মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:১৭ অপরাহ্ন

সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

  • আপডেট সময় সোমবার, ২ আগস্ট, ২০২১
  • ১২৩
সারা খুলনা অঞ্চলের খবরা খবর

নগরীতে ভোক্তা-অধিকারের বাজার তদারকিতে ২টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর টুটপাড়া এলাকায় বাজার তদারকি কার্যক্রম পরিচালনা করে বিভিন্ন অপরাধে ২টি প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়।  সোমবার (আগস্ট) জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম জরিমানার আদেশ প্রদান করেছেন। 

বাজার তদারকিকালে টুটপাড়ার মেসার্স চয়নিকা ফার্মেসীকে মুল্যবিহীন ঔষধ (স্যাম্পল) মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ বিক্রির অপরাধে ১০ হাজার টাকা অনুমোদন বিহীন ভাবে খাবার পানি বিশুদ্ধকরণ এর অপরাধে ব্লু মিস্ট ওয়াটারকে হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানে  সকলকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুসারে ভোক্তা অধিকার বিরোধী কার্যাবলী হতে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মূল্য তালিকা প্রদর্শন, ক্রয়/বিক্রয় রশিদ সংরক্ষণ করতে অনুরোধ জানানো হয় এবং সচেতন করতে লিফলেট বিতরণ করাসহ মাইকিং করা হয়। তদারকিমূলক অভিযানে সার্বিক সহায়তা করেন এপিবিএন শিরমনি, খুলনা কনজুমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর খুলনা প্রতিনিধি। জনস্বার্থে তদারকি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

কেএমপির অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগর পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকা হতে কেজি ৫০ গ্রাম গাঁজা, ৪০ লিটার দেশীয় তৈরি চোলাই মদ ৩৫ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন নগরীর মুসলমান পাড়া রোডের মোস্তাফিজুর রহমান এর ছেলে আনিছুর রহমান ওরফে পায়েল (২৫), এস/৫৪ খালিশপুরের  মো. মোশারেফ হোসেনের ছেলে মো. আল-আমিন হোসেন (২২), দৌলতপুর ১১/হাজী মহসিন রোডস্থ তুলাপট্টির মৃত. রশিক লাল দে এর ছেলে শিবু পদ দে (৬২), ছোট বয়রা শেরের মোড়ের মৃত. শের আলীর ছেলে  মো. লিয়াকত শেখ (৫০) ডুমুরিয়া থানার বাদুরিয়া রঘুনাথপুর সরদার বাড়ীর সাজ্জাদ আলী সরদার এর ছেলে  মো. তুহিন আলম সরদার (৩১)। 

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. শাহ্ জাহান শেখ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় নগরীর বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। এসময় কেজি ৫০ গ্রাম গাঁজা, ৪০ লিটার দেশীয় তৈরি চোলাই মদ ৩৫ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদের করোনা টিকার ফ্রি নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধন

খবর বিজ্ঞপ্তি

সোমবার সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু পরিষদ খুলনা মহানগর কার্যালয়ে খুলনায় বর্তমানে করোনার প্রকোপ অত্যন্ত ভয়াবহ প্রতিদিন নতুন নতুন শনাক্তসহ মৃত্যুর মিছিল বেড়েই চলছে। এহেন পরিস্থিতিতে খুলনা বাসীকে করোনা টিকা দেওয়ার জন্য কভিড-১৯ টিকা নিশ্চিত করোনের জন্য ফ্রি টিকা নিবন্ধনের মহৎ উদ্দ্যোগ গ্রহণ করেছেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ খুলনা মহানগর নেতৃবৃন্দ। ফ্রি টিকা নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন খুলনা জেলা পরিষদের সদস্য মোল্লা মোঃ মিজানুর রহমান বাবু, অনুষ্ঠানে খুলনা বাসীকে করোনা টিকা নেওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করে ভার্চুয়াল বক্তব্য রাখেন সোনাডাঙ্গা থানা আ’লীগের সহ-সভাপতি পরিষদের খুলনা মহানগর সভাপতি এস এম রাজুল হাসান রাজু, বাংলাদেশ আওয়ামী বঙ্গবন্ধু লীগের কেন্দ্রীয় সিনিঃ সহ-সভাপতি খুলনা নগর সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন মল্লিক, অনুষ্ঠানের সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন পরিষদের মহানগর সাধারন সম্পাদক এম আসাদুজ্জামান মুন্না, আরও উপস্থিত ছিলেন পরিষদের মহানগর সহ-সভাপতি শরিফ এনামুল কবির, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ হাসমত আলী, আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম বাবু, ডাঃ এম বাশার, কবি হাফিজুল ইসলাম, কবি মনিরুজ্জামান লাভলু, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ডা. হাফিজুর রহমান সোহেল, আলীনুর হোসেন মাতুব্বর, খন্দোকার জাহাঙ্গীর আলম, এ্যাড.জিনারুল ইসলাম, মোঃ এনায়েত হোসেন, মোঃ ইউনুছ আলী মোল্লা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মারুফ চৌধুরী রিমন, গাজী রকিব উদ্দিন আহমেদ সোহাগ, মোঃ রেজাউল করিম, মোহাম্মদ নুরউদ্দিন, লিনা পান্ডে(এ্যাঞ্জেলিনা), মোঃ কালাম মোল্লা, কাজী আলী আহাদ, ইঞ্জি. শান্তনু বৈরাগী, নাবিলা ইয়াসমিন, প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলাম, মশিউর রহমান মিলন, শাহীন শরীফ বাবু, বিশ্বজিত মন্ডল, অধ্যা. মোফাজ্জল হোসেন, মোঃ আশিক চৌধুরী, আঃ সালাম সরদার, আঃ জব্বার কমান্ডার প্রমুখ। 

এবার বৃষ্টির মধ্য বাড়ি বাড়ি ঘুরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘ

খবর বিজ্ঞপ্তি ।।

করোনা প্রকোপকালীন সময়ে সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘের উদ্যোগে এবার বৃষ্টির মধ্যে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে রূপসা উপজেলার শ্রীফলতলা ইউনিয়নের চর মোছাব্বাতপুর গ্রামের অসহায় ও দুঃস্থ পরিবারের মাঝে এ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

সময় উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যক্ষ আঃ সালাম, শ্রীফলতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইসহাক সরদার, খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মোঃ মোতালেব হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক স.জাহাঙ্গীর, ইউপি সদস্যা শিরিন আক্তার, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মঈনউদ্দিন, সালাম মুর্শেদী সেবা সংঘের টিম লিডার সামসুল আলম বাবু, ছাত্রলীগ নেতা এসএম রিয়াজ, সাব্বির সাজ্জাদ সাজু, ইমন প্রমূখ। উল্লেখ্য রূপসা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের দুঃস্থ গরীবদের মাঝে সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘের উদ্যোগে করোনাকালীন পরিস্থিতিতে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

অবৈজ্ঞানিক তথাকথিত কঠোর লকডাউন না দিয়ে ৫টি বিষয় নিশ্চিত করুন: ওয়ার্কার্স পার্টি

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, খুলনা জেলা মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ আজ এক বিবৃতিতে বলেন, অবৈজ্ঞানিক তথাকথিত কঠোর লকডাউন না দিয়ে নি¤œবর্ণিত ৫টি বিষয় নিশ্চিত করুনÑযথাক্রমে (১) করোনা ভাইরাসের ফলে কর্মহীন, বেকার দরিদ্র মানুষদেরকে জীবন ধারণের জন্য খাদ্য নিশ্চিত করতে রেশন কার্ড প্রবর্তন নগদ প্রণোদনা প্রদান করা (২) করোন ভাইরাস প্রতিরোধে সকলকে মাস্ক পরতে বাধ্য করা বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ায় উৎসহিত করা (৩) যেকোনো ধরনের জনসম্পৃক্ততায় সামাজিক দূরত্ব বাধ্যতামূলকভাবে নিশ্চিত করা (৪) শহর থেকে গ্রাম সর্বত্র টিকা কর্মসূচি জোরদার করা (৫) গ্রাম-শহরে ব্যাপক র‌্যাপিট এন্টিজেন্ট স্টেট করে সংক্রমিতদের চিহ্নিত করে তার আইস্লোশনের উদ্যোগ গ্রহণ করা।

বিবৃতিদাতারা হলেনÑপার্টির কন্ট্রোল কমিশনের চেয়ারম্যান কমরেড শেখ সাইদুর রহমান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য খুলনা জেলা সভাপতি কমরেড এড. মিনা মিজানুর রহমান, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড আনসার আলী মোল্লা, কেন্দ্রীয় কমিটির বিকল্প সদস্য মহানগর সভাপতি কমরেড শেখ মফিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক কমরেড এস এম ফারুখ-উল ইসলাম, জেলা মহানগর সম্পাদকম-লীর সদস্য যথাক্রমে কমরেড দেলোয়ার উদ্দিন দিলু, কমরেড গৌরাঙ্গ প্রসাদ রায়, কমরেড শেখ মিজানুর রহমান, কমরেড মনির আহমেদ, কমরেড খলিলুর রহমান, কমরেড আব্দুস সাত্তার মোল্লা, কমরেড নারায়ণ সাহা, কমরেড আমিরুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য কমরেড মনিরুজ্জামান, কমরেড সন্দীপন রায়, কমরেড রেজাউল করিম খোকন, কমরেড আঃ হামিদ মোড়ল, কমরেড কৌশিক দে বাপী, কমরেড মোঃ আলাউদ্দিন, কমরেড মনির হোসেন, কমরেড বাবুল আখতার, কমরেড আরিফুর রহমান বিপ্লব, কমরেড অজয় দে, কমরেড এড. কামরুল হোসেন জোয়ার্দ্দার, কমরেড হাফিজুর রহমান, কমরেড গৌরী ম-প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

খুলনা জেলায় করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন সাত হাজার আটশত ১৬ জন

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা জেলায় সোমবার সাত হাজার আটশত ১৬ জন করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। যার মধ্যে পুরুষ চার হাজার দুইশত ৫৩ এবং মহিলা তিন হাজার পাঁচশত ৬৩ জন। পর্যন্ত ৮১ হাজার ছয়শত ৩০ জন করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন। খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় তিন হাজার ছয়শত ৯০ জন এবং নয়টি উপজেলায় মোট চার হাজার একশত ২৬ জন করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করেন। উপজেলাগুলোর মধ্যে দাকোপে চারশত নয় জন, বটিয়াঘাটা একশত ৭৪ জন, দিঘলিয়ায় দুইশত ৮৪ জন, ডুমুরিয়ায় চারশত ৮২ জন, ফুলতলায় তিনশত ৮৮ জন, কয়রায় এক হাজার ২৫ জন, পাইকগাছায় পাঁচশত ৭৪ জন, রূপসায় পাঁচশত ১৮ জন এবং তেরখাদায় দুইশত ৭২ জন টিকা গ্রহণ করেছেন। এছাড়া সোমবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনশত ৪০ জন এবং সদর হাসপাতালে ৯০ জন করোনা ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেন। খুলনা সিভিল সার্জন দপ্তরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসকল তথ্য জানানো হয়েছে।

খুলনা বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ অব্যাহত

তথ্য বিবরণী

 খুলনা বিভাগের ঝিনাইদহ, মাগুরা জেলাসহ বিভিন্ন জেলায় করোনায় কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ করা হয়। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সোমবার এক হাজার ইজিবাইক চালকদের মাঝে জনপ্রতি ১০ কেজি চাল তিনশত টাকা বিতরণ করা হয়। স্থানীয় বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান এসব খাদ্যসামগ্রী নগদ অর্থ বিতরণ করেন। এসময় ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ সেলিম রেজা উপস্থিত ছিলেন। মাগুরা জেলা ত্রাণ পুনর্বাসন দপ্তরের উদ্যোগে একশত উপকারভোগীর মাঝে একশত প্যাকেট শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়। খুলনা বিভাগের অন্যান্য জেলাগুলোতে অনুরূপ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

বাগেরহাটে করোনায় কর্মহীন কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের আর্থিক সহযোগিতা

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটে করোনায় কর্মহীন কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষকদের মাঝে আর্থিক সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার (০২ আগস্ট) বিকেলে ফেসবুক গ্রুপ প্রাণের বাগেরহাটের পক্ষ থেকে বাগেরহাট পৌর শহরের ১১টি কিন্ডারগার্টেনের ৯২ জন শিক্ষকদের মাঝে এই সহায়তা প্রদান করা হয়।  বাগেরহাট শহরের পুরাতন কোর্টস্থ প্রাণের বাগেরহাট কার্যালয়ে সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোছাব্বেরুল ইসলাম। এসময় প্রাণের বাগেরহাটের চীফ এ্যাডমিন শাওন পারভেজসহ উপকারভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।পরবর্তীতে বাগেরহাট শহরের শতাধিক তুলা শ্রমিক ডেকোরেটর শ্রমিকদের মাঝে প্রাণের বাগেরহাটের পক্ষ তেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়ু।

