রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৮ অপরাহ্ন

সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

  • আপডেট সময় রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১
  • ৪১
সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

২৮ কেজির ভোল মাছ ৪ লাখ ৬২ হাজার ৭শ’ টাকায় বিক্রি

খুলনাঞ্চল রিপোর্ট

সাগরে জেলের জালে ধরা পড়েছে ২৮ কেজি ওজনের ভোল মাছ। প্রতিমণ ৬ লাখ ৬১ হাজার টাকা হিসেবে মাছটি চার লাখ ৬২ হাজার ৭শ’ টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে পাথরঘাটা বিএফডিসি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে এ ভোল মাছটি ক্রয় করেন খুলনার মৎস্য পাইকার মোঃ জুয়েল আহম্মেদ। আড়তদার ও ট্রলার মালিক মাছুম কোম্পানির মালিকানাধীন এফবি আলাউদ্দিন হাফিজ-৪ ট্রলারের মাঝি আবু জাফর বলেন, বৃহস্পতিবার গভীর সমুদ্রে জাল ফেলার সঙ্গে সঙ্গেই জাল টানাটানি শুরু করে। জাল টানা দেখে মনে হয়েছে বড় কোন মাছ আটকে পড়েছে। আমরা জাল টানতেই এ মাছ পাই। আমরা আর দেরি না করে দ্রুত ঘাটে আসি। শনিবার সকাল থেকেই মাছ খোলাবাজারে ডাক শুরু হলে দুপুর ১২টার দিকে ওই মাছটি ৬ লাখ ৬১ হাজার টাকা মণ দরে ২৮ কেজি মাছ চার লাখ ৬২ হাজার ৭শ’ টাকায় বিক্রি করা হয়েছে।

খুলনা বিভাগে করোনায় আরও ৩৩ জনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা বিভাগে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইসময়ে বিভাগে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৪৯ জনের। শনিবার খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. ফেরদৌসী আক্তার এ তথ্য জানিয়েছেন।

স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগের মধ্যে কুষ্টিয়ায় সর্বোচ্চ ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাকিদের মধ্যে খুলনায় আটজন, যশোরে ছয়জন এবং নড়াইল, মাগুরা, ঝিনাইদহ ও মেহেরপুরে একজন করে ব্যক্তি মারা গেছেন। এর আগে শুক্রবার খুলনা বিভাগে করোনায় ৩০ জনের মৃত্যু হয়। নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছিল ৩৬১ জনের।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৯ মার্চ খুলনা বিভাগে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায়। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৮৫ হাজার ৭৮৪ জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ২ হাজার ১২৬ জন। আর করোনা থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৯ হাজার ৯৭৩ জন।

ডুমুরিয়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী আ’লীগ নেতা সাংবাদিক জাহাঙ্গীরের গনসংযোগ

ডুমুরিয়া প্রতিনিধি

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, ডুমুরিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর আলম গতকাল শনিবার দিনব্যাপী গনসংযোগ করেন।  ডুমুরিয়ার হাজিডাঙ্গা গ্রামের মনোহর রায়(৬৫) গতকাল সকালে মৃত্যু বরন করেন। দুপুর ১২ টায় ডুমুরিয়া  বাজারের কেন্দ্রীয় মহা শশ্মনে তার অন্তেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নেন। দক্ষিন ডুমুরিয়ার মধ্যাবশ্বাসপাড়ার দোকানদার আব্দুল লতিফ বিশ্বাস্বের স্ত্রী হাচিনা বেগম (৫০) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন(ইন্না…রাজেউন)। যোহর বাদ মরহুমার বাড়ির সামনে অনুষ্ঠিত নামাজে জানাজায় অংশ নেন সাংবাদিক জাহাঙ্গীর। বিকেলে ডুমুরিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক আব্দুল লতিফের স্ত্রী নাছিমা সুলতানা ও নার্গিস ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন দক্ষিণ ডুমুরিয়া গ্রামের জাকির মোড়লের স্ত্রীকে দেখতে যান। এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আনিছুজ্জামান খান, হাবিবুর রহমান খান, হারুনুর রশীদ বাবু, সুমন শেখ, নওশের সরদার, বাধন মন্ডল, এস কে বাপ্পি, কবির মোড়ল, ইসমাইল জোয়াদ্দার প্রমুখ।

সময়ের খবরের সম্পাদকের ভগ্নিপতির মৃত্যুতে খুলনা উন্নয়ন কমিটি’র শোক বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য, দৈনিক সময়ের খবরের সম্পাদক মোঃ তরিকুল ইসলামের ভগ্নিপতি ও করোনেশন গার্লস স্কুলের শিক্ষক মোঃ আখতারুজ্জামান সুমনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑবৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, মহাসচিব কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মাদ আলী, সহ-সভাপতি শাহীন জামাল পন, মোঃ নিজাম-উর রহমান লালু, জেড এ মাহমুদ ডন, মিজানুর রহমান বাবু, অধ্যাপক মোঃ আবুল বাসার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার বদিয়ার রহমান, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, চৌধুরী মোঃ রায়হান ফরিদ, চৌধুরী মিনহাজ উজ-জামান সজল, আরজু ইসলাম আরজু, মামনুরা জাকির খুকুমনি, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব এড. শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মীর বরকত আলী, মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম, মিজানুর রহমান জিয়া, শেখ ইফতেখার চালু, কোষাধ্যক্ষ মিনা আজিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার মনিরুল ইসলাম, মহিলা সম্পাদক রসু আক্তার, দপ্তর সম্পাদক নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, প্রচার সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. লুৎফর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ইলিয়াস মোল্লা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সরদার রবিউল ইসলাম রবি, যুব বিষয়ক সম্পাদক মতলেবুর রহমান মিতুল, ক্রীড়া সম্পাদক শেখ আবিদ উল্লাহ, সমাজসেবা সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, শ্রম সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, শিক্ষা সম্পাদক অধ্যাপক আযম খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোল্লা মারুফ রশীদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান মুরাদ, পরিবেশ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়ম-, কৃষি সম্পাদক আহমেদ ফিরোজ ইব্রাহিম, বাণিজ্য সম্পাদক এস এম আখতার উদ্দিন পান্নু, লাইব্রেরী সম্পাদক মল্লিক মাসুদ করিম, নির্বাহী সদস্য রকিব উদ্দিন ফারাজী, এড. আব্দুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, শেখ মুর্শরফ হোসেন, এড. কুদরত-ই-খুদা, আলী আকবর টিপু, আনিসুর রহমান বিশ্বাস, অধ্যক্ষ রেহেনা আক্তার, মোঃ মামুন রেজা, মোঃ তরিকুল ইসলাম, মোঃ শফিকুর রহমান, এস এম জাহিদুর রহমান, জুবায়ের আহমদ খান জবা, শেখ আব্দুস সালাম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, মোঃ হায়দার আলী, কামরুল করিম বাবু, রফিকুল ইসলাম বাবু, প্রমিতি দফাদার প্রমুখ।

