শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১২:১১ পূর্বাহ্ন

রংপুরে একই জমিতে ৪ ফসলের চাষ, লাভবান হচ্ছেন চাষিরা | Adhunik Krishi Khamar

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট, ২০২১


ফজলুর রহমান,রংপুরঃ রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার বড়বিল ইউনিয়নের ঠাকুরাদহ গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক একই জমিতে এক সাথে ৪ রকমের ফসল চাষ করে ৪ গুনের অধিক লাভের আশা করছেন । তিনি পেশায় গঙ্গাচড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এর সিনিয়র স্টাফ নার্স। মসলা জাতীয় ২ ধরণের আদা ও মরিচ এবং সবজি জাতীয় ২ ধরণের বেগুন ও ঢেড়শ রয়েছে।

জমিতে থাকা ঢেড়শ মাস খানেক থেকে উত্তোলন করে পরিবার চাহিদা মিটিয়ে আত্বীয়স্বজনদের দিচ্ছেন। বেগুন গত ২ সপ্তাহ থেকে উত্তোলন করে পরিবার ও আত্বীয়দের চাহিদা মিটানোসহ প্রায় ৮০ কেজির মত দেড় হাজার টাকায় ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করেছেন। মরিচ এক সপ্তাহের মধ্যে উত্তোলন করা যাবে বলে তিনি জানান।

তিনি বাড়ির পাশে ১৫ শতক জমিতে বাড়ির জৈব সার দিয়ে চাষ করে ৮ হাজার টাকার আদা কিনে রোপন করেন। ওই আদা ক্ষেতে ১০০ বেগুন চারা ২০০ টাকায় ও ৭৫টি মরিচ চারা ৭৫ টাকায় এবং ৫ টাকার ঢেড়শ বীজ কিনে ৫০ টা ঢেড়শ চারা রোপন করেন।

আব্দুর রাজ্জাক জানান, তিনি পরিকল্পনা মোতাবেক আদা, বেগুন, মরিচ ও ঢেড়শ চারা রোপন করেন। এতে তার বেশী একটা খরচ হয়নি। সঠিক যত্ন ও সঠিক সময়ে স্প্রে করেছেন। ।

রোপনের জন্য ৮ হাজার টাকা আদা কিনেছেন, বেগুন চারা ২০০ টাকার, মরিচ চারা ৭৫ টাকা ও ঢেড়শ বীজ ৫ টাকা, শ্রমিক বাবদ ১ হাজার ৬০০ টাকা ও বেড়া বাবদ ৩ হাজার টাকা, জমি চাষ বাবদ ৪০০ টাকা এবং স্প্রে বাবদ খরচ হয়েছে ৮০০ টাকা মাত্র। সবমিলে তার খরচ হয়েছে ১১ হাজার ৮০ টাকা।

এর মধ্যে আদার গাছ সবল হওয়ার পর রোপনকৃত আদা (পিলাই) মাটি থেকে তোলে ৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন। আর বেগুন বিক্রি করে পেয়েছেন দেড় হাজার টাকা। আরো প্রায় ৫ মাস বেগুন উত্তোলন করা যাবে এবং বেগুন বিক্রি করে প্রায় ১২ থেকে ১৩ হাজার টাকা পাবেন বলে আশা করছেন। যা তার সব খরচ বেগুনে উঠেও লাভ হবে। এছাড়া অন্যান্য সবজিতে প্রয়োজনীয় চাহিদা মিটিয়ে শুধু আদা বিক্রি করে করে ৫০ হাজারের বেশী টাকা আয় করতে পারবেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলাম বলেন, সরকার কৃষিকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে আধুনিক চাষাবাদ করতে কৃষি বিভাগকে দিক নির্দেশনা দিয়েছে। একই জমিতে এক সাথে পুষ্টি ও মসলা জাতীয় বিভিন্ন ফসল সম্ভব হচ্ছে। এতে পুষ্টির চাহিদা পূরণসহ লাভবান হচ্ছে কৃষক।

রংপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ ওবায়দুর রহমান মন্ডল বলেন, রংপুর জেলায় ৪ সফলি জমি ১৫শ ৯৯ হেক্টর। এসব জমিতে চার সফলি জমি হিসেবে আছে।



Source by [সুন্দরবন]]

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Recent Posts

© 2022 sundarbon24.com|| All rights reserved.
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102