প্রাণের বাগেরহাটের চীফ এ্যাডমিন শাওন পারভেজ বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে প্রথম থেকেই আমরা মানুষের পাশে ছিলাম। সব সময় চেষ্টা করেছি অসহায়দের সাধ্যমত সহযোগিতা করার। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

বাগেরহাটে ৬০৩ জনকে লক্ষ ৯২ হাজার টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটে স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গ এবং লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করায় ৬০৩ জনকে লক্ষ ৯২ হাজার ৬০০ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। ঈদুল আযহার পরে শুরু হওয়া কঠোর লকডাউনের প্রথম দশ দিনে (২৩ জুলাই থেকে ০১ আগস্ট) এসব দন্ডাদেশ প্রদান করা হয়। এই সময়ে ২১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ডাদেশও দিয়েছে আদালত।

বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাহিনুজ্জামান বলেন, করোনা সংক্রমন রোধে জেলা প্রশাসন সব সময় সচেষ্ট রয়েছে। এজন্য আমরা লকডাউনের শর্ত না মানা এবং স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গকারীদেরকে আইনের আওতায় আনছি। গেল দশদিনে বাগেরহাট জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৬০৩ জনকে লক্ষ ৯২ হাজার ৬০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেই সাথে ২১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। এর এই সাজার ফলে অনেক মানুষ সচেতন হবে বলেও জানান তিনি।

বাগেরহাটে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ৭০, মৃত্যু

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটে গেল ২৪ ঘন্টায় ২৯১ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ৭০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। এই সময়ে মারা গেছেন এক জন। এই নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ১২৬জনের। জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন হাজার ৬৯ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন হাজার ৩৫৮ জন। বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি হাসপাতাল বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭১১ জন। সোমবার (০২ আগস্ট) দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এসব তথ্য জানিয়েছেন। ২৪ ঘন্টায় আক্রান্তদের মধ্যে বাগেরহাট সদর উপজেলায় ২৬ জন, শরণখোলায় ১৫, মোল্লাহাটে ১৪, মোংলায় ৫, ফকিরহাটে ৫, কচুয়ায় এবং মোরেলগঞ্জে জন রয়েছে। বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কে এম হুমায়ুন কবির বলেন, বাগেরহাটে গেল ২৪ ঘন্টায় ২৯১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার দাড়িয়েছে ২৪ শতাংশ। এই সময়ে মৃত্যু হয়েছে তিন জনের। এই অবস্থায় বাগেরহাটবাসীকে আরও বেশি সচেতন হওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

বাগেরহাটে দূরারোগ্য ব্যধি ক্যান্সারে নিহতের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা

স্টাফ রিপোটার,বাগেরহাট

বাগেরহাটের কচুয়ায় ১২ দিনের ব্যবধানে নিহত মা-ছেলের হতদরিদ্র পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইসলামী মানব কল্যাণ সংস্থা। সোমবার (০২ আগস্ট) সকালে কচুয়া উপজেলার চরকাঠি গ্রামের বাসিন্দা নিহত উজ্জল শেখে বাবা মোঃ আইয়ুব আলীর তাছে এই আর্থিক সহযোগিতা তুলে দেওয়া হয়। এসময়, ইসলামী মানব কল্যাণ সংস্থার সভাপতি মাওলানা এস এম হুমায়ুন কবির,সহ-সভাপতি মাওলানা ওমর ফারুক, সেক্রেটারি মাওলানা শহিদুল ইসলাম, এছাড়া উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টাম-লীর সদস্য হাফিজুর রহমান মিলন,মোঃ রাসেল শেখ,অর্থ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল, মাওলানা রেদওয়ুানসহ উপকারভোগীরা উপস্থিত ছিলেন। আর্থিক সহযোগিতা পেয়ে খুশি আইয়ুব আলী।

ইসলামী মানব কল্যাণ সংস্থার সভাপতি মাওলানা এস এম হুমায়ুুন কবির বলেন, চরকাঠি গ্রামের আইয়ুব আলীর ছেলে উজ্জল শেখ চট্টগ্রামে পোশাক ফ্যাক্টরীতে কাজ করতেন। কর্মরত অবস্থায় ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে সে মারা যায়। ছেলে মারা যাওয়ার ১২দিনের মাথায় আইয়ুব আলীর স্ত্রী মমতাজ বেগমও চট্টগ্রামে বসে মারা যায়। হতদরিদ্র এই পরিবারটি দুটি মরদেহ চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে আনতে অনেক ধার-দেনা হয়েছে। তাই আমাদের এই সংগঠনের পক্ষ থেকে তার পাশে দাড়িয়েছি। চরকাঠি গ্রামের কিছু স্বচ্ছল যুবক এলাকার দরিদ্রদের সহায়তার জন্য ইসলামী মানব কল্যাণ সংস্থা নামের এই সংগঠন গড়ে তুলেছেন।

পূজা উদযাপন পরিষদের প্রার্থনা সভা

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার অন্যতম কার্যনির্বাহী সদস্য অলোক কুমার কু-ু, তাঁর সহধর্মিনী সন্ধ্যা রানী কু-ু, কন্যা অশ্মি কু-খালিশপুর থানার সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার দত্ত এবং    খুলনা মহানগর মহানগর আওতাধীন ৮টি থানা পূজা উদযাপন পরিষদের যে সকল নেতাকর্মী তাঁদের আত্মীয়-স্বজন করোনা আক্রান্তসহ বিভিন্ন রোগে অসুস্থ হয়ে হাসপাতাল বা বাড়িতে চিকিৎসারত আছেন তাঁদের সুস্থতা, আশু রোগমুক্তি দীর্ঘায়ু কামনা করে সোমবার বিকেল ৫টায় খুলনা আর্য্য ধর্মসভা মন্দির প্রাঙ্গণে এক প্রার্থনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত প্রার্থনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শ্যামল হালদার। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার কু-ুর সঞ্চালনায় প্রার্থনা সভায় মাঙ্গলিক মন্ত্র পাঠ করেন সংগঠনের কার্যনির্বাহী সদস্য বাংলাদেশ ব্রাহ্মণ সংসদ, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ চক্রবর্ত্তী। উক্ত প্রার্থনা সভায় অংশগ্রহণ করেনÑবাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, মহানগর শাখার সহ-সভাপতি এ্যাড. অলোকানন্দা দাস, অধ্যাপক তারক চাঁদ ঢালী, কোষাধ্যক্ষ রতন কুমার নাথ, বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদ, খুলনা মহানগর সভাপতি বিশ্বজিৎ দে মিঠু, সদর থানা পূজা পরিষদের সভাপতি বিকাশ কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব সাহা লব, সোনাডাঙ্গা থানা সাধারণ সম্পাদক রামচন্দ্র পোদ্দার, বিশিষ্ট সাংবাদিক মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য বিমল সাহা, অভিজিৎ পাল প্রবীর বিশ্বাস, বিশিষ্ট ধর্মানুরাগী, সমাজসেবক পূজা পরিষদ সম্পাদকম-লীর সদস্য বাবলু বিশ্বাস, মহাদেব সাহা, তরুণ রায় শিবু, গৌরাঙ্গ সাহা, তাপস কুমার সাহা, সুশান্ত ব্যানার্জী, স্বপন কুমার ম-ল, প্রসীত সাহা, বিবেকানন্দ শিক্ষা সংস্কৃতি পরিষদ, খুলনা শাখার সভাপতি মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য সুজিত কুমার মজুমদার, সাবেক সভাপতি উপাধ্যক্ষ দেবদাস ম-দেবু, শ্রীগুরু সংঘ খুলনা শাখার সভাপতি সত্যপ্রিয় সোম বলাই, তীর্থালোক সংঘ খুলনার সাধারণ সম্পাদক স্বপন চক্রবর্ত্তী তাঁর সহধর্মিনী লাকী চক্রবর্ত্তী, জগন্নাথ সেবাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা মহানগর পূজা পরিষদের কার্যনির্বাহী সদস্য পঙ্কজ দত্ত, মহানগর পূজা পরিষদের সম্পাদকম-লীর সদস্য সুব্রত হালদার তপা, উজ্জ্বল ব্যানার্জী, ভোলানাথ দত্ত, ভবেশ সাহা, রূপন দে, উজ্জ্বল রায়, সনৎ বকসি, নিরঞ্জন কুমার ম-ল, শঙ্কর প্রসাদ বালা, গৌতম মজুমদার, অলোক দে, বাবু শীল, রবিন দাস, রাজকুমার শীল, সজল দাস, বিদ্যুৎ নন্দী, চঞ্চল রায়, চন্দন দে, কৌশিক সরকার, নিলয় সাহা, দ্বিপ্র দাস, দিপ্ত বিশ্বাস, টুকটুকি, সৈকত বর্মণ, মাধব কর্মকার, নীলকান্ত ঘোষ প্রমুখ।

সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গ নিয়ে এক নারীসহ জনের মৃত্যু, শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৫৬

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘন্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে এক নারীসহ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা ডেডিকেটেড মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাদের মৃত্যু হয়। নিয়ে, ভাইরাসটির উপসর্গ নিয়ে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন মোট ৫৫০ জন। আর আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ৮৫ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা শেষে ৭২ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। যা শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এনিয়ে, জেলায় আজ পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন হাজার ৭৪৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন হাজার ৫১৮ জন।

সাতক্ষীরার সিভিল সার্জন ডাঃ হুসাইন শাফায়াত জানান, জেলায় বর্তমানে সরকারী বেসরকারী হাসপাতালে মোট ২১৬ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকীরা হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে পৃথক ঘটনায় এক বাকপ্রতিবন্ধি এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের শিকার

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরার আশাশুনিতে পৃথক ঘটনায় এক বাকপ্রতিবন্ধি এক স্কুল ছাত্রী ধর্ষনের শিকার হয়েছে। এদিকে, স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের ঘটনায় পুলিশ সোমবার সকালে মোস্তাফিজুর রহমান নামের এক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে। এর আগে গত বুধবার সন্ধ্যায় আশাশুনি উপজেলার শোভনালী ইউনিয়নের গোদাড়া গ্রামে শনিবার দুপুরে শ্রীউলা ইউনয়নের মাড়িয়ালা মোড়ে ধর্ষনের ঘটনা ঘটে। ওই দু’ কিশোরীকে বর্তমানে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আশাশুনির গোদাড়া গ্রামের নির্যাতিতা বাকপ্রতিবন্ধি ওই কিশোরীর (১৪) মা জানান, তার মেয়ে একই গ্রামে তার মামার বাড়িতে যাওয়ার জন্য বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়। পথিমধ্যে লতাখালী গ্রামে এক যুবক তাকে ডেকে নিয়ে পরিত্যক্ত একটি বাড়িতে নিয়ে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে সে তার মাকে বিষয়টি জানালে তার মা তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করান।

অপরদিকে, আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের হিজলিয়া গ্রামের নির্যাতিতা স্কুল ছাত্রীর (১২) মা জানান, তার মেয়ে পার্শ্ববর্তী একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী। প্রতিদিনের ন্যয় সে গত শনিবার বিকেল ৫টার দিকে পার্শ্ববর্তী আব্দুল্লাহ স্যারের কাছে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছিল। পথিমধ্যে বৃষ্টি আসায় কলিমাখালি খোলারাটি গ্রামের মোস্তফার ছেলে মাড়িয়ালা মোড়ের মুদি ব্যবসায়ি মোস্তাফিজুর রহমানের দোকনের বারান্দায় আশ্রয় নেয়। সময় মোস্তাফিজুর তাকে দোকানের মধ্যে ডেকে নিয়ে শার্টার ফেলে দিয়ে মুখ চেপে ধরে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। নির্যাতিতা স্কুল ছাত্রীর অবস্থা খারাপ দেখে তাকে রোববারই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ব্যাপারে আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কবীর জানান, স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মোস্তাফিজুর নামের এক ব্যবসায়িকে সোমবার ভোর চারটার দিকে তার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরআগে মেয়েটির বাবা বাদি হয়ে সোমবার সকালে মোস্তাফিজুরের বিরুদ্ধে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। তবে প্রতিবন্ধি ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি। তিনি আরো জানান, সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নির্যাতিতা ওই দু’জনের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

শিক্ষক বাতায়ন এ “সেরা কনটেন্ট নির্মাতা” ক্যাটাগরিতে দেশ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন নড়াইলের সহকারী শিক্ষক মঞ্জু রানী পাল