ফকিরহাটের সিরামিক কোম্পানিকে অর্থদন্ড ও ২জনকে কারাদন্ড প্রদান

ফকিরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের ফকিরহাটে ভ্রাম্যমান আদালতের পৃথক পৃথক অভিযানে টাউন নওয়াপাড়ায় অবস্থিত সাউথইস্ট ইউনিয়ন সিরামিক ইন্ডাষ্ট্রিজ লিঃ, নামক একটি কোম্পানিকে অর্থদন্ড ও দুই ব্যক্তিকে কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছেন। শনিবার সকাল ১১ টায় ফকিরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সানজিদা বেগমের নের্তৃত্বে এক ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালিয়ে অপরাধ প্রমানিত হওয়ায় তাৎক্ষনিক সাউথইস্ট ইউনিয়ন সিরামিক ইন্ডাষ্ট্রিজ নামক কোম্পানীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমান প্রদান করে তা আদায় করেন। শুধু তাই নয় কঠোর লকডাউন চলাকালে কোম্পানিটি বন্ধ রাখারও নির্দ্দেশ প্রদান করেন তিনি। অপর দিকে একই আদালত দুপুর সাড়ে বারটার সময় উপজেলার শুভদিয়া এলাকায় সরকারী বিধি নিষেধ অমান্য করে সরকারী জল-মহল হতে স্যালো ইঞ্জিন দিয়ে বালু উত্তোলনের অভিযোগে দেয়াপাড়া গ্রামের মোঃ ঈমান আলী শেখের পুত্র মোঃ আজগর আলী শেখ (৪৮) ও একই গ্রামের লিয়াকত আলী শেখের পুত্র ইসা আলী শেখ (৪০)-কে ৫ দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে তাদেরকে বাগেরহাট জেলা কারাগারে প্রেরণ করেন।

আইচগাতী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদকের সুস্থতা কামনায় জেলা শ্রমিক লীগের বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতীয় শ্রমিক লীগ খুলনা জেলা শাখার সম্পাদকম-লীর সদস্য, আইচগাতী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক, সাংবাদিক এইচ এম রোকন অসুস্থ হয়ে নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন আছেন। তাঁর সুস্থতা কামনায় সকলের নিকট দোয় প্রার্থনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑজাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও খুলনা জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বি এম জাফর, খুলনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ পীর আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ তারিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মুন্সি সেলিম আহমেদ, মোঃ নিজামুল হক বাবলু, এস এম আসাদুজ্জামান আসাদ, মোঃ ফরিদ আহমেদ, মোঃ আলম হাওলাদার, তাসলিমা বেগম, তপন কুমার বিশ্বাস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহীন আহমেদ, মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী রাহাত, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মোঃ মারুফ, মোঃ ফারুক হাসান, মোঃ নজরুল ইসলাম সিকদার, মোঃ আলমগীর হোসেন, প্রচার সম্পাদক শেখ মঈনুল ইসলাম মোহন, দপ্তর সম্পাদক কামরুল গাজী, অর্থ সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন, শ্রমিকনেতা মোঃ সোহাগ হাওলাদার, মোঃ হায়দার আলী খান প্রমুখ।

সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে, জেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন মোট ৫০২ জন। আর ভারাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ৮২ জন।

সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন ডাঃ হুসাইন শাফায়াত জানান, জেলায় আজ পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ১৬৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৯৬৭ জন। এছাড়া বর্তমানে ২২২ জন করোনা আক্রান্ত রোগী সরকারী ও বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকীরা হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তিনি এ সময় করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ও মাস্ক পরার আহবান জানান।

সাতক্ষীরায় দায়সারা ভাবে চলছে চলমান কঠোর লকডাউন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরায় আইনশৃখংলা বাহিনীর তেমন কোন তৎপরতা না থাকায় চলমান কঠোর লকডাউন চলছে দায়সারাভাবে। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ও হাট বাজার গুলোতে প্রচুর জনসমাগম লক্ষ্য করা গেছে। মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধি। আংশিক খোলা রেখে বেচাকেনা করা হচ্ছে শহরের অধিকাংশ দোকান পাটে। সড়কে জরুরি পন্যবাহী পরিবহনের পাশাপাশি বেড়েছে ছোট ছোট যান চলাচল। খোলা রয়েছে জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান। বন্ধ রয়েছে সকল প্রকার গণপরিবহন।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জানান, লকডাউনের বিধি নিষেধ ভঙ্গ করায় জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ টি ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ৬৬ টি মামলায় ৫২ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া জেলায় একজন করে ম্যাজিস্ট্রের নেতৃত্বে ২২টি ভ্রাম্যমান আদালত, সেনাবাহিনীর ১০ টি পেট্রোল টিম, তিন প্লাটুন বিজিবি ও পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ ও আনসার ব্যাটেলিয়ন মোতায়েন রয়েছে। তিনি এ সময় জেলার সর্বসাধারনকে সরকারের দেয়া লকডাউনের বিধি নিষেধ মেনে চলার আহবান জানান।

বাগেরহাটে ৭জন নিহতের ঘটনায় পিকআপ চালকের নামে মামলা

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটে পিকআপ-ইজিবাইকের সংঘর্ষে সাতজন নিহতের ঘটনায় পিকআপের ওসমান গনির (২০) নামে সড়ক পরিবহন আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাতে মোল্লাহাট হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল আজিজ শেখ বাদি হয়ে ফকিরহাট থানায় এই মামলা দায়ের করেন। ঘাতক চালক ওসমান গনিকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার সকালে খুলনা-মাওয়া মহাসড়কের উপজেলার বৈলতলী প্রাইমারি স্কুল এলাকায় ওসমানের চালিত পিকআপ ও ইজিবাইকের সংঘর্ষে সাতজন নিহত হয়। এর পরেই ওসমানকে আটক করে ফকিরহাট থানা পুলিশ।পিকআপ চালক ওসমান গনি সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ থানার রঘুনাথপুর গ্রামের সিদ্দিক হোসেনের ছেলে।

ওসমান গনি পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে লাইসেন্স ছাড়াই তিনি পিকআপটি চালাতেন। দীর্ঘদিন চালকের সহযোগী হিসেবে কাজ করায় গাড়ি চালানো শিখে যান ওসমান। এরপর থেকে সে লাইসেন্স ছাড়াই গাড়ি চালায়।

ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সাইদ মোহাম্মাদ খায়রুল আনাম বলেন, দূর্ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে কেউ মামলা করতে অনিহা প্রকাশ করায় মোলাহাট হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল আজিজ শেখ বাদি ফকিরহাট থানায় পিক-আপের চালক ওসমান গনির নামে মামলা দায়ের করেছে।  ওসমানকে আদালতে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে।

ওসি আরও বলেন, ওসমানের গাড়ি চালানোর কোন লাইসেন্স ছিল না। তিনি একটি গাড়িতে থাকতেন। ড্রাইভিং লাইসেন্স না পেয়েই গাড়ি চালানো শুরু করে।

