শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
চালের বস্তায় নিষিদ্ধ পলিব্যাগের ব্যাবহার ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই ব্যবসায়ীকে ৩০হাজার টাকা জরিমানা মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশন পুশ করায় রোগীর শরীরে জ্বালাযন্ত্রনা ফার্মেসী সিলগালা:পলাতক গ্রাম্য চিকিৎসক বাংলাদেশকে জানতে হলে আগে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে ….এমপি মিলন সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে মোংলায় বিক্ষোভ মিছিল সারা খুলনা অঞ্চলের সব খবরা খবর নদীর পাড়ে শাড়ি পরে দুর্দান্ত ড্যান্স দিলো সুন্দরী যুবতী যুদ্ধের ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়েও বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি কাঠামো দাঁড় করিয়েছেন – মোস্তাফা জব্বার – টেক শহর বিশ্বকাপে পর্তুগালকে ফেবারিট মানছেন আর্জেন্টাইন তারকা – স্পোর্টস প্রতিদিন বিশ্ববাজারে আবারও কমল জ্বালানি তেলের দাম গর্তে লুকিয়ে থাকা ইঁদুরটি দেখলো চাষী ও তার স্ত্রী দুজনে মিলে

জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য করণীয়

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৭ আগস্ট, ২০২১

জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য করণীয়জীবনকে সুন্দরভাবে গড়তে চাই আমরা সবাই। সফল এবং সুখময় একটি জীবনের জন্য আমাদের প্রতিনিয়ত ছুটে চলা। তবে, ঘাত প্রতিঘাত নিয়েই আমাদের এ জীবন।

সফলতার সাথে ব্যর্থতাও আসবে। ব্যর্থতা আছে বলেই সফলতার স্বাদ এত মিষ্টি।

প্রতিদিনের লড়াই শেষে আবার একটি সোনালী দিন আসবে, এটাই আমাদের বিশ্বাস ও আশা। আর তাই নিরন্তর আমাদের এই ছুটে চলা।

সফল হতে কে না চাই?

প্রতি ১০০ জনকে সফল হতে চায় না কি, সেটা জিজ্ঞেস করলে ১০০ জনই উত্তর দিবে, হ্যাঁ আমি সফল হতে চাই। সফলতা সহজে আসে না। এর জন্য জীবন যাত্রায় পরিবর্তন আবশ্যক। আপনি ইতিবাচকভাবে জীবনে পরিবর্তন আনতে পারলে সফলতাও আপনার জীবনে আসবেই।

জীবন খুব সহজ নয়। আপনাকে ভাল কিছু পেতে হলে, অবশ্যই ভাল কিছু দিতে হবে। এটাই জীবনের নিয়ম।

গতকাল আপনি যা করেছেন, আজও যদি তাই করেন তবে ফলাফল নিশ্চয় একই রকম হবে। একই রকম কাজ করে, ভিন্ন ভিন্ন ফলাফল আশা করা বোকামি।

সুতরাং ভিন্ন ফলাফল পাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনার মধ্যে পরিবর্তন আনতে হবে।

যেমন ধরুন, আপনি খুব সুন্দর গোছানো একটি দিন চান। সময় মতো সব কাজ করতে চান। কিন্তু প্রতিদিনই আপনি সকাল ১১ টার পর ঘুম থেকে ওঠেন।

ফ্রেশ হয়ে নাস্তা খেতে খেতে আপনার ১২ টা বেজে যায়। আপনার পরিবার যখন দুপুরের খাওয়ার জন্য আপনাকে ডাকবে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার ক্ষুধা অনুভ’ত হবে না।

আপনার দিন কিন্তু ইতিমধ্যেই অগোছালো নিয়মে চলছে। আপনার পরিবারের অন্যদের সাথে তাল মিলিয়ে সেই দিন চলতে স্বাভাবিক ভাবেই আপনার কষ্ট হবে।

আপনি আপনার পরিকল্পনায় ব্যর্থ হলেন। আপনার জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য আপনাকেই কাজ করতে হবে। আরো একটি উদাহরণ দেই, আপনি প্রতিদিনই ভোরে ঘুম থেকে উঠতে চান কিন্তু রাতে দেরি করে ঘুমাতে যান।

