মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শরণখোলায় নগ্ন ভিডিও ধারণ করে স্ত্রীকে বর্বর নির্যাতন করে ইয়াসিন! কোষ্টগার্ডের অভিযানে গাঁজাসহ আটক-৪ পুড়েছে দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, একটি বসতঘর শরণখোলায় অগ্নিকান্ডে ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি শরণখোলায় সম্মিলিত সম্প্রীতি উদ্যোগের সভা অনুষ্ঠিত ‘জয়িতা’ শত বাধা পেরিয়ে শরণখোলার তিন নারীর সফলতার গল্প! রামপালে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওশান সরদারের জন্মদিন পালন খুলনার মেধাবী মীম এর পাশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় মোরেলগঞ্জের পিআইও অফিসে পাঁচ দফা দাবীতে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন শরণখোলা উপজেলা স্কাউটসের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত বঙ্গোপসাগর উত্তাল, নিরাপদ আশ্রয়ে শত শত ট্রলার!

কুড়িগ্রামে একই জমির ধান গাছে দু’বার ধান উৎপাদন; লাভবান হচ্ছেন চাষিরা! | Adhunik Krishi Khamar

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১
  • ৪৬ Time View




Sundabon Academy

কুড়িগ্রামের ব্রহ্মপুত্র নদবেষ্টিত রৌমারী উপজেলায়
জনপ্রিয় হচ্ছে একই জমির ধান গাছে দু’বার ধান উৎপাদন। অল্প খরচে অধিক লাভবান হওয়ায় ইতোমধ্যে এই পদ্ধতিতে ধান চাষ কৃষকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে।

জানা গেছে, ব্রহ্মপুত্র নদী ও হলহলিয়া নদীসহ মোট ৫টি শাখা নদী দ্বারা বেষ্টিত রৌমারী উপজেলা।
এ উপজেলায় মোট আয়তন ১৯ হাজার ৭০০ হেক্টর। আবাদযোগ্য জমি ১৬৬ হেক্টর। নিট আবাদি জমির পরিমাণ ১৫ হাজার ৫৫৫ হেক্টর। ২০২০-২১ অর্থ বছরে এ উপজেলায় প্রায় ১০ হাজার ২০ হেক্টর জমিতে বোরা ধান চাষ হয়েছে।

স্থানীয় কৃষক রুহুল আমিন জানান, বোরো ধান কাটার পর ফেলে রাখা ওই জমির কাটা ধানের গাছ থেকে কুশি বের হয়। আগে আমরা ওই ধানের কুশি গরুর খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করতাম। এখন ওই ধান গাছ থেকে তিনি নতুন ধান উৎপাদন করছেন।

স্থানীয় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শে তার ৪০ শতাংশ জমিতে ব্রি ধান-২৮ কর্তনের সময় ধান গাছের মুড়ি রেখে দেন। পরে সেচ দিয়ে ১০ কেজি ইউরিয়া, ৫ কেজি এমওপি সার প্রয়োগ করে ৫৫ দিন পর ৭ মণ ধান পেয়েছেন। এতে তার খরচ হয়েছে মাত্র ১ হাজার টাকা। 

কৃষক শফিকুল হক জানান, বোরো চাষ করে ধান ভালো হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও ধান কাটার পর একই ধানের গাছ থেকে নতুন ধান উৎপাদনের সুযোগ পাওয়ায় বোরো ধান চাষে তিনি লাভবান হচ্ছেন। আগামী বছর কয়েক একর জমিতে মুড়ি ফসল চাষ করবেন।

শৌলমারী ইউনিয়নের বোয়ালমারী ব্লকে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ রানা জানান, তার ব্লকে প্রথমে ৫ হেক্টর জমিতে ২০ জন কৃষক মুড়ি ফসল রাখলেও শেষ পর্যন্ত ৩ হেক্টর জমির ফসল কর্তন করতে সক্ষম হয়েছেন। বন্যার আগেই মাত্র ৫৫-৬০ দিনের অতিরিক্ত ৬০ হতে ৭০ মণ ধান উৎপাদন করতে সক্ষম হন কৃষকরা।









Source by [সুন্দরবন]]

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
Sundabon Academy

Recent Posts

© 2022 sundarbon24.com|| All rights reserved.
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102