পাইকগাছায় স্যার পিসি রায় অক্সিজেন ব্যাংকের উদ্বোধন করেন এমপি বাবু

খবর বিজ্ঞপ্তি

পাইকগাছা উপজেলার রাড়–লীতে যাত্রা শুরু করলো স্যার পিসি রায় অক্সিজেন ব্যাংক। রাড়–লী ইউনিয়ন চাকুরিজীবী মানব কল্যাণ সোসাইটির উদ্যোগে ইউনিয়নের করোনা রোগীদের জন্য এ অক্সিজেন ব্যাংক স্থাপন  করা হয়েছে। গত শুক্রবার দুপুরে খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অক্সিজেন ব্যাংকের শুভ উদ্বোধন করেন। আরাজী ভবানীপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে এ্যাডঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন সুমনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার ইকবাল মন্টু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ, আওয়ামী লীগ নেতা প্রভাষক ময়নুল ইসলাম, আরশাদ আলী বিশ্বাস ও ডাঃ শংকর দেবনাথ।

মহেশপুর সীমান্ত এলাকা থেকে শিশুসহ ১৩ জন আটক

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত এলাকা ভারত থেকে আসার ও ভারতে যাওয়ার পেথে বিজিবি’র সদস্যরা গত দু’দিনে শিশুসহ ১৩ জনকে আটক করেছে।

মহেশপুর ৫৮ বিজিবি’র সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম খান জানান, গতকাল শনিবার ভোর রাতে ও শুক্রবার রাতে শ্রনাথপুর,মাঠিলা,সামন্তা ও শ্যামকুড় বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা শরিশাঘাটা সীমান্ত এলাকা থেকে খুলনার রুপসা উপজেলার সীমান্ত সেনা গ্রামের হাবিব মিয়ার ছেলে জাকির হোসেন (৪৫),তার স্ত্রী আছমা খাতুন (৪০) ছেলে শাওন(৩),নড়াইল জেলার দুশোহাটি গ্রামের মদন মোহন সরকারের ছেলে প্রভাষ সরকার (২৮),খুলনার ডুমুরিয়ার আগর বৈরাগীর ছেলে অচ্যুৎ কুমার বৈরাগী (৩৪),গোলাপগঞ্জ জেলার টুঙ্গীপাড়ার অধির বালার ছেলে আশিক বালার ছেলে (২৭),মাগুড়ার দিঘলকান্দি গ্রামের ভুবন সরকারের ছেলে গোপিনাথ সরকার (২৭),কলাগাছি গ্রামের শক্তিপদ শিকদারের মেয়ে কাকলি শিকদার (১৯),বাকনবাড়ীয়া গ্রামের গৌরমন্ডলের মেয়ে সুমতি মন্ডল (১৯),নড়াইল জেলার হিজলঙ্গা গ্রামের দিলিপ বিশ^াসের মেয়ে বৈশাখী মন্ডল (১৮), ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার নবুওয়াত মন্ডলের মেয়ে এমি খাতুন (২২),মহেশপুর উপজেলার নিশ্চিতপুর হঠাৎপাড়া গ্রামের আতর আলীর ছেলে শুকুর আলী (২৮) ও জীবননগর পাড়ার রহিম বক্স মন্ডলের ছেলে ওলিয়ার রহমানকে (৫০) আটক করা হয়।

খুলনা জেলায় করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন তিন হাজার সাতশত ৭২ জন

তথ্য বিবরণী

খুলনা জেলায় শনিবার তিন হাজার সাতশত ৭২ জন করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। যার মধ্যে পুরুষ দুই হাজার ৫৪ এবং মহিলা এক হাজার সাতশত ১৮ জন। শনিবার খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এক হাজার তিনশত ৮০ জন এবং নয়টি উপজেলায় মোট দুই হাজার তিনশত ৯২ জন করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। উপজেলাগুলোর মধ্যে দাকোপে দুইশত ৪৪ জন, বটিয়াঘাটা দুইশত ১২ জন, দিঘলিয়ায় দুইশত ২৪ জন, ডুমুরিয়ায় তিনশত ৪৬ জন, ফুলতলায় একশত ৫২ জন, কয়রায় পাঁচশত ৭৬ জন, পাইকগাছায় দুইশত ১৪ জন, রূপসায় তিনশত ২০ জন এবং তেরখাদায় একশত চার জন টিকা গ্রহণ করেছেন। খুলনা সিভিল সার্জন দপ্তরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসকল তথ্য জানানো হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুরের ঘটনা ষড়যন্ত্র দাবী অধ্যক্ষের

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ।।

শরণখোলা মাতৃভাষা ডিগ্রী কলেজে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুরের অভিযোগ একটি মহলের ষড়যন্ত্র বলে দাবী করেছেন অধ্যক্ষ (চলতি দায়িত্বে) মোঃ কামরুল ইসলাম মোল্লা। তিনি শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুর ১২ টায় শরণখোলা প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবী করেন। এ সময় তার সাথে ওই কলেজের শিক্ষক পরিষদের নের্তৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, মূলতঃ অভিযোগকারী কলেজের অফিস সহকারী রেজাউল ইসলাম নান্নু নিয়মিত অফিস না করে আয়-ব্যয় হিসাব খাতা পত্রে না লিখে বিভিন্নভাবে আত্মসাৎ করেন। এরপর তিনি দায়িত্ব নিয়ে আয়-ব্যয় হিসাব লিপিবদ্ধ এবং অর্থ ব্যাংক হিসাবে জমা করায় আত্মসাতের সুযোগ বন্ধ হয়ে যায়। যার কারনে কর্মচারী আফজালকে ব্যবহার করে ২০০১ সালের ছবি ভাংচুরের কাহিনী সাজিয়ে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন।

তবে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুরাতন ছবি অসম্মান জনকভাবে জানালার পর্দার পাইপের সাথে ঝুলিয়ে রাখার বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কামরুল ইসলাম বলেন, অধ্যক্ষ্যের কার্যলয় পরিবর্তন করার কারণে বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি দুটি যথাযথভাবে প্রর্দশনের জন্য অফিস সহকারী রেজাউল ইসলাম নান্নুকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু সে দায়িত্ব পালন না করে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন। তবে বর্তমানে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি অধ্যক্ষের কক্ষে স্বযতেœ রক্ষিত আছে।

জ্যেষ্ঠতা লঙ্গন করে অধ্যক্ষের দায়িত্ব নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মোঃ কামরুল ইসলাম জানান, করোনা মহামারির কারনে কলেজ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করা যায়নি। তবে যেহেতু অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম অবসরে যাবেন তাই পূর্বের জ্যেষ্ঠ্য শিক্ষক চন্দন কুমার কবুলাশী দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করায় শিক্ষক পরিষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক তিনি চলতি দায়িত্ব গ্রহন করেছেন। এছাড়া তার জামায়াতের রাজনীতির সাথে কোন সম্পৃক্ততা নেই তবে ছাত্র জীবনে ইসলামী ছাত্র শিবির ও ছাত্র ইউনিয়নের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন বলে তিনি স্বীকার করেন। সংবাদ সম্মেলনে চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও শিক্ষক নের্তৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধু ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি ভাংচুরের আসল রহস্য উৎঘাটনের দাবী জানান। এসময় উপস্থিতি ছিলেন, কলেজের শিক্ষক চন্দন কুমার কবুলসী, মহমায়া মিত্র, বিষ্ণুপদ দাস, মহানন্দ বালা, এনামুল কবির, আবুল খায়ের, ফারুক হোসেন, পরীক্ষিত কুমার, মহিউদ্দিন হাওলাদার সহ অনেকে।