তাহলে কি সেটা সম্ভব হওয়ার সুযোগ আছে? আপনি কষ্ট করে পরপর৩ দিন যদি তাড়াতাড়ি ঘুমাতে যান এবং কষ্ট করে হলেও সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠেন তবে চতুর্থ দিন আপনার কষ্ট তুলনামূলক কম হবে এবং আস্তে আস্তে ভোরে ঘুম থেকে উঠা আপনার অভ্যাস হয়ে যাবে।

সাময়িক একটু কষ্ট, লক্ষ্যেরও প্রতি আপনার একাগ্রতা এবং আপনার চেষ্টাই আপনার জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবে।

একদিনে কিছুই হয় না। আবার প্রতিদিন একটু একটু চেষ্টা করলে অসম্ভবকেও মানুষ সম্ভব করে তুলতে পারে।

আপনার লক্ষ্য, উদ্দেশ্য আলাদা আলাদা হতেই পারে। তবে, সুন্দর জীবন এবং সফল হওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে।

জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার জন্য আপানকেই উদ্যোগ নিতে হবে।

আপনি হয়তো অনেক হতাশবোধ করছেন। জীবনে পরিবর্তন চাইছেন কিন্তু পারছেন না, আরো হতাশ হয়ে যাচ্ছেন। এমন অনেক সময় হয়। ঘাবড়ে যাবেন না। আজ আমরা জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে কি কি করণীয় সে বিষয়ে আলোচনা করবো।

১। জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য নেতিবাচক লোকদের থেকে দূরে থাকুন

জীবনে অনেক লোক দেখবেন, যারা কখনোই কাউকে উৎসাহ দেয় না, বরং নিরুৎসাহিত করে। এরা সবসময় আপনাকে বোঝাবে যে আপনি পারবেন না। ভয়কে আপনার  মনের মধ্যে ঢুকিয়েই ছাড়বে।

কথায় বলে, যিনি আপনাকে বলছেন আপনি এটা পারবেন না তার অর্থ তিনি কখনো নিজে চেষ্টা করেন নি অথবা তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। ১০০ জন পারে নি বলে আপনিও পারবেন না এমন কোন কথা নেই। যত দ্রুত সম্ভব এসব মানুষের সংস্পর্শ ত্যাগ করুন।

এরা আপনাকে কখনোই উপরে উঠতে দিবে না। প্রতিনিয়ত এদের সাথে থাকলে, আপনি ক্রমাগত হতাশার সাগরে তলিয়ে যাবেন। এখনই কাগজ কলম হাতে নিয়ে নেতিবাচক এই মানুষদের লিস্ট তৈরি করুন এবং তাদের থেকে দূরে থাকুন।

২। লক্ষ্যে অটুট থাকুন 

আপনার নিশ্চয় জীবনের একটি লক্ষ্য আছে। যদি না থাকে তবে এখনই জীবনের লক্ষ্য নির্ধারন করুন। আজ থেকে ৫ বছর পর নিজেকে আপনি কোথায় দেখতে চান, সেটি ঠিক করে কাজে নেমে পড়ুন।

যে যাই বলুক, আপনি আপনার লক্ষ্য থেকে সরে আসবেন না। মনে রাখবেন যেখানে আপনি যেতে চান, সেখানে পৌঁছাতে হলে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে কোথায় আপনি নিজেকে দেখতে চান। অন্ধের মতো ছুটে বেড়ালে সফলতা আসবে না।

৩। ভুল থেকে শিখুন

ভুল করে না এমন মানুষ নেই। সবাই আমরা ভুল করি। আমরা কেউ এত অভিজ্ঞ নই যে, সবসময় সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি। নতুন হলে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা আরো বেশি থাকে। কিন্তু বুদ্ধিমান মানুষ চাইলে ভুল থেকেই সফলতার গল্প শুরু করতে পারে।

প্রথমে বিশ্বাস করুন, ব্যর্থতা সফলতারই একটি অংশ। আপনি কোথাও ব্যর্থ হলে বা কোন ভ’ল করলে, ২ মাস সেই ভ’লের জন্য শোক পালন করতে পারেন।

আবার ভ’লটিকে যথাযথ ভাবে বিশ্লেষণ করে ২ মাসে নতুন সফলতার গল্প তৈরী করতে পারেন। পছন্দ আপনার!

