রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম

নির্বাচনী সহিংসতা: কলারোয়ায় মাথা ফাটলো নৌকার প্রার্থীর, আহত-১৫

  • আপডেট সময় সোমবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১
নির্বাচনী সহিংসতা: কলারোয়ায় মাথা ফাটলো নৌকার প্রার্থীর, আহত-১৫

সোহাগ হোসেন কলারোয়া প্রতিনিধি ।।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কলারোয়া উপজেলার ৫নং কেঁড়াগাছি ইউনিয়নে হামলায় কয়েক জন গুরুতর আহতের ঘটনা ঘটেছে। ওই ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী ও তার কয়েকজন সহকর্মী প্রতিপক্ষের হাতে হামলার শিকার হয়েছেন। তাদের কয়েকজন গুরুতর জখম হয়েছে। তাদের মধ্যে সাতজনকে কলারোয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুইজনকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রবিবার রাতে উপজেলার কেঁড়াগাছি ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামের উত্তর পাড়া মসজিদ এলাকায় ওই সংঘর্ষ ঘটে।
কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আহতরা হলেন মোছলেউদ্দিন গাইনের পুত্র নৌকার প্রার্থী ভুট্টোলাল গাইন(৫৫), কিতাব উদ্দিন গাজীর পুত্র সিরাজুল গাজী (৪৫)ও ফারুক গাজী (৫৭), রেজাউল ইসলামের পুত্র শহীদ হোসেন (২৫), আজিজুল সরদারের পুত্র মন্টু (২৫), আব্দুল আলীর পুত্র আব্দুল বারিক (২৬) ও তবিবর গাজীর স্ত্রী বৃষ্টি (১৮), শাহজাহান গাজীর স্ত্রী আনেছা (৫৫)। অধিকাংশের বাড়ি বোয়ালিয়া গ্রামে বলে জানা গেছে। এদের মধ্যে সিরাজুল গাজী ও আনেছাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে: রবিবার দুপুরের দিকে বোয়ালিয়ায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের মানব বিষয়ক সম্পাদক মোঃনাহিদ হাসান শাহীন এর পিতা মারুফ হোসেনের মোটরসাইকেল প্রতীক এর নির্বাচনী কার্যালয় নৌকার কর্মীরা ভাঙচুর করে। এ ঘটনা জানাজানি হলে এক পর্যায়ে বিকালে মারুফ হোসেনের কর্মীরা পাল্টা কাকডাঙ্গা মোড়ে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় বন্ধ করে দেয়। এদিকে, রাত ৮ টার দিকে বোয়ালিয়া উত্তর পাড়ায় আওয়ামী লীগের আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন হাবিল ও নৌকার কর্মীদের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষে রূপ নেয়। খবর পেয়ে নৌকার প্রার্থী ও সাবেক চেয়ারম্যান ভুট্টো লাল গাইন ঘটনাস্থলে গেলে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও কর্মীরা উত্তেজিত হয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সেসময় দুই বিদ্রোহী প্রার্থী ও সমর্থকদের হাতে নৌকার প্রার্থী ও সমর্থকরা রক্তাক্ত আহত হয় বলে স্থানীয় কয়েকজন দাবি করেন। নৌকার কর্মীরা বলেন মারুফ হোসেন এর ২ছেলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা নাহিদ হাসান শাহিন ও কলারোয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান ফাহিম কলারোয়া থেকে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে যায়। এবং দেশীয় অস্ত্র-শাস্ত্র দিয়ে নৌকার পক্ষের নেতাকর্মীদের উপর আক্রমণ চালায়। ঘটনায় চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী ও দলটির ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ভুট্টো লাল গাইনসহ তার ১০থেকে ১২জন নেতাকর্মী গুরুতর আহত অবস্থায় কলারোয়া সরকারি হাসপাতালে আনা হয়। কলারোয়া হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার শফিকুল ইসলাম জানান,”দশজনের মতো আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। অবস্থা গুরুতর দেখে একজন মহিলাসহ দুইজনকে তাৎক্ষণিক সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এই মুহূর্তে সাতজন আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
কলারোয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর খাইরুল কবির জানান,”বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত আছে। অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনভাবেই নির্বাচনী পরিবেশ বিঘ্ন ঘটাতে দেওয়া হবে না।


Post Views:
50



নিউজের উৎস by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০২১
Designer: Shimulツ
themesba-lates1749691102