এ ব্যপারে শরণখোলা মাতৃভাষা ডিগ্রী কলেজের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুল হক হায়দার বলেন, ছবি ভাংচুরের বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া করোনা মহামারি কিছুটা কমে আসলে ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দিয়ে পুর্নাঙ্গ অধ্যক্ষ নিয়োগের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

কয়রায় মুজিব বর্ষের ২৫ টি আশ্রয় কেন্দ্রে নারিকেলের চারা বিতরণ

কয়রা প্রতিনিধি

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট সরেজমিন গবেষণা বিভাগ গোপালগঞ্জ জেলায় বিএআরআই এর কৃষি গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন ও দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের পরিবেশ –প্রতিবেশ উপযোগী গবেষণা কার্যক্রম জোরদার করনের মাধ্যমে কৃষি উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের অর্থায়নে কয়রায় মুজিব শতবর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ২৫ টি গৃহহীন পরিবারে নারিকেলের চারা বিতরণ করেছেন। শনিবার সকাল ১১ টায় উপজেলার আমাদী ইউনিয়নের নাকশা ও শ্রীরামপুর গ্রামে সরকারের খাস জমিতে সদ্য নির্মিত  গৃহহীন পরিবারের ঘরের আশেপাশে ১০০ টি নারিকেলের চারা রোপন করা হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট সরেজমিন গবেষণা বিভাগ খুলনার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. হারুনর রশিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনিমেষ বিশ^াস, কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ অদ্রিশ আদিত্য মন্ডল, বৈজ্ঞানিক সহকারি জাহিদ হাসান, কয়রা প্রেস ক্লাবের কোষাধাক্য সাংবাদিক শাহজাহান সিরাজ, স্থানীয় ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমানসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, উক্ত নারিকেলের চারা রোপন ও তার রক্ষণাবেক্ষণ করবেন সরেজমিন গবেষণা বিভাগ এমএলটি সাইট কয়রা। এছাড়া কয়রায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে পাওয়া সকল গৃহহীন পরিবারের ঘরের আশে পাশে নারিকেল সহ বিভিন্ন জাতের চারা রোপন এবং শাকসবজি চাষের জন্য সার্বিক সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. হারুনর রশিদ। এ বিষয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ^াস জানান, সদ্য পাওয়া এসব ঘরের মালিকদের সরকারের এই করোনাকালীন সময়ে যে সব সুযোগ সুবিধা পাওয়া যাবে তা এসব গৃহহীন পরিবারের অগ্রাধিকার থাকবে। তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে উপজেলার সকল ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারে ভূমি ও গৃহ নির্মাণ করা হবে এবং এ জন্য সরকারের নির্দেশনা আছে।

কলারোয়া হাসপাতালে এবার ২২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে আরো ৫ ব্যক্তির করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জন মহিলা, ২ জন পুরুষ। শতকরা শনাক্তের হার ২৩ ভাগ।

শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে র‌্যাপিড এন্টিজেন কিটস দিয়ে ২২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫ ব্যক্তির করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার জিয়াউর রহমান নিশ্চিত করেন।

আক্রান্ত ৫ ব্যক্তি হলেন, উপজেলার ঝাঁপাঘাট গ্রামের জহুরা খাতুন (৪৫), যশোর-ঝিকরগাছা’র দেউলি গ্রামের জেসমিন নাহার (৩৫), পৌর সভার মিজানুর রহমান (৩৯), রুদ্রপুরের আব্দুর রশিদ (৬০) ও একই গ্রামের রাশেদা খাতুন (৫৩)। আক্রান্তদের বাড়িতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে লকডাউনের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা যায়।

ছুটি শেষে বেনাপোল বন্দর দিয়ে শুরু হয়েছে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য

বেনাপোল প্রতিনিধি

টানা চারদিন ঈদের ছুটি শেষে শনিবার সকাল থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে শুরু হয়েছে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য। গত মংগলবার থেকে শুক্রবার ৪দিন ঈদের ছুটিতে বন্ধ ছিল আমদানি রফতানি বানিজ্য। সকাল থেকে বিকেলে পর্যন্ত ১৭৫ ট্রাক পন্য আমদানি হয়েছে আর বাংলাদেশ থেকে  ৩০ ট্রাক পণ্য রফতানি হয়েছে। আমদানি পন্য দ্রুত বন্দরে আনলোডের জন্য ২ হাজার শ্রমিক বন্দরে যোগ দিয়েছে। বেনাপোল বন্দরের পরিচালক আব্দুল জলিল বলেন, ঈদের ছুটিতে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমাদনি রফতানি বন্ধ থাকলেও শুধুমাত্র অক্সিজেন ছাড়া অন্য কোন পণ্য আমদানি হয়নি। ছুটি শেষে আজ শনিবার থেকে পুনরায়  শুরু হয়েছে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বানিজ্য। বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন। বন্দর থেকে ব্যবসায়ীরা যাতে দ্রুত পন্য খালাশ করতে পারেন সেজন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট সকলকে ।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, ঈদের ছুটিতে জরুরি অক্সিজেন ছাড়া অন্য কোন পন্য আমদানি হয়নি। শনিবার সকাল থেকে পুনরায় শুরু হয়েছে আমদানি রফতানি বানিজ্য। কাস্টমস খোলা রয়েছে। অধিকাংশ কর্মকর্তা কর্মচ্রাীরা কাজে যোগদান করেছে। করোনাকালীন সময়ে অর্থনীতি সচল রাখতেস্বাস্থ্যবিধি মেনে বন্ধের দিনও কাস্টমস হাউজ খোলা রাখা হয়।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে প্রায় ৪৫০-৫০০শ ট্রাক পন্য আমদানি হয় প্রতিদিন। প্রতিদিন বাংলাদেশ থেকে ২০০ থেকে ২৫০ ট্রাক পন্য রফতানি হয় ভারতে। প্রতিদিনি সরকারের রাজস্ব আয় হয় ২০ থেকে ৩০ কোটি টাকা।