ভুল করলে ঠান্ডা মাথায় ভাবুন কেন এমন হল, কি কি শিখতে পারলেন আপনি এই ব্যর্থতা থেকে। সেই শিক্ষাকেই পরবর্তী সময় কাজে লাগান।

অভিজ্ঞতা এমন জিনিস যা আপনি টাকা দিয়েও কিনতে পারবেন না।

৪। নিজের ওপর বিনিয়োগ করুন

জীবনে শেখার কোন শেষ নাই। সেই কোন শিশুকাল থেকে আমরা শিখছি তবু আজও কত কিছু অজানা।

তাই জ্ঞান অর্জন করুন সবসময়, নিজের ওপর বিনিয়োগ করুন। শেখার জন্য, নিজেকে সমৃদ্ধ করার জন্য টাকা খরচ করতে দ্বিধা করবেন না।

মনে রাখবেন টাকা দিয়ে আপনি অভিজ্ঞ লোক নিয়োগ করতে পারবেন কিন্তু সেই লোক আপনাকে তার ১০০% দেওয়ার চেষ্টা করবে, যখন সে জানবে আপনিও বিষয়টি জানেন এবং আপনি তার উপর সম্পূর্ণ নির্ভরশীল না।

সে নিজ থেকেই আপনার জন্য সবচেয়ে ভাল সার্ভিস দেওয়ার চেষ্টা করবে। নিজের বিনোদন, ভাল লাগা এসব বিসর্জন দিবেন না।

আপনি প্রফুল্ল থাকলে যে কোন কাজ আরো সুন্দর ভাবে করতে পারবেন। সুতরাং নিজের ভাল লাগা গুলোকে প্রাধান্য দিন।

৫। নম্র হন এবং সাহায্য করুন

অহংকারীকে কেউই পছন্দ করে না। জীবনে অর্জনের জন্য আপনি কঠোর পরিশ্রম  করেছেন তা সত্যি। কিন্তু মহান সৃষ্টিকর্তার সাহায্য ছাড়া কিছুই সম্ভব নয়।

আপনার অর্জনের পিছনে আপনার পরিবার, শিক্ষক মন্ডলী, বন্ধুবান্ধব, শুভাকাংঙ্খী এবং সমাজের অবদান আছে। একথা কখনোই ভুলে যাবেন না।

সুন্দর ব্যবহার মানুষের কাছে আপনার গ্রহণযোগ্যতা বাড়াবে। বিনয় এমন এক জিনিস যা মানুষকে আরো সুন্দর করে তোলে।

সাধ্যমত মানুষকে সাহায্য করুন। আজ আপনি কাউকে সাহায্য করলে, সেই সাহায্য আবার কোন না কোনভাবে আপনার কাছে ফিরে আসবে।

সবসময় সাহায্য করতে টাকা লাগে এটি ভুল ধারণা। সৎ পরামর্শ, ভালোবাসার স্পর্শ,  মিষ্টি হাসি, যোগাযোগ রাখা এসবের মাধ্যমেও মানুষকে সাহায্য করা যায়। মনে রাখবেন, বিপদের দিনে যে পাশে থাকে, অকৃতজ্ঞ না হলে মানুষ তাকে কখনোই ভুলে যায় না।

ছোট ছোট কিছু পরিবর্তনই আমাদেনর জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। হতাশ না হয়ে তাই চেষ্টা চালিয়ে যান। জীবন যুদ্ধ কঠিন । নিজেকে বিশ্বাস করুন।

আপনি পারবেন, আপনিই পারবেন একথা বিশ্বাস করুন মনপ্রাণ দিয়ে। আত্মবিশ্বাসী মানুষ কখনো হেরে যায় না। সফল হওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রাখুন। কেননা সততা, নিষ্ঠা, কঠোর পরিশ্রম দিয়ে চেষ্টা করলে সফলতা ধরা দিবেই। অবশ্যই পরুন – স্বপ্ন দেখুন প্রাণ খুলে, সফলতা আসবেই আপনার দুয়ারে

সবসময় ন্যায় ও সত্যের পথে থাকার চেষ্টা করবেন। অসৎ উপার্জন আপাতত দৃষ্টিতে সহজ হলেও স্থায়িত্ব কম এবং মনে রাখবেন আমাদের সবাইকেই একদিন স্রষ্টার কাছে প্রতিটি কাজের জন্য জবাবদিহিতা করতে হবে। লক্ষ্য স্থির করে চেষ্টা করলে সফলতা অধরা থাকবে না। ইউটিউব চ্যানেল থেকে ঘুরে আসুন – Bangla Preneur



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি

Recent Posts

সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102