মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শরণখোলায় নগ্ন ভিডিও ধারণ করে স্ত্রীকে বর্বর নির্যাতন করে ইয়াসিন! কোষ্টগার্ডের অভিযানে গাঁজাসহ আটক-৪ পুড়েছে দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, একটি বসতঘর শরণখোলায় অগ্নিকান্ডে ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি শরণখোলায় সম্মিলিত সম্প্রীতি উদ্যোগের সভা অনুষ্ঠিত ‘জয়িতা’ শত বাধা পেরিয়ে শরণখোলার তিন নারীর সফলতার গল্প! রামপালে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওশান সরদারের জন্মদিন পালন খুলনার মেধাবী মীম এর পাশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় মোরেলগঞ্জের পিআইও অফিসে পাঁচ দফা দাবীতে অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন শরণখোলা উপজেলা স্কাউটসের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত বঙ্গোপসাগর উত্তাল, নিরাপদ আশ্রয়ে শত শত ট্রলার!

শিং বা মাগুর মাছ চাষে খাদ্য ও রোগ দমন ব্যবস্থাপনা | Adhunik Krishi Khamar

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৮ Time View
মাছ




Sundabon Academy

শিং বা মাগুর মাছ চাষে খাদ্য ও রোগ দমন ব্যবস্থাপনা ভালোভাবে জেনে রাখতে হবে। লাভজনক হওয়ায় অনেকেই পুকুরে শিং বা মাগুর মাছের চাষ করছেন। তবে সঠিক ব্যবস্থাপনা না জানার কারণে অনেকেই লোকসান করছেন। আজকের লেখায় জেনে নিব শিং বা মাগুর মাছ চাষে খাদ্য ও রোগ দমন ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে-

শিং বা মাগুর মাছ চাষে খাদ্য ও রোগ দমন ব্যবস্থাপনাঃ


খাদ্য ব্যবস্থাঃ


  • মাছের ওজন ৫০ গ্রামের উর্ধ্বে উঠলে খাদ্য প্রয়োগের পরিমাণ হবে তার দেহ ওজনের শতকরা ৫ ভাগ।
  • পোনা মজুদের পরের দিন থেকে মাছকে তার দেহ ওজনের ১০-১২ ভাগ দৈনিক খাবার দিতে হবে। দিনে দু বেলা হলে সকালে একবার অর্ধেক বিকালে অর্ধেক।
  • বাজরে শিং, মাগুরের আলাদা খাদ্য পাওয়া যায় অথবা পাংগাস ফিড গ্রোয়ার-১ দেয়া যেতে পারে।
  • প্রতি ১৫ দিন অন্তর খাদ্য প্রয়োগের হার ১% করে কমাতে হবে।
  • ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে পানির তাপমাত্রা আসলে শিং-মাগুর খাদ্য গ্রহন কমিয়ে দেয় এবং ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে আসলে খাদ্য গ্রহন বন্ধ করে দেয়।
  • শিং মাগুর মাছের চাষের ক্ষেত্রে ৩৫-৪০% প্রাণিজ প্রোটিন সমৃদ্ধ পিলেট খাদ্য ব্যবহার অপরিহার্য।

রোগ দমন ব্যবস্থাঃ


শিং ও মাগুর মাছে সাধারণত কোনো রোগ হয় না। তবে মাঝে মাঝে শীতকালে ক্ষত রোগ, লেজ ও পাখনা পচা রোগ এবং পেট ফোলা রোগ দেখা যায়। মাছ নিয়মিত বাড়ছে কিনা এবং মাছ রোগাক্রান্ত হচ্ছে কিনা জাল টেনে মাঝে মাঝে তা পরীক্ষা করতে হবে।

ক্ষত রোগেঃ


৫০০ গ্রাম চুন + ৫০০ গ্রাম লবন

পাখনা পচা রোগঃ


প্রতি লিটার পানিতে ৫ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম পারমেঙ্গানেট মিশ্রিত করে আক্রান্ত মাছকে ৩-৫ মিনিট গোসল করাতে হবে।

পেট ফোলাঃ


রেনামাইন/একুয়ামাইসিন + ভিটা টেক-সি

অন্যান্য ব্যবস্থাপনাঃ


  • পুকুরের পাড়ের উপরিতলে মজবুত করে ৩ ফুট উঁচু বেড়া/বেষ্টনি দিয়ে পুকুর হতে শিং-মাগুর মাছ বেরিয়ে যাওয়া রোধ করতে হবে।
  • মাসে ১ বার ২০-২৫% পানি পরিবর্তন করতে হবে।
  • পুকুরের পানি ভালো রাখার জন্য ১৫ দিন পর পর হররা টেনে দিতে হবে।
  • অ্যামোনিয়া গ্যাস দূর করার জন্য অ্যামোনিল (প্রতি একরে ২০০ মি.লি.) ব্যবহার করতে পারেন।
  • চাষকালীন সময়ে শামুকের আধিক্য পরিলক্ষিত হলে শতাংশ প্রতি ১০০-২০০ গ্রাম ইউরিয়া প্রয়োগে শামুকের আধিক্য কমবে।

আরও পড়ুনঃ পুকুর কিংবা ছোট জলাশয়ে কৈ মাছের চাষ…


মৎস্য প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার









Source by [সুন্দরবন]]

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
Sundabon Academy

Recent Posts

© 2022 sundarbon24.com|| All rights reserved.
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102