নড়াইলে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত-১

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইলে সড়ক দূর্ঘটনায় ইশতিয়াক মোহাম্মদ আজিজ ওরফে নিপূন (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।নিহত নিপূন জেলার লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল গ্রামের শেখ আজিজুল হক আজিজের ছেলে।তিনি বর্তমানে শহরের ভাদুলীডাঙ্গা এলাকায় মা যমুনা আহম্মেদকে নিয়ে বসবাস করতেন।শনিবার ভোর ৬টার দিকে খুলনা গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে নড়াইল-গোবরা সড়কের কাড়ারবিল এলাকায় ইশতিয়াক মোহাম্মদ আজিজ ওরফে নিপূনের মোটরসাইকেলের সঙ্গে অপর একটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে গুরুতর আহত হন নিপূন।স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করে।অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনায় রেফার্ড করা হয়।

নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবীর জানান,সড়ক দূর্ঘটনায় আহত নিপূন শনিবার ভোরে মারা গেছেন।দূর্ঘটনার কারণ পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

কোস্ট গার্ডের অভিযানে হরিণের মাথা ১২ কেজি হরিণের মাংসসহ শিকারী আটক

স্টাফ রিপোর্টার

গত ২৩ জুলাই ২০২১ আনুমানিক ১৬০০ ঘটিকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের বিসিজি আউটপোস্ট নলিয়ান এর একটি টহল দল খুলনা জেলার দাকোপ থানাধীন নলিয়ান এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ০১ টি হরিণের মাথা, ১২ কেজি হরিণের মাংস এবং ০১ জন হরিণ শিকারীকে আটক করে। আটককৃত ব্যাক্তির নাম মোঃ আক্তার (৩০), পিতাঃ বকস গাজী, গ্রামঃ নলিয়ান, থানাঃ দাকোপ, জেলাঃ খুলনা।  জানা যায় আটককৃত হরিণ শিকারীর মতই কিছু অসাধু ব্যক্তিরা তাদের নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য বিভিন্ন ভাবে এ সকল অবৈধ কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে যার কারণে সুন্দরবনের প্রাণীজ সম্পদ বিলুপ্তির মুখোমুখি। জব্দকৃত অবৈধ হরিণের মাংস এবং আটককৃত হরিণ শিকারীকে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নলিয়ান ফরেস্ট অফিসে হস্তান্তর করা হয়েছে। কোস্ট গার্ড এর আওতাভুক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ, জননিরাপত্তার পাশাপাশি ডাকাতি দমন, অবৈধ অনুপ্রবেশ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রনসহ চোরাচালান রোধে কোস্ট গার্ডের জিরো টলারে›স নীতি অবল¤¦ন করে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

দাকোপে ফের পাউবোর জায়গা দখলের অভিযোগ

মোঃ জাহিদুর রহমান সোহাগ দাকোপ

খুলনার দাকোপে জয়নগর ও কালিনগর বাজার এলাকায় ফের পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জায়গা দখল করে দোকান ঘরসহ বিভিন্ন স্থাপনা নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওয়াপদা বেড়িবাঁধ নির্মানের সময়ে অবকাঠামো পুনর্বাসনে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার পরও পুনরায় এ দখল প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছেন দখলদাররা।

সরেজমিনে জানা গেছে, পাউবোর অধিনে উপজেলার ৩২ ও ৩৩ নম্বর পোল্ডারে বিশ^ ব্যাংকের অর্থায়নে উপকূলীয় বাঁধ উন্নয়ন প্রকল্প ফেজ-১ (সিইআইপি-১) আওতায় ওয়াপদা বেড়িবাঁধ নির্মান কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এসময়ে অবৈধ দখলদাররা অবকাঠামো পুনর্বাসনে ক্ষতিপূরণের টাকা উত্তোলন করে স্থাপনা সরিয়ে নেন। কিন্তু কয়েক মাস যেতে না যেতেই সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে আবার বাঁধের পাশে (পজেশন) দখল করে নতুন দোকান ঘরসহ বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মানে মেতে উঠেছে ওই দখলদাররা।

জয়নগর এলাকার ইয়াদুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান হাফিজ জানান, নতুন ওয়াপদা বেড়িবাঁধ নির্মানের সময়ে পাশে যতো দোকানসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা দখলদার ছিলো তাদের প্রত্যেকে আর কখনো ওই জায়গা দখল করবে না মর্মে ষ্ট্যাম্পে অঙ্গিকার নামা দিয়ে জেলা প্রশাসকের জমি অধিগ্রহন শাখা থেকে ক্ষতিপূরন বাবদ মোটা অংকের টাকা উত্তোলন করে। কিন্তু জয়নগর এলাকায় বেড়িবাঁধ নির্মান কাজ শেষ হওয়ার পর পূনরায় আবার বাবুল মোড়লসহ বেশ কয়েকজন ওই জায়গা জোর পূর্বক দখল করে দোকান ঘরসহ বিভিন্ন স্থাপনা নির্মান করছে। কালিনগর বাজার এলাকায়ও একই অবস্থা বিরাজমান। এবিষয়ে নিয়ে আগে একবার পাউবোর কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাইনি বলে তাঁরা জানান।

জয়নগর বাজারের বাবুল মোড়ল বলেন তিনি যে দোকান ঘরে ব্যবসা করেন তা অন্য স্থানে সরিয়ে নেওয়া যায়। অসুবিধা হলে তিনি ঘর সরিয়ে নিবেন। তা ছাড়া এখানে জয়নগর এলাকার আব্দুল কাদের সানার পজেশন ছিলো। তিনি তাকে অনুমতি দিয়েছেন বিধায় ওই জায়গায় বসছেন। এবিষয়ে আব্দুল কাদের সানা অস্বিকার করে জানান, তিনি ক্ষতিপূরনের টাকা পেয়েছেন। কে কোথায় দখল করছে তাঁর জানা নেই।

এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল আলম বলেন, গত বছর জুন মাসে বেড়িবাঁধ নির্মানধিন এলাকায় মাইকিং করে বাঁধে পূনরায় অবকাঠামো বা স্থাপনা নির্মান না করা এবং নির্মানধিন সকল অবকাঠামো অপসারণের জন্য ঘোষনা করা হয়েছিলো। কিন্তু মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে মন্ত্রনালয় থেকে উচ্ছেদ অভিযান স্থগিত আছে। পরবর্তী নির্দেশ পেলে অভিযান চালিয়ে সকল অবৈধ স্থাপনা বা দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিন্টু বিশ^াস বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা তো পাউবোর লোকজন দেখভাল করবে। তারপরও তিনি তাদের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

অসহায় মানুষদের পাশে থাকাটাই এই দুর্যোগকালে আমাদের বড় কর্তব্য: সালাম মূর্শেদী

রূপসা প্রতিনিধিঃ 

খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূশের্দী বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের পাশে আছে। এই করোনা মহামারিতে অসহায় কর্মহীনদের মাঝে সহায়তা ও খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে।

তিনি আর ও বলেন, অভাবী মানুষদের পাশে থাকাটাই এই দুর্যোগকালে আমাদের বড় কর্তব্য’। এবারে করোনা মহামারী শুরুর পর থেকেই মানুষকে সচেতন করা, অর্থ সংকটে থাকা মানুষকে সহায়তা করে যাচ্ছি।  শুধু হত দরিদ্ররাই নয়, যারা নিম্ন মধ্যবিত্ত, বিপদে থাকলেও মানুষের কাছে চাইতে পারেন না, এমন মানুষদের পাশেও আমি থাকার চেষ্টা করছি।

