শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৪১ অপরাহ্ন

গাভীর ওলান প্রদাহ রোধে খামারিদের করণীয় | Adhunik Krishi Khamar

  • আপডেট সময় সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২০
গরু


গাভীর ওলান প্রদাহ রোধে খামারিদের করণীয় কি কি কাজ রয়েছে সেগুলো খামারিদের জেনে রাখা দরকার। বর্তমানে অধিক লাভের আশায় অনেকেই খামারে গাভী পালন করছেন। গাভী পালন করার সময় বিভিন্ন জটিল সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। আসুন আজকে জানবো গাভীর ওলান প্রদাহ রোধে খামারিদের করণীয় সম্পর্কে-

গাভীর ওলান প্রদাহ রোধে খামারিদের করণীয়ঃ


পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন খামারঃ


গরুর খামার সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। যাতে করে গাভী সব সময়ে স্বস্তিতে থাকতে পারে। গাভী যদি স্বস্তিতে থাকে তাহলে অক্সটসিন হরমোন ভালোভাবে নির্গত হতে পারে। গাভীর মাথা থেকে নিসৃত এই হরমোন অধিক বেশি দুধ উৎপাদনে ব্যাপক ভূমিকা রাখে।

খামারে ফ্লোরটি নিয়মিইত ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। খুব গরম, খুব আর্দ্র আবহাওয়ায় গাভীটি যাতে স্বস্তিতে থাকে সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। যদি গাভীর জন্য কোনো ধরনের বিছানা দেওয়া হয় তবে সেটা যেন অজৈব পদার্থ দিয়ে তৈরি হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণে অজৈব পদার্থে ক্ষতিকর জীবাণু কম জন্মায়।

ওলান পরিস্কার রাখাঃ


খামার ম্যাস্টাইটিস মুক্ত রাখতে হলে গাভীর ওলান অবশ্যই পরিষ্কার রাখতে হবে। দুধ দোহনের আগে অবশ্যই দুধের বাঁটগুলো ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। এর ফলে দুধ দোহনের সময় ওলানে এবং বাঁটে লেগে থাকা ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়াগুলো বাঁটের ভেতর ঢুকতে পারে না।

ওলানের জন্য ক্ষতিকর বিভিন্ন জীবাণু পানির মাধ্যমেও পরবাহিত হতে পারে। তাই পানি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। যেসব ওলানে বা বাঁটে অতিরিক্ত কাদা-গোবর লেগে থাকে, সেসব ক্ষেত্রে পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুতে হবে। পানি জোরে জোরে দেওয়া যাবে না। আর চেষ্টা করতে হবে পানি যত কম ব্যবহার করা যায় ততই ভালো।

দুধ দোহনের পূর্বে বাঁট পরিষ্কার করাঃ


যেকোনো একটা ভালো জীবাণুনাশোক দিয়ে দুধ দোহনের পূর্বেই বাঁটগুলো ডুবিয়ে নিতে হবে। এর ফলে ওলানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ক্ষতিকর জীবাণুর পরিমাণ কমবে। যার ফলে বাটে ম্যাস্টাইটিস হবার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যাবে। কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড জীবাণুনাশক এর মধ্যে দুধের বাঁট ডুবিয়ে রাখতে হবে। জীবাণুনাশক দিয়ে স্প্রে করার চেয়ে ডুবিয়ে রাখলে ফল বেশি পাওয়া যায়।

বাঁট মুছে ফেলাঃ


জীবাণুনাশকে ডুবানোর পর সেই বাঁট পরিষ্কার তোয়ালে বা কাপড় দিয়ে মুছে শুষ্ক করে ফেলতে হবে। যদি সম্ভব হয় তাহলে প্রতিটি গরুর জন্য আলাদা আলাদা কাপড় বা তোয়ালে ব্যবহার করলে ভালো। খেয়াল করতে হবে যেন ওলান বা বাঁটের মুখে কোনো ধরনের মাটি, গোবর বা অন্য কোনো পদার্থ লেগে না থাকে।


আরও পড়ুনঃ গরুর খাদ্য প্রস্তুত করার আগেই যা জানা…


লেখাঃ ডাঃ মোঃ শাহীন মিয়া


ডেইরি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102