নড়াইল প্রতিনিধি

 একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্তৃক পরিচালিত পোর্টালের পাক্ষিক “সেরা কনটেন্ট নির্মাতা” ক্যাটাগরিতে দেশ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন নড়াইল সদর উপজেলার গোবরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মঞ্জু রানী পাল।গত ৩১ জুলাই রাতে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) বিভাগ তাকে সেরা কনটেন্ট নির্মাতা হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষনা করে। বাংলাদেশ তথা বিশ্বের অন্যতম সর্ববৃহৎ শিক্ষা বিষয়ক ওয়েব পোর্টাল হচ্ছে শিক্ষক বাতায়ন (িি.িঃবধপযবৎং.মড়া.নফ)জনপ্রিয় পোর্টাল ডিজিটাল শিক্ষাদান পদ্ধতির অন্যতম প্লাটফর্ম হচ্ছে “শিক্ষক বাতায়ন”।মঞ্জু রানী পাল ২০১০ সালে শিক্ষকতা (সরকারি প্রাইমারি স্কুলে) পেশায় যোগদান করেন।তিনি ২০১১ সালে সিইনএড, ২০১৫ সালে বিএড এবং ২০১৯ সালে কৃতিত্বের সাথে এমএড সম্পন্ন করেন

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, করোনার কারণে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যখন সরাসরি পাঠদান বন্ধ রাখা হয় সে সময় শিক্ষক মঞ্জু রানী পাল দেশের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া শুরু করেন। নিজ বিদ্যালয়,ঘরে বসে শিখি,নড়াইল অনলাইন প্রাইমারি স্কুল,বাংলাদেশ আলোকিত প্রাথমিক শিক্ষক , ডিজিটাল অনলাইন প্রাইমারি স্কুল নড়াইল পেজসহ ১০ টি অনলাইন পেইজে ক্লাস নিয়েছেন তিনি। “সেরা কনটেন্ট নির্মাতা” ক্যাটাগরিতে দেশ সেরা নির্বাচিত হওয়ার জেলার সর্বপ্রথম শিক্ষক হলেন মঞ্জু রানী পাল। তিনি ২০২০ সালের ১৮ আগষ্ট থেকে “শিক্ষক বাতায়ন” নড়াইল জেলার অ্যাম্বাসেডর এর দায়িত্বে নিয়োজিত আছেন।

শিক্ষক মঞ্জু রানী পাল বলেন, শিক্ষক বাতায়নে কাজ করি ধৈর্য, ভালোবাসা আর আন্তরিকতা দিয়ে। যাঁরা শিক্ষক বাতায়নে দিন-রাত কাজ করেন তারাই ভালোভাবে অনুভব করেন সেরা হওয়ার আনন্দ আর অনুভুতির জায়গাটি। কাজ করি ভালোলাগা থেকে, এইভাবেই করে যাব সব সময় আমার এই প্রাপ্তি আমার চাকরি জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন। আমার এই প্রাপ্তিতে আমি প্যাডাগজি রেটার, প্রতিষ্ঠানের প্রধান, সহকর্মীবৃন্দ শিক্ষকমন্ডলী এবং যাঁরা উৎসাহ, উদ্দীপনা পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।আমার এই প্রাপ্তি আমাকে আগামি দিনে আরো ভালো কাজ করার ক্ষেত্রে অনুপ্রাণিত করবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে আরো জানা গেছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প-২০২১ বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে এটুআই এর যুগান্তকারী শিক্ষা উপকরণ হলো- সহজ, আনন্দময় ফলপ্রসূ শিক্ষা নিশ্চিত করতে মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট, শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহন বাড়াতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম, সকলের জন্য মানসম্মত শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টিতে মুক্তপাঠ, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিক্ষার্থীসহ সকলের একীভূত মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকল্পে মাল্টিমিডিয়া যথাযথ মনিটরিং ব্যবস্থাপনার জন্য ক্লাসরুম মনিটরিং, ড্যাশবোর্ড এবং শিক্ষকদের মাঝে কন্টেন্ট আইডিয়া আদান প্রদানের জন্য শিক্ষক বাতায়ন।একুশ শতকের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রয়োজন একুশ শতকের শিক্ষাব্যবস্থা।এ শিক্ষাব্যবস্থায় নেতৃত্ব দিতে প্রয়োজন একুশ শতকের শিক্ষক। তাই শিক্ষকদের উপর আস্থা রেখে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে বিশ্বমানের করে গড়ে তুলতে এবং শিক্ষকদের দক্ষ তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞানে সমৃদ্ধ করতে, প্রায় ছয় লক্ষ শিক্ষকের একটি মহিরূহ প্রতিষ্ঠান “শিক্ষক বাতায়ন”।“শিক্ষক বাতায়ন” একটি অনুপ্রেরণার নাম,একটি সুস্থ প্রতিযোগিতার নাম। সর্বস্তরের শিক্ষকরা তাদের মনের মাধুরী মিশিয়ে ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি করে শিক্ষক বাতায়নে আপলোড করতে পারেন।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: হুমায়ুন কবীর বলেন, আমাদের দৈনন্দিন জীবন ব্যবস্থায় তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির নিত্যনতুন উদ্ভাবন সমাজ ব্যবস্থাকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিচ্ছে। অনেক সময়ই শিক্ষার্থীরা তাদের দৈনন্দিন জীবনের সাথে শিক্ষা ব্যবস্থাকে মিলাতে পারে না। পরিবর্তনশীল সমাজ ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীর এই নানামূখী চাহিদা পূরণ করা এবং শিক্ষা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগাম শিক্ষাক্ষেত্রে উদ্ভাবন নিয়ে প্রায় এক যুগ ধরে কাজ করে যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় শিক্ষা উপকরণ, সময়োপযোগী শিক্ষক প্রশিক্ষণ এবং প্রযুক্তির সমন্বয়ে ভবিষৎ চাহিদার সাথে বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থার যোগসূত্র স্থাপনে কাজ করে চলেছে এটুআই।

ডুমুরিয়ায় দু’ইউপি চেয়াম্যানের নেতৃত্বে ৫’শতাধিক সেচ্ছাশ্রমে পলি অপসারন

এস রফিক, ডুমুরিয়া

ডুমুরিয়ায় সেচ্ছাশ্রমে স্লুইচ গেটের দু’পাশের জমাকৃত পলি নেট-পাটা অপসারন কর্মসূচীতে অংশ গ্রহন করেছেন দু’ইউপি চেয়ারম্যান সহ পাঁচ শতাধিক জনগন। নদী বাঁচাও-কৃষক বাঁচাও কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গতকাল সোমবার সকালে উপজেলার খর্ণিয়া-রুদাঘরা ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বিলসিঙ্গা-চহেড়া স্লুইচ গেটের পলি অপসারণ কাজে অংশগ্রহন করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আ”লীগনেতা মোস্তফা কামাল খোকন,ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা শেখ দিদারুল হোসেন দিদার,পানি ব্যবস্থাপনা কমিটি,কৃষক,শিক্ষক,ছাত্রসহ স্থানীয় শতাধিক জনগন।হরি-ভদ্রা পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আঃ মতলেব গোলদার,সাধারন সম্পাদক ইউপি সদস্য এমএ হান্নান কর্মসূচী পরিচালনা কমিটির আহবায়ক বাবুল আকতার সবুর জানান,পাউবো’২৫ পোল্ডারে হরি-ভদ্রা নদী সংলগ্ন বিলসিঙ্গা-চহেড়া স্লুইচ গেট অবস্থিত।ওই স্লুইচ গেট দিয়ে রুদাঘরা ইউনিয়নের খরসঙ্গ,চহেড়া,মিকশিমিল,হাসানপুর,শোলগাতিয়া খর্ণিয়া ইউনিয়ের রানাই,আঙ্গারদহা,টিপনা,সিঙ্গা সহ ১০টি বিলের পানি নিস্কাশন হয়ে আসছে। সম্প্রতি হরিনদী নাব্যতা হারায় গেটের বাহির মুখে পলি জমে পানি নিস্কাশনে অযোগ্য হয়ে পড়েছে।এছাড়া ভিতরে গেটের খালে একাধিক স্থানে যত্রতত্র নেট-পাটা বসানোর ফলে পানি নিস্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধে প্রবল বৃষ্টির পানি নিস্কাশন না হওয়ায় আতংকিত হয়ে পড়েছে স্থানীয় কৃষক মৎস্য চাষীরা। যে কারনে হাজার হাজার হেক্টর জমি,ফসল,মাছ কৃষক বাঁচাতে কর্মসূচীর বিকল্প নেই, এমনটি মাথায় নিয়ে দু’ইউনিয়নের চেয়াম্যানের নেতৃত্বে পলি অপসারন কমিটি গঠনের মধ্যদিয়ে সেচ্ছাশ্রম কর্মসূচী গ্রহন করা হয়েছে।ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল খোকন শেখ দিদারুল হোসেন দিদার উদ্বোধনী সভায় বক্তব্যে বলেন,ব্যক্তিগত অর্থায়নে একাধিক সেচ মেশিন স্থাপন সেচ্ছাশ্রমীদের দুপুরে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যা কয়েকদিন ধরে চলবে।তারা আরও বলেন,আশু সরকারী হস্তক্ষেপ না হলে হরিনদীর নাব্যতা হারিয়ে শিঘ্রই এলাকা বিল ডাকাতিয়ায় পরিনত হবে।এ সময় উপস্থিত ছিলেন এ্যাড,আশরাফুল আলম রাজু,শিক্ষক মোজাহার হোসেন,কামরুল ইসলাম,খালিদ হাসান,জহুরুল ইসলাম,মহিতোষ মন্ডল,আঃ খালেক, জাকিয়া সুলতানা,আজহারুল ফকির,রেজোয়ান সরদার,তপন রায়,প্রদীপ রায়সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ।

এ্যাড. সৈয়দা সাবিহা’সুস্থতা কামনায় খুলনা উন্নয়ন কমিটি

খবর বিজ্ঞপ্তি

বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির অন্যতম সদস্য, মানবাধিকার কর্মী এ্যাড. সৈয়দা সাবিহা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেনÑবৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, মহাসচিব কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মাদ আলী, সহ-সভাপতি শাহীন জামাল পন, মোঃ নিজাম-উর রহমান লালু, জেড মাহমুদ ডন, মিজানুর রহমান বাবু, অধ্যাপক মোঃ আবুল বাসার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার বদিয়ার রহমান, কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, চৌধুরী মোঃ রায়হান ফরিদ, চৌধুরী মিনহাজ উজ-জামান সজল, আরজুল ইসলাম আরজু, মামনুরা জাকির খুকুমনি, সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব এড. শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মীর বরকত আলী, মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম, মিজানুর রহমান জিয়া, শেখ হাসান ইফতেখার চালু, কোষাধ্যক্ষ মিনা আজিজুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার মনিরুল ইসলাম, মহিলা সম্পাদক রসু আক্তার, দপ্তর সম্পাদক নুরুজ্জামান খান বাচ্চু, প্রচার সম্পাদক মোঃ মফিদুল ইসলাম টুটুল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. লুৎফর রহমান, তথ্য গবেষণা সম্পাদক ইলিয়াস মোল্লা, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক সরদার রবিউল ইসলাম রবি, যুব বিষয়ক সম্পাদক মতলেবুর রহমান মিতুল, ক্রীড়া সম্পাদক শেখ আবিদ উল্লাহ, সমাজসেবা সম্পাদক মোঃ আব্দুস সালাম, শ্রম সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, শিক্ষা সম্পাদক অধ্যাপক আযম খান, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোল্লা মারুফ রশীদ, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান মুরাদ, পরিবেশ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, সাহিত্য প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়ম-, কৃষি সম্পাদক আহমেদ ফিরোজ ইব্রাহিম, বাণিজ্য সম্পাদক এস এম আখতার উদ্দিন পান্নু, লাইব্রেরী সম্পাদক মল্লিক মাসুদ করিম, নির্বাহী সদস্য রকিব উদ্দিন ফারাজী, এড. আব্দুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, শেখ মুর্শরফ হোসেন, এড. কুদরত-ই-খুদা, আলী আকবর টিপু, আনিসুর রহমান বিশ্বাস, অধ্যক্ষ রেহেনা আক্তার, মোঃ মামুন রেজা, মোঃ তরিকুল ইসলাম, মোঃ শফিকুর রহমান, এস এম জাহিদুর রহমান, জুবায়ের আহমদ খান জবা, শেখ আব্দুস সালাম, ফেরদৌস হোসেন লাবু, মোঃ হায়দার আলী, কামরুল করিম বাবু, রফিকুল ইসলাম বাবু, প্রমিতি দফাদার প্রমুখ।

খুলনা-আসনের সংসদ সদস্য বাবু’শোক সমবেদনা

খবর বিজ্ঞপ্তি

ঢাকাস্থ পাইকগাছা ছাত্রকল্যাণ সংস্থার সভাপতি মোঃ রাশেদ হাসানের পিতা আব্দুল মাজেদ শেখ (৬০) স্ট্রোকজনিত কারণে সোমবার (আগস্ট) দুপুরে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আক্তারুজ্জামান বাবু। এক শোক বিবৃতিতে তিনি শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা এবং বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানী স্যার আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের ১৬০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দুস্থদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

