মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

পটুয়াখালীতে গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষে সাফল্য | Adhunik Krishi Khamar

  • আপডেট সময় সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
সবজি চাষ




পটুয়াখালীতে গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষে সাফল্য এসেছে। পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলায় প্রথমবারের মতো গ্রীষ্মকালীন হাইব্রিড টমেটো বারী-৮ চাষ করে সফল হয়েছে কৃষানী নিলীমা রানী। তার দেখাদেখি আরও বেশ কয়েকজন কৃষক-কৃষানী সফলতা পেয়েছেন। জমিতে টমেটোর ফলন দেখে তারা খুব খুশি। তাদের এই সফলতা দেখে স্থানীয় অনেক কৃষকরা গ্রীষ্মকালীন চমেটো চাষ করতে আগ্রহী হয়েছেন।

নিলীমা রানী ও তার স্বামী গনেষ হাওলাদার জানান, দোআঁশ মাটি টমেটো চাষের জন্য সবচেয়ে উপযোগী। জমি প্রস্তুত, পলিথিনের ছাউনি, সার, ওষুধ ও পরিচর্যা বাবদ যে টাকা খরচ হয়েছে। তার বেশিরভাগ বহন করেছে উপজেলা কৃষি বিভাগ। এপ্রিল থেকে জুন মাস বীজ বপনের সময়। ৪ থেকে ৫টা চাষ ও মই দিয়ে মাটি ঝুরঝুরে এবং অতিরিক্ত বৃষ্টির পানি দ্রুত নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে জমি তৈরি করতে হয়। ভালো ফলন ও চারার স্বাভাবিক বৃদ্ধির জন্য পলিথিন দিয়ে ছাউনি দিতে হবে।

চাষি ইউনুছ মিয়া বলেন, আমি খুলনার দৌলতপুরে প্রশিক্ষণ নিয়েছি। আমি বিভিন্ন গাছের চাড়া কাটিংও করতে পারি। গ্রীষ্মকালীন টমেটো সাধারণত শীত মৌসুমে আমরা পেতাম। উপজেলা কৃষি বিভাগের সহযোগীতায় প্রথমবার পলিথিনের ছাউনি দিয়ে গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষ করেছি। গাছে ফুল ও ফল আসতে শুরু করেছে। বর্তমান বাজারে ৮০-১০০ টাকা টমেটো বিক্রি করতে পারবো আশা করছি।

উপজেলা কৃষি অফিসার আরাফাত হোসেন জানান, টমেটো সাধারনত শীতকালীন ফসল। কিন্তু বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কিছু গ্রীষ্মকালীন টমেটোর বারি-৮ জাত আবিস্কার করেন। সারিবদ্ধভাবে গ্রীষ্মকালীন টমেটো বারী-৮ জাতের টমেটো রোপন করতে হয়। যে কয়টি প্রদশর্নী দেয়া হয়েছে তার প্রত্যেকটিতে ফুল ও ফল আসতে শুরু করেছে। গ্রীষ্মকালীন টমেটো চাষ বেশ লাভজনক। এ কারণে দেশে গ্রীষ্মকালে টমেটো চাষের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ মৌলভীবাজারে মাল্টা চাষে স্বাবলম্বী আল আমিন


কৃষি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার









Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি
সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102