মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন

গরু পালনে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ব্যবহারে যেসব সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে | Adhunik Krishi Khamar

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট, ২০২১




গরু পালনে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ব্যবহারে যেসব সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে তা আমাদের জেনে রাখা দরকার। লাভজনক হওয়ার কারণে দিন দিন আমাদের দেশে গরু পালনকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গ্রামাঞ্চলে এখন অনেকেই গরুর খামার করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী হচ্ছেন। গরু পালন করার সময় অনেকেই মাত্রাতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ব্যবহার করে থাকেন। এতে পরবর্তীতে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হয়। আজকে আমরা জেনে নিব গরু পালনে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ব্যবহারে যেসব সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে সেই সম্পর্কে-

গরু পালনে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম ব্যবহারে যেসব সমস্যার সৃষ্টি হতে পারেঃ


ক্যালসিয়ামের সবচেয়ে বেশী ব্যবহার হয় দুধ উৎপাদনে এছাড়া হাড় উৎপাদন ছাড়া সামান্য ব্যবহার হয়। ক্যালসিয়ামের অভাব জনিত ” মিল্ক  ফিভার ” রোগটি দেখা যায় শুধুমাত্র বাচ্চা দেবার সামান্য পুর্বে অথবা সামান্য পরে।

মিল্ক ফিভার হলে গরু কিছুই খায়না। এছাড়াও কিছু লক্ষণ আছে যাহ আমরা জানি শরীর খাবার থেকে যে ক্যালসিয়াম সিনথেসিস করে তা শরীরে শোষনের জন্য ভিটামিন- ডি প্রয়োজন। এই জন্য সব সময় ছায়াযুক্ত স্থানে অবস্থানকারী গাভীতে খুব বেশী মিল্ক ফেবার দেখা যায়। এজন্য গাভীকে বা গবাদিপশুকে বাহিরের  রোদে একটু হাটানো গেলে এই সম্যসা একটু কম হবে।

অবশ্য কখনও কখনো অল্প দুধের দেশী গরুর যার অনেকগুলো বাচ্চা হয়ছে তারো মিল্ক ফেবার দেখা যায়। লেখার উদ্দেশ্য ইদানিং গাভীর দুধ বাড়ানোর জন্য খামারী ভাইয়েরা লিকুইড ক্যালসিয়াম পর্যাপ্ত পরিমানে খাওয়ায় সব গাভীর সমস্যা না হলেও আপনি খামারে যেয়ে দাড়ানো অবস্থায় গাভী দেখলে বলতে পারবেন কোন গাভীকে মুখে ক্যালসিয়াম খাওয়ানো হয়। তাদের পিঠ ধনুকের মত বাকা হয় এবং মাংস পেশী কোন কোন গাভীর এত শক্ত হয় যে ২ ইঞ্চির বেশি পা বাড়াতে পারেনা।

কারণ, থিওরিটিক্যাল যেমন রক্তে ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়ামের অনুপাত ১২ : ৬ এবং ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস এর অনুপাত ২ : ১। যেহেতু ক্যালসিয়াম বেশি খাওয়ানো হয়ছে তাই অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম পেশী ম্যাগনেসিয়াম টেনে নিয়ে ব্লাডে কনজুগেশন করেছে ফলে মাংসপেশিতে ম্যাগনেসিয়াম ঘাটতি হয়ে হাইপোম্যাগনেসেমিক টিটেনি করেছে ফলে পায়ের মাংস পেশি শক্ত হয়ে গাভী হাটতে পারছেনা।

গর্ভবতী গাভীকে যখন লিকুইড ক্যালসিয়াম খাওয়ালে তার মাংশ পেশী ফুসফুস শক্ত হয় ফলে গাভীর উঠতে কষ্ট হয়। গ্রাম্য চিকিৎসক রা  তখন ঘাটতি মনে করে আরো ক্যালসিয়াম ইনজেকশন করে ফলে উঠাতো দুরে থাক গাভী শক্ত হয়ে যাওয়ায় এক পাশে কাত হয়ে পড়ে যায় একেই বলে হাইপারক্যালসেমিয়া।


আরও পড়ুনঃ তীব্র শীতে খামারের গরুগুলোকে রক্ষায় জরুরী ব্যবস্থাপনা


লেখাঃ ডাঃ আজহার


ডেইরি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার









Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102