সোমবার বিকেল ৪টায় খানজাহান আলী রোড (জাতিসংঘ পার্কের দক্ষিণ পাশে) জগৎ বিখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায়ের ১৬০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দখিনা (জন সমাজকল্যাণ সংগঠন) এবং খুলনাস্থ স্যার পি সি রায় স্মৃতি সংসদ-এর যৌথ আয়োজনে বৈশি^মহামারী করোনায় বিপর্যস্ত দুঃস্থ-অসহায় মানুষের সাহায্যার্থে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দখিনার সভাপতি আলহাজ্ব ওয়াহিদুজ্জামান খান পল্টু। স্যার পি সি রায় স্মৃতি সংসদ-এর সভাপতি ডাঃ মুহাঃ কওসার আলী গাজীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনÑদখিনার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, প্রাক্তন সংসদ সদস্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবর আলী, খুলনা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামান, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের রিপোর্টার আহমদ মুসা রঞ্জু। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑদখিনার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী রফিকুল আলম সরদার, সহ-সভাপতি অহিদুজ্জামান খোকন, ড. মোঃ মোকাররম হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক জি এম ইউনুস আলী, উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব মনিরুল ইসলাম মনি, আব্দুল গনি, মোঃ শরিফুল ইসলাম, মোঃ রাশেদ রানা, মঈনুল ইসলাম জুয়েল, মিনা অছিকুর রহমান দোলন, নাজমুল হক খোকন, রকি প্রমুখ।

বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, স্যার পি সি রায় স্মৃতি সংসদ তথা দক্ষিণ খুলনার অবহেলিত মানুষের গণদাবিÑপাইকগাছায় নির্মাণাধীন কৃষি কলেজকে বিজ্ঞানী স্যার আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ^বিদালয়ে উন্নীতকরণ, স্যার পি সি রায়ের রাড়–লীস্থ ধ্বংসপ্রায় বসতবাড়িকে পর্যটন কেন্দ্রে রূপান্তর, তাঁর জীবনী অবদান বিভিন্ন শ্রেণীর পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্তরণ এবং তাঁর মায়ের নামে বাংলাদেশের প্রথম নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভুবনমোহিনী বালিকা বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত আর কে বি-কে হরিশচন্দ্র কলেজিয়েট ইন্সটিটিউশনকে ডিগ্রি কলেজে রূপান্তর জাতীয়করণ করার জন্য বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদয় দৃষ্টি কামনা করেন।

করোনা ভাইরাস থেকে জনগনকে বাঁচাতে সরকারের প্রস্তুতি খুবই দুর্বল: মনি

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি বলেছেন, অগণতান্ত্রিক সরকারের একের পর এক ভুল সিদ্ধান্তের কারণে করোনা মোকাবিলা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। সরকার গার্মেন্টস শ্রমিকদের সাথে অমানবিক নির্যাতন করে যাচ্ছে। সরকারের মন্ত্রীদের পারস্পরিক কোনও সমন্বয় নেই। কারণে একেক মন্ত্রী একেক ধরনের বক্তব্য-বিবৃতি দিয়ে জাতিকে ভোগান্তিতে ফেলতে দ্বিধা করেন না। সব ক্ষেত্রেই এক হযবরল অবস্থা বিরাজ করছে। শ্রমিকদের ভ্যাকসিন নিশ্চিত না করে, গণপরিবহন না খুলে এভাবে শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়া দেশের শ্রমজীবী মানুষের সঙ্গে তামাশা ছাড়া আর কিছুই নয়।

সোমবার (০২ আগস্ট) দুপুরে নগরীর ২৬ নং ওয়ার্ডের নাজিরঘাট ২০নং ওয়ার্ডের চামড়াপট্টির লকডাউনে ক্ষুধার্ত ৫শ’ মানুষের মাঝে মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে রান্না খাবার বিতরণকালে তিনি কথা বলেন। সাবেক মেয়র মনি আরো বলেন, করোনা ভাইরাস থেকে জনগনকে বাঁচাতে সরকারের প্রস্তুতি খুবই দুর্বল। টিকার প্রস্তুতি নেই, হাসপাতাল পর্যাপ্ত নেই, আইসিইউ সঙ্কট, শয্যা সঙ্কট, অক্সিজেন সঙ্কটে দেশবাসি মহাসঙ্কটে পড়েছেন। মৃত্যুর হার কমছে না, কমছে না সংক্রামনের হারও। সরকারের পক্ষ থেকে যে সাহায্য দেওয়া হচ্ছে তা একদিকে অত্যন্ত অপ্রতুল, দলীয়করণ এবং প্রকৃত দরিদ্রদের হাতে পৌঁচ্ছাছে না। তিনি কর্মহীন মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌছে দেয়ার আহবান জানান।

খাবার বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মহিবুজ্জামান কচি, ইকবাল হোসেন খোকন, সাজ্জাদ আহসান পরাগ, হাসানুর রশিদ মিরাজ, জামাল উদ্দীন, মহিউদ্দীন টারজান, বাচ্চু মীর, লিটু পাটোয়ারী, সিদ্দিকুর রহমান, ওহাব শরীফ, শাকিল আহমেদ, আলমগীর ব্যাপারী, শেখ হাবিবুর রহমান, মনিরুল ইসলাম, ওহেদুজ্জামান, সাজ্জাদ হাসান, জামাল মোড়ল, ইকবাল হোসেন, গোলাম উন নবী ডালু, আনোয়ার হোসেন, কামাল হোসেন, ডা. ঘালিম মোড়ল, শাকিল হোসেন, জাবীর আলী, মাহবুব হোসেন, সুলতান আহমেদ, হারুন হাওলাদার, সেলিম বড়মিয়া, মনির শিকদার, আমিন হোসেন মিঠু, ফিরোজ আহমেদ, সাজ্জাদ হোসেন জিতু, আ. আহান শাহিন, রবিউল আলম, শফি মাস্টার, নুর মোহাম্মাদ, আতিয়ার রহমান, তুহিন ইসলাম, মোস্তাহিদুল হক দিহান, কাওসারী জাহান মঞ্জু, মোস্তাফিজ,পলাশ, গিয়াস, সাগর, ডা. ছটু, মাসুম, রিপন প্রমূখ।

অসহায় পরিবারের বাড়ি ঘুরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘ

রূপসা প্রতিনিধি

করোনার শুরু থেকে অসহায় কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসহায়তা বিতরণ করে যাচ্ছে  সালাম মূর্শেদী সেবা সংঘ। সংঘের সদস্যরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা অব্যহত রেখেছে। তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার দুপুরে রূপসা উপজেলার শ্রীফলতলা ইউনিয়নের চর মোছাব্বাতপুর,নন্দনপুর গ্রামের অসহায় দুঃস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

সময় উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য অধ্যক্ষ আঃ সালাম,খুলনা জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মোঃ মোতালেব হোসেন, শ্রীফলতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইসহাক সরদার,উপজেলা আওয়াামীলীগের যুব ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক স.জাহাঙ্গীর,ইউপি সদস্যা শিরিন আক্তার,স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মঈনউদ্দিন, সালাম মুর্শেদী সেবা সংঘের টিম লিডার  যুবলীগ নেতা সামসুল আলম বাবু,ছাত্রলীগ নেতা এসএম রিয়াজ, সাব্বির সাজ্জাদ সাজু, ইমন প্রমূখ।

মোংলায় ঘেরের মাছ চুরিতে বাঁধা দেয়ায় দুই নারীকে পিটিয়ে কুপিয়ে জখম

মোংলা প্রতিনিধি

চিংড়ি ঘেরের মাছ চুরিতে বাঁধা দেয়ায় মোংলার চিলার গাববুনিয়া এলাকায় এক পরিবারের দুই নারীকে পিটিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে একটি প্রভাবশালী চোর চক্র। আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনায় ওই চক্রের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

আহতদের পরিবার অভিযোগ সূত্রে  জানা যায়, উপজেলার চিলা ইউনিয়নের গাববুনিয়া এলাকায় ৭০ বিঘার একটি ঘেরে মাছ চাষ করছেন স্থানীয় বাসিন্দা ব্যবসায়ী মোঃ বদিয়ার শেখ। গত ৩১ জুলাই টানা বৃষ্টিপাতের দিন দুপুর আড়াইটার দিকে ওই এলাকারই আবু বকর শেখ তার চার বিঘার ঘেরের পাশ্ববর্তী বদিয়ার শেখের ঘেরের ভেঁড়ি বাঁধ কেটে দিয়ে মাছ চুরি করতে ছিলেন। সময় বদিয়ারের স্ত্রী আসমা বেগম তার ভাবী সেলিনা বেগম বাঁধা দিলে তাদের উপর ধারালো অস্ত্র (দা) লাঠিশোঠা নিয়ে হামলা চালায় আবু বকর গংরা। আসমা সেলিনা বেগমের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে বকর গংরা সরে পড়েন। পরে হুমায়ন শেখ, জালাল শেখ জিলানী শেখ নামের স্থানীয় তিন বাসিন্দা আহত ওই দুই নারীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। হামলাকারীদের দায়ের কোপে আহত আসমা বেগমের হাতের একটি আঙ্গুল কেটে পড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন জায়গায় কেটে গেছে। আর সেলিনা বেগমের পিঠের মেরুদন্ডের হাড় ভেঙ্গে গেছে বলে জানিয়েছেন অভিযোগকারী বদিয়ার শেখ।

আহত আসমা বেগমের স্বামী ঘের মালিক বদিয়ার শেখ বলেন, বকর শেখ তার জামাই মিলন প্রতিনিয়ত স্থানীয়দের বড় বড় ঘেরের মাছ চুরি করে থাকেন। গত ৩১ জুলাই তাদের ঘেরের মাছ চুরির সময় বাঁধা দিলে

বকর গংরা আমাদের উপর হামলা চালায়।

তিনি আরো বলেন, আমার স্ত্রী ভাবীকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে জখম করার পর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়ে আমরা এখনও পর্যন্ত ন্যায় বিচার পাচ্ছিনা।

তবে হামলাকারী বকর শেখ দাবী করে বলেন, ওই দুই নারী নাটক সাজাতে হাসপাতালে আহত দেখিয়ে ভর্তি হয়েছেন।

তবে সরেজমিনে হাসপাতালে গিয়ে আহতদের শরীরে বিভিন্ন ধরণের আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়।   

বিষয়ে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা মোংলা থানার এএসআই সাধন মন্ডল বলেন, তিনি অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করছেন। হাসপাতালে গিয়ে আহতদেরকে দেখে, কথা বার্তা শুনে তাদেরকে চিকিৎসা নিতে বলেছেন। এরপর তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

খুলনা জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভা

তথ্য বিবরণী

খুলনা জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভা সোমবার বিকালে জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদারের  সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় সংস্কার) মোঃ কামাল হোসেন এবং খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন সভায় অনলাইনে যুক্ত ছিলেন। সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় সংস্কার) মোঃ কামাল হোসেন বলেন, চলমান করোনা পরিস্থিতির মধ্যে দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটি নিয়ন্ত্রণে এবং আক্রান্ত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিতে প্রস্তুতি গ্রহণ করা দরকার। আগামী সপ্তাহে শুরু হতে যাওয়া প্রত্যন্ত এলাকায় ব্যাপক গণটিকাদান কর্মসূচীতে অন্যদের সাথে ৪৫ বছরের বেশি বয়সীদের করোনা টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডাঃ মেহেদী নেওয়াজ বলেন, ডেঙ্গু জ¦রে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পৃথক ওয়ার্ড প্রস্তুত করা হচ্ছে। ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় প্লেটেলেট প্রদান কার্যক্রম নিশ্চিতে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সেল্ফ সেপারেটর মেশিন প্রয়োজন। যার মাধ্যমে সুস্থ্য মানুষের রক্ত হতে প্লেটেলেট আলাদা করে প্রয়োজনে ডেঙ্গু আক্রান্তদের শরীরে দেওয়া যাবে। করোনা আক্রান্ত রোগীদের বাড়িতে গিয়ে অক্সিজেন সেবা প্রদানকারীদের রোগীর জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের মাত্রা সম্পর্কে প্রশিক্ষিত করা দরকার। প্রয়োজনের চেয়ে বেশি মাত্রায় অক্সিজেন সরবরাহ রোগীর জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।  হাসপাতালগুলোতে কোভিড রোগীর সাথে দেখা করতে আসা ব্যক্তিদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করা দরকার। সভায় সিভিল সার্জন ডাঃ নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, খুলনা জেলায় ঈদ-উল-আযহার আগের ১০ দিনের তুলনায় পরের ১০ দিনে করোনারোগী শনাক্তের হার এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু দুটোই কমেছে। সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক বলেন, করোনা রোগীদের জন্য খুলনার সকল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অক্সিজেন সেবাসহ ২০টি বেড প্রস্তুত আছে। করোনায় কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণসামগ্রী বিতরণ চলমান রয়েছে। প্রয়োজনে ৩৩৩ নম্বরে ফোন কলের মাধ্যমে খাদ্যসহায়তা প্রাপ্তির বিষয়ে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) তানভীর আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদক এমডিএ বাবুল রানা, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন, সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুন্সি মোঃ মাহবুব আলম সোহাগসহ কমিটির সদস্যরা  উপস্থিত ছিলেন।