 সালাম মূশের্দী সেবা সংঘের  আয়োজনে  আজ শনিবার বেলা ১১টায়  রূপসা উপজেলার পূর্ব রূপসা বাজার এলাকায় মাক্স বিতরণ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।  জেলা আ’লীগের সদস্য অধ্যক্ষ ফ ম আব্দুস সালাম এর সভাপতিত্বে বিশেষ অথিতি হিসেবে বক্তৃতা করেন থানা অফিসার ইনচার্জ সরদার মোশাররফ হোসেন, বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব মিস্টার বাংলাদেশ  আজাদ আবুল কালাম,

উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি  আরিফুর রহমান মোল্লা,কোষাধ্যক্ষ সেলিম মোল্লা, জেলা মহিলালীগের রিনা পারভীন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক,  ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বুলবুল, উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আকতার ফারুক, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগে সভাপতি রুহুল আমিন রবি, আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদ শেখ,  উপজেলা যুবমহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শারমিন সুলতানা রুনা,  এমপির প্রতিনিধি  আজমল ফকির, সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘের টিম লিডার ও যুবলীগ নেতা শামসুল আলম বাবু, হারুন শেখ, মামুন শেখ,শ্রমীক নেতা হারূন মোল্লা,সাইফুল ইসলাম,সেবা সংঘের তরিকুল ইসলাম,খলিল, জাহিদুল, হৃদয়,প্রিন্স, আরাফাত,রাসেল,সোহেল,এস এম রিয়াজ,সজল,  ইমন,নোমান প্রমূখ।

কিংবদন্তী গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে ওয়ার্কার্স পার্টির গভীর শোক ও সমবেদনা

খবর বিজ্ঞপ্তি

কিংবদন্তী গণসংগীত শিল্পী, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দযোদ্ধা, একুশে পদক জয়ী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিল্পবী ছাত্র ইউনিয়নের (ষাটের দশকের) সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা ফকির আলমগীর (৭১) রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল ২৩ জুলাই শুক্রবার রাত ১০:৫৬টায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র, আত্মীয়-স্বজনসহ লাখ ভক্ত ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। এই গুণী শিল্পীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, খুলনা জেলা ও মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ বিবৃতি প্রদান করেছেন। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে গণসংগীতের যে শূন্যতা সৃষ্টি হলো তা পূরণ হবার নয়। বিবৃতিদাতারা হলেনÑওয়ার্কার্স পার্টি খুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, মহানগর সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল ইসলাম, জেলা ও মহানগর সম্পাদকম-লীর সদস্য কমরেড দেলোয়ার উদ্দিন দিলু, কমরেড গৌরাঙ্গ প্রসাদ রায়, কমরেড শেখ মিজানুর রহমান, কমরেড মনির আহমেদ, কমরেড খলিলুর রহমান, কমরেড আব্দুস সাত্তার মোল্লা, কমরেড নারায়ণ সাহা, কমরেড আমিরুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য শেখ সাহিদুর রহমান, কমরেড মনিরুজ্জামান, কমরেড সন্দীপন রায়, কমরেড রেজাউল করিম খোকন, কমরেড আঃ হামিদ মোড়ল, কমরেড কৌশিক দে বাপী, কমরেড মোঃ আলাউদ্দিন, কমরেড মনির হোসেন, কমরেড বাবুল আখতার, কমরেড আরিফুর রহমান বিপ্লব, কমরেড অজয় দে, কমরেড এড. কামরুল হোসেন জোয়ার্দ্দার, কমরেড হাফিজুর রহমান, কমরেড গৌরী ম-ল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

খুলনা জেলা ছাপাখানা শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের শোক প্রকাশ

খবর বিজ্ঞপ্তি

ইলেকট্রিক মিস্ত্রি মোঃ নাছির উদ্দিনের মামা কাজী মোস্তাফিজুর রহমান (৭৫) গতকাল শনিবার তার নিজ বাসভবনে বিকাল তিন ঘটিকার সময় বাদ্ধক্য জনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ……. রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি গুণগ্রাহী স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে যান। মোঃ নাছির উদ্দিনের মৃত্যুতে খুলনা জেলা ছাপাখানা শ্রমিক ইউনিয়ন-২১৫১ এর প্রধান উপদেষ্টা মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, খুলনা জেলা ছাপাখানা শ্রমিক ইউনিয়ন-২১৫১ সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান, খুলনা জেলা ছাপাখানা শ্রমিক ইউনিয়ন-২১৫১ সাধারণ সম্পাদক এস এম শামীমুর আলম মান্দার, মোঃ রিয়াজুল আলম পান্নু, মোঃ মোতিয়ার রহমান, মোঃ হারুণ অর রশিদ, মোঃ মহিদুল ইসলাম, মোঃ ইব্রাহিম সিকদার, মোঃ মেহেদী হাসান, মোঃ ছানাউল, মোঃ লালমিয়া লালু, মোঃ মুযাহিদ, তাপস, মোঃ মিলন, মোঃ মনিরুজ্জামান, মোঃ আযগার আলী, মোঃ আজিজুল হক সহ ছাপাখানা শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করেন।

ভারতীয় রেলের এক্সপ্রেস কন্টিনারে অক্সিজেন আসছে দেশে

স্টাফ রিপোর্টার

প্রথমবারেরমতো ভারতীয় রেলওয়ের অক্সিজেন এক্সপ্রেস ১০টি কন্টেইনারে ২০০ এমটি তরল মেডিকেল অক্সিজেন(এলএমও) পরিবহণ করবে বাংলাদেশে। যা আজ সকালে বেনাপোল বন্দরে পৌছাবে। নয়াদিল্লি ইনফরমেশন ব্যুরো বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এক বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ২০২১ সালের ২৪ এপ্রিলভারতে এই বিশেষ ট্রেন পরিষেবা শুরু করার পর থেকে এই প্রথম প্রতিবেশী দেশটিতে অক্সিজেন এক্সপ্রেস চালু হলো। এ পর্যন্ত, ভারতের অভ্যন্তরে এই ধরণের ৪৮০টি অক্সিজেন এক্সপ্রেস চালু করা হয়েছিল। ২৪ জুলাই ২০২১ তারিখে টাটা দক্ষিণ পূর্ব রেলওয়ের অধীনে চক্রধরপুর বিভাগের কাছে বাংলাদেশের বেনাপোলে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিকেল অক্সিজেন পরিবহণের চাহিদা জানায়। এই চালানটি বাংলাদেশের তরল মেডিকেল অক্সিজেনের প্রয়োজনীয় মজুদ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করবে। যা আগামীকাল সকালে বেনাপোল বন্দরে পৌছাবে। শনিবার সকাল ৯টা২৫ মিনিটে ১০টি কনটেইনাওে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিকেল অক্সিজেন লোডিং সম্পন্ন হয়েছে। এই অক্সিজেন বাংলাদেশে পৌঁছানো হবে এবং দেশের চলমান কোভিড তরঙ্গ মোকাবিলায় আমাদের অংশীদারদের সমর্থন করার জন্য দেশের হাসপাতালগুলিতে সরবরাহ করা হবে। ভারত তার মহামারী পরিস্থিতি উন্নয়নের সাথে সাথে প্রতিবেশীদের মধ্যে নিকটতম অংশীদারদের সাথে চিকিৎসা সরবরাহ ভাগ কওে নেওয়ায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

