের ভগবানপাড়ায় বসবাস করে আসছেন। সীতার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কেশবপুর উপজেলার বড়ডাঙ্গা গ্রামের সুনীল বিশ্বাসের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় ২৫ বছর আগে তিন সন্তানকে নিয়ে স্বামীর সংসার ছেড়ে পিত্রালয়ে চলে আসেন।

সীতা বিশ্বাস জানান, বিয়ের পর দুই মেয়ে এবং এক পুত্রসন্তান জন্মের পর স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করায় বাবার সংসারে চলে আসেন। কিন্তু বাবাও ছিলেন দরিদ্র। তাই তিন সন্তানের মুখে খাবার জোগাতে জীবিকার তাগিদে জীবন সংগ্রামে নেমে পড়েন। প্রথম অবস্থায় গৃহস্থ পরিবারের ঝিয়ের কাজ করলেও সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দেওয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে।

একপর্যায় বাজারে হোটেল আর চায়ের দোকানে কোলে করে পানি দেওয়ার কাজ শুরু করেন। বিনিময়ে প্রতি কলস পানি দেওয়া বাবদ টাকা পারিশ্রমিক পান তিনি। সেই থেকে আজও রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে কাজ করে চলেছেন সীতা।

তিনি আরও জানান, বছর দুয়েক আগে পড়ে গিয়ে পায়ে আঘাত পেয়ে পানি দেওয়ার কাজে ছেদ ঘটে। পরে প্রতিবেশীর কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে দুই হাজার টাকায় একটি ভ্যান এবং তিন হাজার টাকায় ৮টি ঘড়া (কলস) কিনে ভ্যান চালিয়ে পানি সরবরাহ শুরু করেন।

এক প্রশ্নের জবাবে সীতা বিশ্বাস দুঃখ করে বলেন, স্বামী থেকেও নেই, তাই বিধবা ভাতা পান না। শ্বশুরবাড়ি কেশবপুর হওয়ায় তিনি ভিজিডি-ভিজিএফ সহায়তা বঞ্চিত। তবে এবার তাদের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ৫শ টাকা এবং চাল দিয়েছেন।


Post Views:
37



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102