বুড়িগঙ্গা নদীতে নিখোঁজ এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে নৌবাহিনী

ঢাকা অফিস

সদরঘাট এলাকার লালকুঠি ঘাট সংলগ্ন পন্টুন থেকে বুড়িগঙ্গা নদীতে পড়ে যাওয়া এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ডুবুরী দল। উদ্ধারকৃত মৃত ব্যক্তির নাম মিন্টু হোসেন (২৭)তার বাড়ি ঢাকার বংশাল এলাকায়। মৃতদেহটি স্থানীয় কেরানীগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উল্লেখ্য, গত আগষ্ট ২০২১ তারিখ রাত ১১ টায় সদরঘাট এলাকার লালকুঠি ঘাট সংলগ্ন পন্টুনে হাটার সময় বেসামরিক তিন ব্যক্তি বুড়িগঙ্গা নদীতে পড়ে যায়। এসময় স্থানীয়দের সহযোগিতায় দুই জনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হলেও একজন নিখোঁজ ছিল। পরবর্তীতে খবর পেয়ে নিখোঁজ ব্যক্তির উদ্ধারে নৌ ইউনিট পাগলা নারায়ণগঞ্জ থেকে সদস্যের নৌবাহিনীর একটি ডুবুরী দল রাত টায় ঘটনাস্থলে পৌছে লালকুঠি ঘাট সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। আজ রাত টায় উক্ত ব্যক্তির মৃতদেহটি উদ্ধার করে নৌবাহিনীর ডুবুরী দল।

মোড়েলগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শিশু হত্যার ঘটনায় দিনের ব্যবধানে মাদ্রাসা ছাত্র আটক

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে চাঞ্চল্যকর লিমন মোল্লা(১০) নামে এক শিশুকে হত্যার ঘটনায় ১৭ বছরের এক মাদরাসা ছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ওই কিশোর একই গ্রামের ব্যবসায়ী জহুরুল কাজীর ছেলে। শিশুটিকে হত্যার ৩দিন পরে রবিবার তার হত্যাকারিকে পুলিশ আটক করে। নিহত লিমনের  মুখ বাঁধা গেঞ্জিটির সূত্র ধরে পুলিশ এই কিশোরকে  প্রাথমিকভাবে চিহ্নিত করে।

বিষয়ে বাগেরহাট জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আজাদ উজ্জামান সোমবার দুপুর ২টার দিকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ‘নিহত শিশু লিমনের হত্যাকারীও একজন শিশু। তাই তার নাম পরিচয় প্রকাশ করা হলো না। থানার শিশু বান্ধব কর্মকর্তা প্রবেশন কর্মকর্তার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে লিমনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তাই তাকে শিশু আইনের সকল প্রক্রিয়া মেনে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।’ তবে, কি কারণে লিমনকে হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে বিজ্ঞপ্তিতে কিছু উল্লেখ করা হয়নি।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বাবার দোকান থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে হত্যা করা হয় ৩য় শ্রেনির ছাত্র দোনা গ্রামের এনামুল মোল্লার ছেলে লিমন মোল্লাকে। রাত ১০ টার দিকে জল কাজীর বাড়ির সামনে ডোবায় হাত-পা মুখ বাঁধা অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়।পরদিন শুক্রবার রাতে ঘটনায় লিমনের বাবা অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বটিয়াঘাটায় মুজিব বর্ষে ১৮০ টি ভূমিহীন গৃহহীন পরিবার আনন্দে  দিন কাঁটাচ্ছে

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

খুলনা জেলার বটিয়াঘাটায় মুজিব বর্ষে ১৮০ টি ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারের মৌলিক চাহিদার  তৃতীয় চাহিদা জমির কাগজপত্র গৃহ পেয়ে সুফলভোগীরা বেজায় আনন্দে  দিন কাঁটাচ্ছে রবিবার বেলা ১১ টায় স্থানীয় সুরখালী ইউনিয়নের রায়পুর মৌজায় ২০টি সুফলভোগী গৃহহীন পরিবারের  জীবনযাত্রা পরিদর্শনকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম এর সামনে তাঁরা তাঁদের খুশীার কথা জানান ।  এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল হাই সিদ্দিকী, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ এমদাদুল হক, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, কোষাধ্যক্ষ মোঃ মনিরুজ্জামান, ইউপি চেয়ারম্যান সরদার আব্দুল হাদী, ইউপি সদস্য মাসুদ রানা, সাকিব সরদার সহ সুফলভোগী পরিবারের সদস্যদবৃন্দ মুজিব বর্ষে  শেখ হাসিনার সদিচ্ছা গৃহহীন পরিবারের জন্য জমি গৃহ প্রদান বাস্তবে রূপ দিতে উপজেলা প্রশাসন স্বচ্ছতা জবাবদিহিতার মাধ্যমে  অতি অল্প সময়ে ঘর প্রতি লক্ষ৭০ হাজার টাকায় দৃষ্টিনন্দনীয় ওই ঘরগুলি নির্মাণ  করেন যা কিনা একই দিনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্ভোধনের মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসন  ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারের মাঝে দলিল সহ ঘরের চাবি  একযোগে  হস্তান্তর করেন। বর্তমানে সুফলভোগীরা ঘরে উঠে যার যার কর্মে  ফিরে গেছে এবং পরিবার পরিজন নিয়ে আনন্দে বসবাস করছে গেল ঈদে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের ব্যক্তিগত অর্থায়নে ১৮০ টি পরিবারের মাঝে ঈদ উপকরন  পৌঁছে  দেওয়া হয় ঘরে ঘরে। গতপরশু রবিবার তাদের পানিয় জলের সমস্যার সমাধান করতে ওই স্হানে ট্যাংঙ্কি স্হাপন  করা হয় বৃক্ষ রোপন করা হয়। এব্যাপারে ভূক্তভোগীদের কয়েক জনের সাথে জিজ্ঞাসা করলে বলেন, আমরা বটিয়াঘাটার বারোআড়িয়া বাজারে প্রায় ১৫ টি পরিবার একটি পরিত্যক্ত গোডাউনে দীর্ঘ ১০-১৫ বছর যাবৎ মানবেতর জীবন-যাপন করছিলাম ।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের সুদৃষ্টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  উপহার ঘর জমি পেয়ে আমরা ভিশন  আনন্দিত কোনদিন ইটের দালান ঘরে  ঘুমাতে পারবো, নিজের দালান ঘর হবে সেটা স্বপ্নেও ভাবিনি।আমরা শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করি। এব্যাপারে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জানান, আমরা মিস্ত্রী খরচ বাদে ওই বরাদ্দের টাকায় ঘর যাতে সুন্দর টেকসই হয় সে লক্ষ্যে নিজেরা নির্মাণ কমিটির মাধ্যমে মালামাল ক্রয় করে ঘর গুলো নির্মাণ করা হয়েছে যে কারনে ঘর গুলো সুন্দর টেকসই হয়েছে এব্যাপারে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল হাই সিদ্দিকী জানান, মুজিব বর্ষের বিশেষ প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে ১৮০টি পরিবারের প্রত্যেক পরিবারকে শতাংশ খাস জমি নির্বাচন পূর্বক জমির দলিল, নামপত্তন, খাজনা সহ মুজিব বর্ষের প্রধানমন্ত্রীর ফাইল সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেয়া হয়েছে এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে সকলে মিলে নিরলসভাবে কাজ করে সঠিক জায়গা নির্বাচন পূর্বক মনোরম পরিবেশে সুন্দর টেকসই ভাবে ঘর গুলো নির্মাণ করে সুফলভোগীদের মাঝে জমির কাগজপত্র ঘরের চাবি হস্তন্তর করা হয়েছে এবং উক্ত ঘরে সুফলভোগীরা আনন্দে বসবাস করছে তিনি আরো বলেন, সুফলভোগীদের বিদ্যুৎ লাইন, যোগাযোগের রাস্তা পানির ট্যাংক এবং গাছের চারা সহ বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করে তা বাস্তবায়ন করা হয়েছে সব মিলিয়ে উপজেলার ঘর গুলো টেকসই মনোরম পরিবেশে হওয়ার বাংলাদেশে মধ্যে বটিয়াঘাটার ঘর গুলো দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় অভিজ্ঞ সচেতন মহল এব্যাপারে  মুজিব বর্ষে সুফলভোগী ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারের পক্ষ থেকে  মুজিব বর্ষের  এই প্রকল্প যেন চলমান থাকে সে আহ্ববানও  জানানো হয়েছে

খুলনা শিপইয়ার্ড কর্তৃক হাসপাতালে অটো বিপিএপি এবং সিপিএপি মেশিন প্রদান

তথ্য বিবরণী

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড (খুশিলি) এর নিজস্ব উদ্যোগে সোমবার সকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা রোগীদের জন্য একটি অটো বিপিএপি এবং দুইটি অটো সিপিএপি মেশিন প্রদান করা হয়। খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এম জাকিরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোঃ রবিউল হাসানের নিকট মেশিনগুলো হস্তান্তর করেন। এসময় খুশিলি’ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানান, সামজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে খুলনা শিপইয়ার্ড করোনাকালে কর্মহীন ব্যক্তি, দিন মজুর, দুঃস্থ অসহায় মানুষের মাঝে চাল, ডাল, চিনিসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে আসছে। এই ধরণের কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে। হস্তান্তর অনুষ্ঠানে খুলনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ মোঃ আহাদ আলী, উপাধ্যক্ষ ডাঃ মেহেদী নেওয়াজ খুশিলি’উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। পরে খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খুলনা জেনারেল হাসপাতালের করোনা রোগীদের জন্য একটি অটো বিপিএপি এবং দুইটি অটো সিপিএপি মেশিন সিভিল সার্জন ডাঃ নিয়াজ মোহাম্মদের নিকট হস্তান্তর করেন।

আগস্ট খুলনা প্রেসক্লাবে নবনিযুক্ত জেলা প্রশাসকের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা জেলা প্রশাসক জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এবং খুলনা প্রেসক্লাবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার আগামী ০৪ আগস্ট-’২১ বুধবার বেলা ১১টায় খুলনা প্রেসক্লাবের সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করবেন। খুলনা প্রেসক্লাবের হুমায়ুন কবীর বালু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিতব্য মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করবেন খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম জাহিদ হোসেন। উক্ত মতবিনিময় সভায় ক্লাবের সদস্যদের উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা।

মহানগর বিএনপি’সভাপতির সহধর্মীনীর রোগ মুক্তি কামনা

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা মহনগর বিএনপি’সভাপতি সাবেক এমপি জনাব নজরুল ইসলাম মঞ্জুর ধর্মীনী এ্যাডঃ সৈয়দা সাবিহা গত রবিবার করোনা আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসভবনে চিকিৎসাধীন আছেন। তার রোগ মুক্তি কামনায় বিবৃতি দিয়েছেন দৌলতপুর থান বি এন পি’সভাপতি শেখ মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল হক নান্নু, শেখ শহিদুল ইসলাম, সাজ্জাত হোসেন তোতন, লিয়াকত হোসেন লাভলু, শেখ আব্দুল হালিম, মোল্লা মুজিবর রহমান, আলহাজ্ব বেলায়েত হোসেন, শেখ ইমাম হোসেন, শরিফুল আনাম, তরিকুল ইসলাম, মাসুদ রানা ডাবলু, আবুল কালাম শিকদার, আনছার আলী, আরব আলী, আসাদুজ্জামান আসাদ, মুসা পাইলট, জাহিদ হাসা খসরু, আরিফ খান, মতলুবুর রহমান মিতুল, আরমান হোসেন, শহিদুল ইসলাম বিপ্লব প্রমুখ।

দাকোপে পূর্ব শত্রুতায় আহত ৩, মামলা হয়নি দিনেও

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনার দাকোপ উপজেলার কালাবগি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুইজন দাকোপ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স একজন গুরুতর খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনার দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত মামলা গ্রহণ করেনি পুলিশ।

পারিবারিক স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাড়ির সীমানা নির্ধারণ নিয়ে আব্দুল মজিদ গাজী আব্দুস সালাম সানা পরিবারের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে আমিন দিয়ে জমি মাপার পর আব্দুস সালাম সানার জমির ভিতরে আব্দুল মজিদ গাজী জমি পেয়ে যায়। সেই থেকে সালাম সানা তার পরিবারের সাথে মজিদ গাজীর পরিবারের বিরোধ চলে আসছে।