পুকুর থেকে ক্যাডেট কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

যশোর প্রতিনিধি

যশোর পৌরপার্কের পুকুরে ডুবে যাওয়া ক্যাডেট কলেজের ছাত্র ফারহান তানভীর শুভর (১৮) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নৌবাহিনীর ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়। যশোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা আজিজুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এদিকে, যশোর শহরের আরবপুর এলাকায় নিহতের বাসায় গিয়ে জানা যায়, ভোরেই শুভর মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাদের পাশের বাসার বিএএফ শাহিন কলেজের শিক্ষক ড. মোহাম্মদ আবু তাহের জানান, মরদেহ তাদের গ্রামের বাড়ি রঘুনাথপুরে নেওয়া হয়েছে। সেখানেই দাফন হবে। প্রসঙ্গত, শুক্রবার বিকালে যশোর পৌরপার্কের পুকুরে গোসলে নেমে তলিয়ে যান ফারহান তানভীর শুভ। রাত ৮টা পর্যন্ত দমকল বাহিনীর ডুবুরি দল অভিযান চালিয়েও মরদেহ উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়ে অভিযান স্থগিত করে।

শুভর বাবা আকরাম যশোর বিমান বাহিনীতে কর্মরত। শুভ ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।

খুলনায় নিত্যপণ্যের দাম সহনীয়, দাম বেড়েছে কাঁচা মরিচের

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনায় নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে থাকলেও দাম বেড়েছে কাঁচা মরিচের। এছাড়াও কেজি প্রতি চালের দাম বেড়েছে ২-৩ টাকা। শনিবার (২৪ জুলাই) খুলনার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কাঁচা মরিচের মূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি কাঁচা সবজির দামও কিছুটা বেড়েছে। খুলনার জোড়াকল বাজারে গিয়ে দেখা যায়, প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকায়, বেগুন ২০-৪০ টাকা, ঝিঙে ৩০ টাকা, কুশি ৪০ টাকা, পটল ২০ টাকা, কুমড়া ৩০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, শসা ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ বাজারের সবজি বিক্রেতা বাদশা, আইয়ুব আলী, রমজান বলেন, ‘ঈদের পর বাজারে সবজির সরবরাহ একটু কম রয়েছে। তাছাড়া লকডাউনের কারণেও পণ্য কম এসেছে। ২-৩ দিনের মধ্যে এ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে।’ মুরগি বিক্রেতা লিপু ও মনির বলেন, ‘ব্রয়লার প্রতি কেজি ১৩০ টাকা, লেয়ার ১৬০ টাকা, কক ১৮০ টাকা দরে ঈদের আগে থেকে বিক্রি হচ্ছে। দাম আরও কমতে পারে।’

বাজারে ডিম বিক্রেতা রফিক বলেন, ‘ডিমের দামও গত সপ্তাহের মত রয়েছে। প্রতি হালি ডিমের দাম ২৮ থেকে ৩২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।’

জোড়াকল বাজারের চাল বিক্রেতা আতাহার আলী, আবু বক্কর, বাদশা মিয়া বলেন, ‘ঈদের আগে থেকেই চালের দাম একটু বাড়তির দিকে। প্রতি কেজি চালের দাম মিনিকেট ৬৫-৭০ টাকা, সিদ্ধ চাল ৪৮-৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

খুলনার তিন হাসপাতালে ৮ জনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনার তিন হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও আট জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২৪ জুলাই) পৃথকভাবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর মধ্যে খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে ছয়জন, শহীদ শেখ আবু নাসের হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজন ও গাজী মেডিকেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ও বেসরকারি সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত একদিনে কোন রোগীর মৃত্যু হয়নি।

খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের ফোকালপারসন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার বলেন, ‘হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন- খুলনার রূপসার সুকুরুন্নেছা (৭২), বাগেরহাটের মোল্লাহাটের ঝর্ণা (৪৫), ফকিরহাটের লকপুরের সাবিনা খাতুন (৩৬), রামপালের এনামুল হাসান (৪৭), যশোরের কেশবপুরের রেখা রানী ঘোষ (৬৫) ও পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার মোর্শেদা বেগম (৬০)।

এ হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১১৭ জন। এর মধ্যে রেড জোনে ৪১ জন, ইয়েলো জোনে ৪৫ জন এবং আইসিইউতে ২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ছয়জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন চারজন।

খুলনার শহীদ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডা. প্রকাশ দেবনাথ। মৃত ব্যক্তি হলেন- নগরীর বসুপাড়া মেইন রোডের আফরোজা বেগম (৬০)। এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন ৪৩ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে রয়েছে ১০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন তিনজন আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন চারজন।

খুলনা জেনারেল হাসপাতালের ৮০ শয্যার করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। এখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৪ জন। এর মধ্যে ১৮ জন পুরুষ ও ১৬ জন মহিলা। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন একজন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন পাঁচজন।

সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। বেসরকারি এ হাসপাতালটির ৮৭ শয্যার করোনা ইউনিটে ৬৬ জন ভর্তি রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ১২ জন আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন চারজন।

গাজী মেডিকেল হাসপাতালের সত্ত্বাধিকারী ডা. গাজী মিজানুর রহমান বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তি হলেন- নগরীর দৌলতপুর খান এ সবুর রোডের জালাল উদ্দিন মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর (৬৬)। বেসরকারি এ হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ২০ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ জন।

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম স্থগিত

ঢাকা অফিস

২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম আবারও স্থগিত করা হয়েছে। শনিবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনের কারণে অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম স্থগিত থাকবে।

এর আগে গত ১৪ জুলাই পর্যন্ত ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছিল। লকডাউনের কারণে ১ জুলাই থেকে এ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়।

দেশে পৌঁছাল জাপানের দেওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা

ঢাকা অফিস

বাংলাদেশের জন্য জাপানের উপহার হিসেবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকা ঢাকায় পৌঁছেছে। আজ শনিবার বিকেল ৩টা ১৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এই টিকার চালান পৌঁছায়।

টিকার চালান দেশের আসার পর বিমানবন্দরে তা গ্রহণ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন ও ঢাকায় নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি টিকা। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা খুবই আনন্দিত যে আমাদের বন্ধুপ্রতীম দেশ জাপান ২ লাখ ৪৫ হাজার অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দিচ্ছে। আর আগামী শুক্রবার এর দ্বিগুণের বেশি দেবে। সর্বমোট তারা ৩০ লাখের বেশি টিকা দেবে। আগে বলেছিল ২৯ লাখ দেবে। তারপর আরও দেড় লাখের মতো যোগ হয়েছে। এ জন্য আমরা জাপান সরকারকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।’

