বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া যতন সাহা হত্যাকাণ্ড ভিডিওটি মিথ্যা ও গুজব : পুলিশ এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাইয়ের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী বৃহস্পতিবার আপডেট পেলো স্যামসাং ফটো এডিটর অ্যাপ রহমতের নবী (সঃ) এর জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাল এসি মিলান – স্পোর্টস প্রতিদিন ডিম, মুরগি ও বাচ্চার আজকের (১৯ অক্টোবর) বাজারদর | Adhunik Krishi Khamar পায়ুপথে বেরিয়ে এলো ২০০০ ইয়াবা! সাকিব, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহকে সাদা জার্সি পরে নামার অনুরোধ করলো সমর্থকরা বাংলাদেশ বিমান বাহিনী অফিসার্স ক্লাব এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন দুদ‌কের মামলায় খুমেক হাসপাতালের সাবেক হিসাব রক্ষকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ‌ লক্ষ্মী পূঁজা উপলক্ষে গোপালগঞ্জে প্রতিমার হাট

কলার সিগাটোকা ও পানামা রোগ দমন ব্যবস্থাপনা | Adhunik Krishi Khamar

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১
  • ১৮
কলার সিগাটোকা ও পানামা রোগ দমন ব্যবস্থাপনা | Adhunik Krishi Khamar


কলার সিগাটোকা ও পানামা রোগ দমন ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে কলা চাষিদের ভালোভাবে জেনে রাখা দরকার। লাভজনক হওয়ার কারণে আমাদের দেশের অনেক কৃষক কলার চাষ করে থাকেন। কলা চাষ করার সময় রোগ দমনের সঠিক ব্যবস্থাপনা না জানার কারণে অনেকেই লোকসান করে থাকেন। আজকের এ লেখায় কলার সিগাটোকা ও পানামা রোগ দমন ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে-

কলার সিগাটোকা ও পানামা রোগ দমন ব্যবস্থাপনাঃ


সিগাটোকা রোগঃ


কলার গাছে সিগাটোকা রোগের আক্রমণ হলে ফলন কমে যায়। এছাড়া এ রোগ দমন না করতে পারলে পুরো বাগানই ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যায়। সঠিক পদক্ষেপ জরুরি।

রোগের লক্ষণঃ


এ রোগের আক্রমনে প্রাথমিকভাবে ৩য় বা ৪র্থ পাতায় ছোট ছোট হলুদ দাগ দেখা যায়। ধীরে ধীরে দাগগুলো বড় হয়ে বাদামি রঙ ধারণ করে।

রোগের প্রতিকারঃ


আক্রান্ত গাচের পাতা পুড়ে ফেলতে হয়। প্রতি লিটার পানিতে ০.৫ মি.লি টিল্ট ২৫০ ইসি অথবা ১ গ্রাম বাভিস্টিন মিশিয়ে ১৫ দিন পর পর স্প্রে করা দরকার।

পানামা রোগঃ


এই রোগ কলাচাষির জন্য মারাত্মক সমস্যা। কারণ এ রোগের কারণে কলার উৎপাদন শূন্যের কাছাকাছি আসতে পারে।

লক্ষণঃ


১। পুরনো পাতায় হলুদ বর্ণের দাগ দেখা যায়।

২। পুরনো পাতা ক্রমান্বয়ে সমস্ত অংশ হলুদ হয়ে যায়। পাতার কিনারা ফেটে যায় ও বোঁটা ফেটে যায়। লিফব্লেট ( পাতা) ঝুলে পড়ে ও শুকে যায়।

৩। দুই-তিন দিনের মধ্যে গাছের সব পাতা ঝুলে পড়ে (মধ্যের মাইজ বা হার্ট লিফ ছাড়া)।

৪। কলাগাছের গোড়া মাটির লেভেলের কাছকাছি লম্বালম্বি ফেটে যায়।

৫। আক্রান্ত গাছ থেকে অস্বাভাবিক থোড় বের হয়।

৬। আক্রান্ত গাছ ও রাইজোম উহার ভেতর কালচে বর্ণের দেখা যায়।

রোগ দমনঃ


১। রোগমুক্ত মাঠ থেকে সাকার সংগ্রহ করতে হবে।

২। মাঠ থেকে রোগাক্রান্ত গাছ সংগ্রহ করে পুড়ে ফেলতে হবে।

৩। রোগ প্রতিরোধী জাত ব্যবহার করতে হবে।

৪। রোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার হয় এমন ফসল, যেমন- বেগুন, টমেটো, ঢেঁড়স প্রভৃতির সাথে ফসল চাষ না করা।

৫। দুই-তিন বছর পর ফসল বদল করে শস্য পর্যায় অলম্বন করা।

৬। চুন প্রয়োগ করে মাটির পি-এইচ (PH) বৃদ্ধি করা।

৭। ছত্রাক নাশক প্রয়োগ করতে হবে। এক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে প্রয়োজনীয় কীটনাশকের ব্যবহার করতে হবে।


আরও পড়ুনঃ বারোমাসি লাউয়ের জাত সীতা, ফলন দিবে টানা ১৫ বছর


সূত্রঃ স্বপ্নের খামার নোয়াখালী


কৃষি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি

Recent Posts

সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102