আহতদের পরিবারের সদস্য নগর ছাত্রলীগ নেতা মোঃ ইদ্রিস আলী জোয়াদ্দার জানান, ‘গত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে আমার নানার (আব্দুল মজিদ গাজী) জমির সামনে সরকারি খাস জমিতে আমার মা (আরিফা বেগম) ছাগল চরাচ্ছিলেন। তখন সালাম সানার ছেলে আমান সানা এসে বারবার ছাগলটিকে তাড়িয়ে দিচ্ছিলেন। এই নিয়ে দু’জনের ভিতর কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে বেলা ১২টার দিকে সালাম সানা, তার দুই ছেলে আমান সানা আহসানসহ বেশ কয়েকজন এসে আমার পরিবারের উপর হত্যার উদ্দেশ্যে বাঁশের লাঠি, দা এবং লোহার রড নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।’

তিনি জানান, ঘটনায় আমার নানা মজিদ গাজী (৬৫), মা আরিফা বেগম (৩৫) ছোটভাই তাজউদ্দীন জোয়াদ্দার (১৮) গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়ে জ্ঞান হারিয়ে পড়েছিলেন। এদের মধ্যে তাজউদ্দীনের মাথায় দায়ের কোপ লাগায় অবস্থা গুরুতর হয়ে পড়ে। পরে এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরবর্তীতে মজিদ গাজী উন্নত চিকিৎসার জন্য খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

তিনি আরও জানান, ‘হামলার ঘটনায় আব্দুল মজিদ গাজী বাদী হয়ে লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে দিন অতিবাহিত হলেও মামলা দায়ের হয়নি। আহতরাও এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।’

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, সালাম সানার পরিবার প্রভাবশালী ভয়ঙ্কর প্রকৃতির লোক হওয়ায় অনেকেই তাদের বিরুদ্ধে কথা বলেন না। যার কারণে এখন পর্যন্ত মামলাও দায়ের হয়নি।

তবে দাকোপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মো. আশরাফুল আলম জানান, ‘ঘটনায় দুই পরিবারই লিখিতভাবে অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে পুলিশের একটি টিম কাজ করছে। আর ওসি স্যার ছুটিতে থাকায় মামলা দায়ের হয়নি। তবে সোমবার রাতেই মামলা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি নিশ্চিত করেন।’

খুলনা বিভাগে করোনায় মৃত্যু কমেছে, বেড়েছে শনাক্ত

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা বিভাগে করোনায় মৃত্যু কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৬ জন মারা গেছেন। আর এই সময়ে করোনা শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৩৭৩ জনের। সোমবার (আগস্ট) বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্র তথ্য নিশ্চিত করেছে। এর আগে রবিবার (আগস্ট) বিভাগে ৪০ জনের মৃত্যু এবং ৮৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্র যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে সাত জন করে মৃত্যু হয়েছে খুলনা কুষ্টিয়ায়। যশোর মেহেরপুরে তিন জন করে, মাগুরা ঝিনাইদহে জন করে, বাগেরহাট চুয়াডাঙ্গায় এক জন করে মারা গেছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের শুরু থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট ৯৫ হাজার ১৮৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনায় মারা গেছেন দুই হাজার ৪৫৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭১ হাজার ৪৯৪ জন।

খুলনায় নতুন শনাক্ত ১৬৯ জন। মোট শনাক্ত ২৪ হাজার ১৩৪। মারা গেছেন ৬৩৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ১৬১ জন। বাগেরহাটে নতুন শনাক্ত ৭০ জন। মোট শনাক্ত ছয় হাজার ১৪১। মারা গেছেন ১২৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন পাঁচ হাজার ৪২৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সাতক্ষীরায় ৭২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্ত পাঁচ হাজার ৭৭৬। মারা গেছেন ৮৫ জন। আর চার হাজার ৫১৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

যশোরে ২৪ ঘণ্টায় ১৫৫ জনের করোনা শনাক্ত। মোট শনাক্ত ১৮ হাজার ৯৮১। মারা গেছেন ৩৫৪ জন। আর ১৪ হাজার ৬৫৩ জন সুস্থ হয়েছেন। নড়াইলে নতুন শনাক্ত ৪৭। মোট শনাক্ত চার হাজার ১৮৯। ৯৪ জন  মারা গেছেন এবং তিন হাজার ৩২১ জন সুস্থ হয়েছেন।

মাগুরায় আরও ৫৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্ত তিন হাজার ১৮৪। মারা গেছেন ৬৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৪৩ জন। ঝিনাইদহে আরও ১৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্ত সাত হাজার ৮৪৮। মারা গেছেন ২০৯ জন এবং সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ৭৫৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়ায় ৪৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্ত ১৪ হাজার ৮৯৫। মারা গেছেন ৫৭৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৩০৬ জন। চুয়াডাঙ্গায় নতুন শনাক্ত ৫৭। মোট ছয় হাজার ১০৩ জনের করোন শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ১৬৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ১০৬ জন।

মেহেরপুরে ২৪ ঘণ্টায় ৭০ জনের করোনা শনাক্ত। মোট শনাক্ত তিন হাজার ৯৩৪। মারা গেছেন ১৪০ জন। আর পর্যন্ত তিন হাজার ২০৩ জন সুস্থ হয়েছেন।

পর্নোগ্রাফি থাকায় কম্পিউটার পুড়িয়ে দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

লকডাউনে দোকান খোলা রাখায় সাতক্ষীরার এক টেলিকম দোকানের মালিককে জরিমানা পর্নোগ্রাফি থাকায় কম্পিউটার পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। রবিবার (আগস্ট) বিকালে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আবাদেরহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা করেন উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান। সময় ‘রেজওয়ান টেলিকম’ নামের ওই দোকানের এক শাটার খোলা থাকায় এক হাজার টাকা জরিমানা জব্দ করা কম্পিউটার পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

সাতক্ষীরা উপজেলার শিয়ালডাঙ্গা এলাকার দোকান মালিক বলেন, ‘বিকাল ৪টার দিকে আমার বাড়িতে বিদ্যুতের সমস্যার কারণে দোকানে সরঞ্জাম নিতে আসি। সময় দোকান খোলা দেখে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসাদুজ্জামান আসেন। তিনি আমাকে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন। এরপর আমার একমাত্র আয়ের উৎস দোকানে থাকা কম্পিউটারটি জব্দ করে জনসম্মুখে পুড়িয়ে দেন। লকডাউনে আয় নেই, এর মধ্যে আমার ব্যবসায়িক কম্পিউটারটা পুড়িয়ে দিলো, কী করবো কিছু বুঝতে পারছি না।’

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসাদুজ্জামান বলেন, ‘পর্নোগ্রাফি থাকার কারণে কম্পিউটারটি ২৯২ ধারা অনুযায়ী জনসম্মুখে পুড়িয়ে ফেলা হয়।’

কুষ্টিয়ায় করোনায় আরও মৃত্যু, রেকর্ড শনাক্ত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

করোনা ডেডিকেটেড কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় নয় জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনায় সাত উপসর্গ নিয়ে দুই জন মারা গেছেন। সোমবার (আগস্ট) কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আব্দুল মোমেন তথ্য জানান। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, কুষ্টিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ১২৫টি নমুনা পরীক্ষায় রেকর্ড ৪৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে কুষ্টিয়া সদরে ১৭৬, দৌলতপুরে ৪২, কুমারখালীতে ১৪০, ভেড়ামারায় ২৫, মিরপুরে ৬৬ খোকসা উপজেলায় ৩১ জন। ডা. আব্দুল মোমেন জানান, সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২২৬ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত ১৭৯ জন। ৪৭ জন উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন।

কুষ্টিয়ায় ঠিকাদারকে প্রকাশ্যে হাতুড়িপেটা, ভিডিও ভাইরাল

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

দরপত্রে অংশগ্রহণ করায় কুষ্টিয়ায় এক ঠিকাদারকে প্রকাশ্যে হাতুড়িপেটা করেছে একদল সন্ত্রাসী। সোমবার (আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুষ্টিয়া এলজিইডি অফিসের সামনে ঘটনা ঘটে। মারধরের দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। নির্যাতনের শিকার ওই ঠিকাদারের নাম শাহিদুর রহমান মিন্টু (৪৮)তিনি কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের শানপুকুড়িয়া গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে। বর্তমানে তিনি শহরের পুলিশ লাইন্সের সামনে ভাড়া বাসায় থাকেন।

ঠিকাদার শাহিদুর রহমান মিন্টু জানান, তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত ঠিকাদার। দীর্ঘদিন ধরে ঠিকাদারি কাজ করে আসছেন। এলজিইডি, সড়ক জনপথ বিভাগ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, বিএডিসিসহ প্রায় সব দফতরেরই তার নিজ নামে লাইসেন্স রয়েছে। তিনি আরও জানান, কুষ্টিয়া এলজিইডির অধীনে প্রায় সাত কোটি টাকার মিরপুর সড়কের ঘোড়ামারা আরএসডি থেকে পোড়াদহ জিসি ভায়া মসেন রোডের দরপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ছিল চলতি বছরের মার্চ। কাজটি তিনি না পেলেও দরপত্র দাখিল করার পর থেকেই কুষ্টিয়ার প্রভাবশালী আওয়ামী লীগের এক নেতা ঠিকাদার তাকে ফোনে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে আসছিলেন।

হুমকির কারণে তিন মাস ধরে মিরপুর উপজেলার কুর্শা মসজিদ থেকে সুতাইল জোড়া ব্রিজ রোড পর্যন্ত এলজিইডির প্রায় এক কোটি টাকার রাস্তার কাজ শুরু করতে পারছেন না বলেও জানান তিনি।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করে এলজিইডি অফিস থেকে বের হন ঠিকাদার শাহিন। কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কে এসে দাঁড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে শহরের পূর্ব মজমপুর এলাকার বরকতের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাকে ঘিরে ধরে হাতুড়িপেটা শুরু করে। এক পর্যায়ে তিনি দৌড়ে এলজিইডি অফিসের ভেতরে অবস্থান নেন। হামলার দৃশ্য কে বা কারা ফোনে ধারণ করে দুপুরে ফেসবুকে ছেড়ে দিলে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

নির্যাতনের শিকার ঠিকাদার শাহিদুর রহমানের অভিযোগ, ঘটনার পর থেকে তিনি ফোনে একের পর হুমকি পাচ্ছেন। তিনি প্রাণশঙ্কায় রয়েছেন। হুমকিদাতা এবং হামলাকারীরা প্রভাবশালী হওয়ার কারণে তিনি ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করার সাহস পাচ্ছেন না।

ব্যাপারে কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাব্বিরুল আলম জানান, বিষয়টি তার জানা নেই। ব্যাপারে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

টানা বৃষ্টিতে খুলনায় আমনের বীজতলা তলিয়ে সাড়ে ১১ কোটি টাকার ক্ষতি

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা জেলায় এবার হাজার ৬৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের বীজতলা হাজার ৫৫ হেক্টর জমিতে সবজি চাষাবাদ করা হয়েছে। তবে গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় উপকূলের হাজার ৩৯৭ হেক্টর বীজতলা সবজি ক্ষেত। এতে প্রায় ১২ কোটি ১৬ লাখ টাকার ফসল নষ্ট হয়ে যায় বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর। এছাড়া বৃষ্টির পানিতে ভেসে গেছে ছোট বড় সহস্রাধিক চিংড়ির ঘের। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে গ্রামের ছোট ছোট রাস্তা। খুলনা আবহাওয়া অফিসের সূত্রে জানা যায়, ২৭ জুলাই থেকে ৩০ জুলাই পর্যন্ত চারদিন টানা বৃষ্টি হয়েছে খুলনায়। এর মধ্যে ২৭ জুলাই ১৩ মিলিমিটার, ২৮ জুলাই ৩৩ মিলিমিটার, ২৯ জুলাই ২১ মিলি মিটার ৩০ তারিখে ৫০ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, জেলায় হাজার ৮০ হেক্টর রোপা আমনের বীজতলার মধ্যে ৯৩০ হেক্টর জমির বীজতলা সম্পূর্ণভাবে নষ্ট হয়েছে। যার ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১১ কোটি ৪৮ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ২১ হাজার ৫০৮ জন কৃষক। এছাড়া ৩১৭ হেক্টরের মধ্যে ১৮ হেক্টর সবজির ক্ষেত সম্পূর্ণভাবে নষ্ট হয়েছে। এতে ক্ষতির পরিমাণ ৬৭ লাখ ৫৫ হাজার টাকা এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন হাজার ৮৩৫ জন কৃষক। কয়রা উপজেলার কৃষকরা জানান, চলতি রোপা আমন মৌসুমে উপজেলায় প্রায় ৯০ হাজার বিঘা জমিতে বিভিন্ন জাতের ধান চাষের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছেন কৃষকরা। সেজন্য হাজার বিঘা জমিতে চাষিরা ব্রি-১০, ২৩, ৩০, ৬৭, ৫২, ৮৭,৭৬ ৪৯ সহ স্থানীয় জাতের কিছু ধান বীজতলা হিসেবে জমিতে বপন করেছেন। কিন্তু চারদিনের বৃষ্টিতে প্রায় ৮০ভাগ বীজতলা পানিতে তলিয়ে যায়। এতে চলতি মৌসুমে উক্ত বীজতলা দিয়ে নির্ধারিত জমিতে ধান রোপণ সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন একাধিক কৃষক।