জাপান বাংলাদেশকে কয়েক ধাপে ২৯ লাখ অক্সফোর্ড আ্যস্ট্রাজেনেকার টিকা দেবে। আজ এই টিকার প্রথম চালান দেশে পৌঁছাল। করোনা টিকার বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের আওতায় জাপান বাংলাদেশকে এ টিকা দিচ্ছে জাপান। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন্স অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন্স- গ্যাভির সমন্বয়ে গড়ে ওঠা বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন্স গ্লোবাল অ্যাকসেস ফ্যাসিলিটি (কোভ্যাক্স)। কোভ্যাক্স থেকে আগে বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশকে টিকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল।

এ হিসাবে বাংলাদেশের ৬ কোটি ৮০ লাখ ডোজ পাওয়ার কথা। কোভ্যাক্সে দুইভাবে টিকা সংগ্রহ করা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন ধনী দেশ তাদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কোভ্যাক্সকে টিকা কিনে দেয় অথবা টিকা কেনার টাকা পরিশোধ করে।

এডভোকেট কামাল হোসেনের বোনের ইন্তেকাল

ফুলবাড়ীগেট ( খুলনা) প্রতিনিধি

এডভোকেট কামাল হোসেনের চাচাতো বোন গোয়ালখালী রাসেল ভলকানাইজিং এর স্বত্বাধিকারী মোঃ আবু বক্কর এর স্ত্রী সুফিয়া বেগম ২৪ জুলাই শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন।( ইন্নালি¬হি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। শনিবার আসরবাদ  গোয়ালখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।  তিনি এক ছেলে , এক মেয়ে সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গিলাতলা প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের ১ম রাউন্ডের ২য় খেলা অনুষ্ঠিত

ফুলবাড়ীগেট প্রতিনিধি

গিলাতলা প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের ১ম রাউন্ডের ২য় খেলা ২৪ জুলাই শনিবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় প্রয়াত গাজী শহিদুল্লাহ’র মিল সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত হয় । ২য়  খেলায় গিলাতলা রিপন  একাদশ ও রুবেল একাদশ একে অপরের মুখোমুখি হয়ে খেলার প্রথমার্ধে রুবেল একাদশ ২ – ০   গোলে এগিয়ে থাকলেও বিরতির পর রিপন একাদশ ২ টি গোল করে । শেষমেষ ২-২ গোলে ম্যাচটি ড্র হয় । রুবেল  একাদশের রুবেল ও আলামিন   এবং রিপন একাদশের রিপন ও অমিত ১ টি  কওে  গোল করেন । রিপন  একাদশের অমিত সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয় । টুর্নামেন্টের ৩ য় খেলা আজ শনিবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় একই মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। খেলার ম্যাচ রেফারি ছিলেন মোঃ এনায়েত খান ।

সিপিবি নেতা কমরেড অবণী বিশ্বাসের অকাল মৃত্যুতে বাম জোটের গভীর শোক ও সমবেদনা

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র খুলনা নগর সম্পাদকম-লীর সাবেক সদস্য ও ২৪নং ওয়ার্ড শাখার সাবেক সম্পাদক সিপিবি নেতা কমরেড অবণী বিশ্বাস (৪৭) টাইফয়েডে আক্রান্ত হয়ে গত ২২ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑবাম গণতান্ত্রিক জোট ও গণসংহতি আন্দোলন, খুলনা জেলা সমন্বয়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় সদস্য ও খুলনা জেলা সভাপতি ডাঃ মনোজ দাশ, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এ রশীদ, জেলা সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. এম এম রুহুল আমিন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলÑবাসদ, খুলনা জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টু, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় সদস্য ও খুলনা জেলা সভাপতি মোজাম্মেল হক খান, সাধারণ সম্পাদক গাজী নওশের আলী, বাংলাদেশের ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সমরেশ রায়, সিপিবি খুলনা মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদাৎ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মোঃ বাবুল হাওলাদার, ইউসিএলবি জেলা সম্পাদকম-লীর সদস্য মোস্তফা খালিদ খসরু, কাজী দেলোয়ার হোসেন, আনিসুর রহমান মিঠু, গণসংহতি আন্দোলন, খুলনা জেলা সদস্য সচিব মারুফ গাজী, বাসদ খুলনা জেলা সদস্য আব্দুল করিম, কোহিনুর আক্তার কণা প্রমুখ।

কলারোয়ায় কঠোর লকডাউনে’র ২য় দিন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি :

কলারোয়ায় কঠোর লকডাউনের দ্বিতীয় দিন বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সেনাবাহিনী। পৌর সদরসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতে ৩টি মামলায় ২ হাজার ৮শত টাকা জরিমানা করা হয়। কঠোর বিধিনিষেধ সফল করতে শনিবার (২৪ জুলাই) বিভিন্ন স্থান পরিদর্শনকালে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নবাগত উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল আমীন। পৌর সদরের যুগিবাড়ি, কাজীরহাটসহ বিভিন্ন স্থানে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করার অপরাধে কয়েকজনকে মোবাইল কোর্টে ২ হাজার ৮শত টাকা জরিমানা করা হয়। আদালত পরিচালনায় সহযোগীতা করেন বেঞ্চ সহকারী প্রনব কুমার সরকারসহ সেনাবহিনী,পুলিশ ও ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্যবৃন্দ।

এ দিকে লকডাউনে সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩ টা পর্যন্ত পৌর সদরসহ বিভিন্ন বাজারে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কাঁচা বাজার, মাছের বাজার ও ফলের দোকান খোলা থাকলেও পরবর্তী সময়ে বন্ধ থাকতে দেখা গেছে। তবে নির্দেশিত সময়ে কয়েকটি মুদি দোকান, হোটেল, মিষ্টির দোকান, চায়ের দোকানের অংশিক অংশ খোলা থাকতে দেখা যায়।

এ দিকে, বস্ত্র বিপনী, পাদুকা ভবন, গার্মেন্টস, জুয়েলার্সের দোকানসহ অনান্য সকল ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ছিলো বন্ধ। কলারোয়া মহাসড়ক ও অভ্যন্তরীন সড়কে অল্প সংখ্যক নসিমন, করিমন, ট্রলি, ইঞ্জিন ভ্যান,ইজি বাইক, মহেন্দ্র গাড়ি চলতে দেখা গেলেও গণপরিবহন চলতে দেখা যায়নি। হাট-বাজার ও গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশের উপস্থিতি তেমন লক্ষণীয় নই, বলে স্থানীয়রা জানাই।

উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল আমীন’র নেতৃত্বে বিভিন্ন স্থান পরিদর্শনকালে জনসচেতনতায় তিনি বিনা প্রয়োজনে কাউকে বাইরে বের না হওয়ার আহবান জানিয়ে সকলকে মাস্ক পরিধানসহ সকল সরকারি বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।


Post Views:
1



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102