কয়রা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘চারদিনের টানা বৃষ্টির ফলে উপজেলার ৭০-৮০ শতাংশ বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৩-দিন পর বৃষ্টির পানি নেমে গেলে এবং সার কীটনাশক সঠিকভাবে ব্যবহার করলে তেমন সমস্যা হয় না। তবে মৎস্য চাষের এলাকা হওয়ার কারণে বিভিন্নস্থানে বাধ দেয়ার ফলে পানি নামার জায়গা পাচ্ছে না।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কৃষককে পরামর্শ দিয়েছি, তাদের বাড়িতে থাকা বাড়তি বীজগুলো দিয়ে নতুন করে অল্প জমিতে বীজতলা তৈরি করতে। যাতে পানি সরে গেলে ফসলি জমি ফাঁকা পড়ে না থাকে। যেহেতু শীত মৌসুমে এখানে ধান চাষ কম হয়, তাই পার্শ্ববর্তী উপজেলা থেকে প্রয়োজনে চারা কিনে হলেও জমিতে রোপণ করতে পরামর্শ দেয়া হয়। যাতে করে ক্ষতির পরিমাণ কিছু হলেও কমে।’

খুলনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. হাফিজুর রহমান বলেন, ‘এই ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য অন্যান্য উপজেলায় অতিরিক্ত কিছু বীজতলা করা হয়েছে। যা কয়রা দাকোপ উপজেলায় যদি আমরা সরবরাহ করতে পারি, তাহলে তারা কিছুটা হলেও লাভবান হবে। আর একটি উপায় হতে পারে, যে সব ধান দেরিতে বপন করা যায়, ধরনের ধানের বীজগুলো যদি আমরা সরবরাহ করতে পারি তবে নতুন বীজতলা করে ধান চাষের মাধ্যমে কৃষকেরা ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবে।’

আমড়া বিক্রি করা টাকায় অসহায়দের ছাতা কিনে দিলেন জেরিন

 মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

জেরিন বাবার আমড়া বিক্রি করা টাকায় কেনা ৫০টি ভালোমানের ছাতা দিলেন বৃষ্টিতে ভেজা অসহায়দের মাঝে। টানা বৃষ্টির মধ্যে বাজারে (পৌরশহরে) গিয়ে দেখেন এক সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধ ভিজে ভ্যান চালাচ্ছেন, একই বয়সের অপর আরেকজন ভিজে ভিজে ঝাল-মুড়ি বিক্রি করছেন।

গত কয়েক দিনের টানা বর্ষায় পেটের তাগিদে এরা ঘর থেকে বের হয়েছেন। সারাদিন বৃষ্টিতে ভেজা কাপড় আর শরীর একাকার হয়ে এক মানবমূর্তি মনে হচ্ছিল তাদের। দেখে মনটা খারাপ হয় জেরিনের। অভিভাবকের সঙ্গে কথা না বলেই বাবার আমড়া বিক্রি করা টাকা দিয়ে কিনে আনলেন ৫০টি ভালোমানের ছাতা। আগে দিলেন ঝাল-মুড়ি বিক্রেতা ভ্যানচালককে। এবার পুরো বর্ষায় অসহায়দের ছাতা কিনে দেওয়ার ইচ্ছার কথা জানালেন জেরিন। পুরো নাম সানজিদা জেরিন সায়ীদা। তিনি যশোরের মনিরামপুর উপজেলার মাঝিয়ালী গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে। বাবা পেশায় সহকারী তহশীলদার। জেরিন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগের পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্রী।

শুধু ছাতা দিয়ে জেরিন অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছেন তা নয়। গত বছর করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে জেরিন মাটির ব্যাংকে জমানো টাকা দিয়ে খাদ্যসামগ্রী কিনে ভ্যান ভাড়া করে অসহায়দের ঘরে নিজেই পৌঁছে দিয়েছেন। এছাড়া প্রাকৃতিক যে কোনো দুর্যোগে নিজের সাধ্যমতো অসহায়দের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়ান জেরিন। স্থানীয় জাতীয় গণমাধ্যমে বেশ কয়েকবার জেরিনের ধরনের কর্মকা- তুলে ধরে প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে।

চাঁদপুর গ্রামের মরিয়ম খাতুন বলেন, লকডাউনের সময় স্বামীর কাজ না থাহায় কষ্টের সময় চাল তরিতরকারি দিল জেরিন মা। শুধু ময়িরম নয়, খেদাপাড়া গ্রামের রুপালী খাতুন, শামছুন্নাহার, কুলছুম বেগম, জুড়ানপুর গ্রামের বিজন দাস, তাহেরপুরের তাসলিমা, রুপবানসহ একাধিক নারী-পুরুষ জেরিনের প্রশংসা করছিলেন।

জেরিন বলেন, শুধু নিজেরা ভালো থাকার মধ্যে সার্থকতা নেই। সবাইকে নিয়ে ভালো থাকার মজাই আলাদা। নিজের জমানো কিংবা বাবার কাছ থেকে নেওয়া টাকায় কেনা খাদ্য সামগ্রীসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি নিয়ে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি। ভবিষ্যতেও ধরনের কর্মকা-নিজেকে নিয়োজিত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন জেরিন।

খুলনায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিকল্পনা অনেক, বাস্তবায়ন সামান্য

স্টাফ রিপোর্টার

করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই দেশে নতুন উপদ্রব হিসেবে দেখা দিয়েছে ডেঙ্গু। ইতোমধ্যে খুলনা বিভাগে রোগটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ জন। অবস্থায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ। তবে মাঠ পর্যায়ে এর বাস্তবায়ন হচ্ছে খুবই কম। সচেতনতা এবং প্রতিরোধমূলক কার্যক্রম না চালালে খুলনায় ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বাড়ার আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্য-সংশ্লিষ্টরা।

খুলনা স্বাস্থ্য বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয় থেকে জানা গেছে, চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত খুলনা বিভাগে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ জন। এর মধ্যে ২৩ জনই আক্রান্ত হয়েছেন যশোরে। আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বাকিরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে জানা গেছে, বর্তমানে সজীব শেখ নামের এক রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ৩২ বছর বয়সী সজীব বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ জেলার কচুবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, সজীব ঢাকায় চাকরি করেন। ঈদের সময় গ্রামে এসে জরে পড়েন। পরীক্ষা করে জানতে পারেন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত। তিনি জানান, বর্তমানে হাসপাতালে দু’একজন ডেঙ্গু রোগী আসায় তাদের মেডিসিন ওয়ার্ডেই চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে রোগী বাড়লে পৃথক ওয়ার্ড করা হবে। কেসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ থেকে জানা গেছে, ডেঙ্গু প্রতিরোধমূলক কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মাইকিং লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া ওয়ার্ড পর্যায়ের শ্রমিকের বাইরে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে শ্রমিক নিয়ে নর্দমা, নালা এবং জংলা পরিষ্কার এবং মশার ডিম বা লার্ভা নিধনের জন্য ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। এছাড়া আগে ওয়ার্ড পর্যায়ে ছোট-বড় ড্রেনে লার্ভিসাইড (মশার লার্ভা নিধনের জন্য ওষুধ) স্প্রে করা হতো। এখন মানুষের বাসাবাড়ির ভেতরের ড্রেনেও লার্ভিসাইড দেওয়া এবং যে সব বাড়িতে ছাদ বাগান রয়েছে সেখানেও ওষুধ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে কেসিসি। কয়েকটি এলাকায় পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজও চলছে।

ব্যাপারে জনউদ্যোগ খুলনার আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট কুদরত খুদা বলেন, কেসিসির কোনো তৎপরতা আমার চোখে পড়েনি। ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান এবং লার্ভা নিধনের কাজে অনেক পিছিয়ে রয়েছে কেসিসি। তবে কেসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা আবদুল আজিজ বলেন, সারা বছর ধরেই মশক নিধনের কাজ চলছে। বৃষ্টির সময় মশার লার্ভা বা ডিম নিধনেই বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। লার্ভা অবস্থায় মশা মারলে সেগুলো আর বড় হতে পারে না। জুলাইতে বাইরের শ্রমিক নিয়ে ওয়ার্ডের ভেতরে ক্রাশ প্রোগ্রাম চালানো হয়েছে। এজন্য মশার প্রজনন মৌসুমেও মশা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তিনি দাবি করেন, কেসিসির ব্যাপক তৎপরতার কারণে নগরীতে এখন মশার লার্ভা পাওয়া যায়নি। লার্ভা নিধনের জন্য নতুন ওষুধ কেনা হয়েছে। সেই ওষুধ পরীক্ষার জন্য মশার লার্ভা খোঁজা হচ্ছে, কিন্তু পাওয়া যাচ্ছে না। নগরীর বাইরের খাল থেকে লার্ভা এনে ওষুধ পরীক্ষা করতে হচ্ছে।

রূপসায় মুজিব শতবর্ষ  শেখ কামালের ৭২ তম জন্মদিন উপলক্ষে আঠারোবাকি নদীর তীরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

রূপসা প্রতিনিধিঃ

মুজিব শতবর্ষ শেখ কামালের ৭২ তম জন্মদিন উপলক্ষে  অনুশীলন মজার স্কুলের উদ্যোগে রা আগষ্ট আঠারবেকি নদীর পাড় ভাঙ্গন রোধ সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য প্রায় ২০০ সুন্দরী  গোলপাতার চারা রোপণ করা হয়।  উক্ত বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রূপসা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা জনাব রুবাইয়াত তাসনিম।রূপসা উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক এর সভাপতিত্বে এবং অনুশীলন মজার স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক আলোক চন্দ্র দাস এর সঞ্চালনায়   বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন   উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জনাব মোঃ ফরিদুজ্জামান, যুব উন্নয় কর্মকর্তা আবু বকর মোল্লা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন  কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, ইউ পি সদস্য  আঃ গফুর খান,এড. আব্দুল হালিম,

 তারেক আহমেদ টিপু, আলাল শেখ প্রমূখ। 

রামপালে সাবেক সাংবাদিক মহব্বতের খাদ্য সহয়তা প্রদান 

স্টাফ রিপোর্টার

রামপাল প্রেসক্লাবের সাবেক সেক্রেটারি পশু খামারী মহব্বত গাজীর খাদ্য সহয়তা পেল ঝড়ে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত কর্মহীন ৬৫ দুঃস্ত পরিবার। সোমবার সকাল ১০ টায় উপজেলার উজলকুড় ইউনিয়নের নং ওয়ার্ড রণসেন- মিরাখালী মন্দির প্রাঙ্গনে খাদ্য সহয়তা প্রদান করা হয়। প্রেসক্লাবের সবেক সেক্রেটারি পশু খামারী মহব্বত গাজী জানান, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘূূর্ণিঝড়ে করোনায় কর্মহীন দুঃস্ত পরিবারের মাঝে সাধ্যমত পাশে থাকার চেষ্টা করছি, আগামীতে পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ।

কেশবপুরে বাল্য বিবাহ বন্ধ সহ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

আলমগীর হোসেন, কেশবপুর প্রতিনিধি

 কেশবপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রামন রোধে ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে অভিযান পরিচালনার সময়  বরণডালীতে বাল্য বিবাহ দেওয়ার অভিযোগে মেয়ের পিতা শহিদুল সরদারকে মুচলেকা করোনাকালীন লোক সমাগম করে অনুষ্ঠান করায় অপরাধে মেয়ের বাবাকে হাজার টাকা জরিমানা করেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা। এছাড়াও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা

কেশবপুর পৌরসভা সাতবাড়িয়া বাজারে দ-বিধির ১৮৬০ এর ২৬৯ ধারায় জনকে হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

  গিলাতলায় কর্মহীনদের মাঝে খুলনা জেলা  বিএনপির রান্নাকরা খাবার বিতরণ

ফুলবাড়ীগেট প্রতিনিধি

করোনার প্রাদুর্ভাবে চরম খাদ্যকষ্টে থাকা কর্মহীন মানুষের মধ্যে খুলনা জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে  ফুলতলা উপজেলা বিএনপির  উদ্যোগে   আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের নং ওয়ার্ডের গিলাতলা পাকার মাথায় আগষ্ট  সোমবার বেলা টায়  ২’মানুষের মাঝে রান্নাকরা খাবার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় খুলনা জেলা বিএনপির  সহ সভাপতি এস রহমান বাবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি শেখ ইকবাল হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ন সম্পাদক আবু হোসেন বাবু , জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ আব্দুস সালাম, ফুলতলা উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক সেলিম সরদার,  জেলা বিএনপির সদস্য গাজী ফজলুল হক, শেখ আঃ হালিম, বক্তব্য রাখেন  মিনা মুরাদ হোসেন, মোল্লা লোকমান হোসেন, মোল্লা সোহরাব হোসেন , সরদার মোস্তাক আহম্মেদ, মোকছেদ মোল্লা,  শেখ আনোয়ার হোসেন, খলিলুর রহমান,   নাসিরউদ্দিন, মোল্লা শরিফুল ইসলাম,  শেখ আলমগির হোসেন, গোলাম মোস্তফা, সরদার বিল্লাল হোসেন, মোঃ আবুল কালাম, মোঃ বাচ্চু শেখ, তাজিম হোসেন, মাসুম বিল্লাহ, গাজী হারুন, মোঃ শাহাজান, মোঃ আতিকুল  ইসলাম, মোঃ সাগর হোসেন, মোঃ সেলিম মুন্সি, শেখ মিজানুর রহমান, অনুষ্ঠান শেষে করেনা মহামারি হতে মুক্তি পাওয়ার জন্য বিশেষ দোয়ার অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়

স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার সদস্যের পিতার ইন্তেকালে শোক

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের আংটিহারা এলাকায় স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার সদস্য মোঃ মোস্তাক শেখ, মোঃ আহম্মাদ শেখ মোঃ সোহাগ শেখের পিতা মোঃ ইসলাম শেখ (৮০) স্ট্রোকজনিত কারণে রবিবার (আগস্ট) দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা এবং বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার সভাপতি মোঃ আবু সাঈদ খান সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমানসহ সংগঠনের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। মরহুমকে মহান আল্লাহ্ জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান হিসেবে কবুল করুন সেই দোয়া করেছেন সকলেই।#

মহম্মদপুরে ৪৮ পিচ ইয়াবাসহ যুবক আটক

মোঃ সজিবুর রহমান, মাগুরা

মাগুরার মহম্মদপুরে আবুল কাশেম (৩২) নামে এক যুবককে ৪৮ পিচ ইয় াবাসহ আটক করেছে মহম্মদপুর থানা পুলিশ। রবিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ওই যুবককে আটক করা হয় আবুল কাশেম ওই গ্রামের  আফজাল খাঁনের ছেলে। জানা যায়, উপজেলার বালিদিয়া ইউনিয়নের হরেকৃষ্ণপুর এলাকায় মাদক কেনাবেচা হচ্ছে এমন সংবাদদের  ভিত্তিতে মহম্মদপুর থানা পুলিশের এসআই তারেক হাসানের নেতৃত্বে, এএসআই লিয়াকত শরিফ, এএসআই কামরুলসহ সঙ্গীয় ফোর্সদের নিয়ে অভিযান পরিচালনা করেন। পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে মাদক কারবারিরা পালাতে গেলে আবুল কাশেমকে ধরতে সক্ষম হয় পুলিশ। এসময় তার দেহ তল্লাশি করে ৪৮ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। মহম্মদপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, আটক মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ মামলা দিয়ে  আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

জাতীয় শোক দিবস পালনে রূপসা উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রস্তুতিমূলক সভা

রূপসা প্রতিনিধি

রূপসা উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা আজ আগষ্ট সকালে রূপসা উপজেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়।সভায় সভাপতিত্ব করেন রূপসা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান,উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ কামাল উদ্দীন বাদশা। বক্তৃতা করেন,জেলা কৃষকলীগ সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুজ্জামান বাবুল, আওয়ামীলীগ নেতা আঃ মজিদ ফকির, উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান মোল্যা,খান শাহাজান কবীর প্যারিস,মোরশেদুল আলম বাবু,উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ইমদাদুল ইসলাম,  ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা আফরোজ মনা,উপজেলা  আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম হাবীব।  জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম কামরুজ্জামানের পরিচালনা উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আকতার ফারুক, ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইসহাক সরদার, আওয়ামীলীগ নেতা গোপাল মন্ডল, নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক,সাধারন সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বুলবুল,আওয়ামীলীগ নেতা রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস, বিনয় কৃষ্ণ হালদার,আরিফুজ্জামান লিটন,জেলা যুবলীগের সহ- সভাপতি আজিজুল হক কাজল, উপজেলা কৃষকলীগের আহবায়ক অধ্যাপক দীনবন্ধু বর্দ্ধন, সদস্য সচিব আঃ মান্নান শেখ,উপজেলা যুবমহিলালীগের সাধারণ সম্পাদক শারমিন সুলতানা রুনা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি রুহুল আমিন রবি, সাধারণ সম্পাদক রাজীব দাস টাল্টু,মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী রিনা পারভিন, জেলা যুবলীগ নেতা আশিষ রায়, তাহিদ ইসলাম মোল্যা,ফ,আয়ূব আলী,যুবলীগ নেতা শাহনেওয়াজ কবীর টিংকু,আবুল কালাম আজাদ, লিটন সরকার,নাহিদ শেখ,বাবু শিকদার প্রমূখ।

রূপসায় অসুস্থ সাংবাদিকের বাড়িতে  উপজেলা প্রশাসনের উপহার

রূপসা প্রতিনিধি

রূপসা উপজেলা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সদস্য পূর্বাঞ্চল পত্রিকার পশ্চিম রূপসা সংবাদদাতা এইচ এম রোকন তার সহধর্মিনী করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে। রূপসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবাইয়া তাছনিম তাদের অসুস্থতার খবর পেয়ে তার নিদের্শে প্রশাসনের কর্মকর্তা উপহার সামগ্রী নিয়ে আগষ্ট দুপুরে সাংবাদিকের বাড়িতে হাজির হন। সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুম বিল্লাহ, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আ. রাজ্জাক শেখ, নাজির নূরুল ইসলামসহ অনেকেই। উপজেলা প্রশাসনে এই মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানালেন সুধীজন গণমাধ্যম কর্মীরা।

ভেড়ামারা ৪১০ মেঃওঃ কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎ কেন্দ্র ভেড়ামারা ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালকে টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান

মোঃ রেজাউর রহমান তনু কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেডের পক্ষ হতে করোনায় আক্রান্ত জনগণের চিকিৎসা সেবা প্রদানের সুবিধার্থে দুপুরে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আনুষ্ঠানিক ভাবে হস্তান্তর করেন।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীনেশ সরকার, জাসদ কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল আলিম স্বপন, ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নূরুল আমিন, বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম, ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রভাষক জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল প্রমুখ।

উল্লেখ্য,নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লি: এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) প্রকৌশলী এ. এম. খোরশেদুল আলমের একান্ত আন্তরিকতায় এই টি অক্সিজেন কনসেনট্রে প্রদান হয়। এর আগে ভেড়ামারা ৪১০ মেঃওঃ কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্যোগে করোনা মোকাবেলায় গরিব অসহায় জনগণের সাহায্যার্থে দুই পর্যায়ে প্রায় ১০০০ বস্তা খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কর হয়েছে এবং ০৫ টি ঐরময ঋষড়ি ঘধংধষ ঈধহহঁষধ কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে অত্র বিদ্যুৎ কেন্দ্রে তৈরিকৃত প্রায় নয় হাজার (৯০০০) বোতল হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে বিতরণ করেন। “নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড” বিদ্যুৎ বিভাগের আওতাধীন কোম্পানি হিসেবে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পাশাপাশি সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে বিভিন্ন সময়ে বন্যা দূর্গত দূস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ, আর্থিক সহায়তা প্রদান, গরিব অসহায়দের মাঝে ভ্যান, সেলাই মেশিন প্রদান, গৃহহীনদের গৃহ নির্মাণসহ বিভিন্ন ধরনের সহায়তা প্রদান করে আসছে। বর্তমানে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশে এই মহামারী মোকাবেলা করা সরকার কিংবা একা কারো পক্ষে সম্ভব নয়। সম্মিলিত প্রচেষ্টাই এই মহাসংকট উত্তোরণের পথ হতে পারে। তাই সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে “নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড” পূর্বের ন্যয় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কোম্পানি তাঁর ঈঝজ ঋঁহফ থেকে ঈড়ারফ-১৯ আক্রান্ত জনগণের চিকিৎসা সেবা প্রদানের সুবিধার্থে টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেন এই ক্ষুদ্র প্রয়াস থেকে করোনায় আক্রান্ত জনগণের চিকিৎসা সেবা প্রদানে কিছুটা হলেও সহায়ক হবে। সমাজের সকলে তাঁর নিজ নিজ স্থান হতে এই মহামারী মোকাবেলায় সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিবেন।

মহেশপুরে পৌর মেয়রের উদ্যোগে ভ্যান শ্রমিকদের মাঝে চাল,ডাল আলু বিতরণ

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ

মহামারী করোনার মধ্যে বাড়ীতে বসে থাকা পৌর এলাকার তিন হাজার অসহায় ভ্যান শ্রমিকদের মধ্যে চাল,ডাল আলু বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খানের উদ্যোগে ঝিনাইদহের মহেশপুর অডিটোরিয়ামে ভ্যান শ্রমিকদের মাঝে চাল,ডাল আলু বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ঝিনাইদহ-আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শফিকুল আজম খান চঞ্চল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান,পৌর কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র রুহুল আমিন মিন্টু,শ্যামাপদ হালদার,জাহাঙ্গীর আলম, আব্দুস সালাম,সাংবাদিক অসীম মোদক প্রমুখ।

পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান জানান, আমার পৌর এলাকার কোন আসহায় শ্রমিকরা মহামারী করোনার মধ্যে কেউ যেন কষ্টে না থাকে সে জন্যই আমি তাদেরকে চাল,ডাল আলু দিয়েছি।

করোনা প্রতিরোধে সামনের সারির যোদ্ধা ডাঃ শুভাশীষ সাহা শুভ

মোঃ রেজাউর রহমান তনু, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি 

করোনাভাইরাস মহামারির শুরুর দিক থেকে প্রথম সারির যোদ্ধা হয়ে মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা। জীবন বাজি রেখে তারা লড়ে যাচ্ছেন অদৃশ্য এক শক্তির বিরুদ্ধে। করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীকে সরাসরি নিরলস ভাবে সেবা দিতে হচ্ছে চিকিৎসকরা। পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রাণও গেছে অনেকের।

অন্য চিকিৎসকদের মতো করোনার বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছেন। ভেড়ামারা ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ডাক্তার শুভাশীষ সাহা শুভ। তিনি পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন নির্ভয়ে। তাঁর একটাই কথা-চিকিৎসক হওয়ার শপথ যখন নিয়েছি তখন মানুষের সেবা দিয়েই যাব।

জানা যায়, রাজশাহীর ছেলে ডাক্তার শুভাশীষ সাহা শুভ ২০১৭ সালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করেন। তার দায়িত্বে কোনো সময় ছিল না অবহেলার ছাপ। জরুরি প্রয়োজনে দূর-দূরান্ত থেকে আসা মানুষজন সবসময় তাকে পাশে পেয়েছে। করোনাভাইরাসের শুরু থেকেই ডাঃ শুভাশীষ সাহা শুভ অত্যন্ত আন্তরিকতা সাহসিকতার সাথে রোগী দেখেন। করোনার প্রথম সারির যোদ্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগ বহির্বিভাগে থেকে ১০ ঘন্টা রোগীর সেবা দেওয় ার পরেও অন্তঃবিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবাই নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। সেই সাথে নিয়মিত টেলিমেডিসিন সেবাও প্রদান করে যাচ্ছেন।

ডাঃ শুভাশীষ সাহা শুভর বাবা সুকুমার সাহা বলেন, ‘আমার ছেলে ছোটবেলা থেকেই ডাক্তার হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করতো। সে তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছে। এটি আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। করোনা পরিস্থিতিতে সে সাহসিকতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে, তা নিয়ে আমার আলাদা করে কিছু বলার নেই। তারা ডাক্তার, তাদের কাজ মানুষের সেবা দেয়া। আমরা শুধু বলতে পারি, তোমরা সাবধানে থেকো।

ডাঃ শুভাশীষ সাহা শুভ নিষ্ঠা, আন্তরিকতা মানবিকতা দেখে তাকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এর ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটের দায়িত্ব প্রদান করা হয়। তিনি বর্তমানে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর করোনা ওয়ার্ডে অত্যন্ত সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

করোনা যুদ্ধের সামনের সারির এই যোদ্ধা বলেন, এটা আসলে অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা। করোনাভাইরাসের মতো এমন ভাইরাস আগে কখনও আসেনি। সেহেতু এটা নিয়ে কাজ করা একদমই নতুন অভিজ্ঞতা। পরিবার থেকে কখনও অসহযোগিতা পাইনি। বরং তাদের অনুপ্রেরণা আমাকে আরও বেশি সাহস জুগিয়েছে। সরকারের সহযোগিতার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে পিপিই, মাস্ক হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ বিভিন্ন উপকরণ পাচ্ছি।

একমাত্র সচেতনতাই পারে করোনাভাইরাসের এই ভয়াল থাবা থেকে মুক্ত করতে। মুখে সবসময় মাস্ক পরিধান সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এগুলো সব সময় সবার করা উচিত বলে মনে করেন করোনা যুদ্ধের এই সম্মুখযোদ্ধা।


Post Views:
2



নিউজের উৎস by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102