শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:১৫ অপরাহ্ন

এখন থেকে গায়ে হলুদের গানের প্লে-লিস্ট ঠিক করে দেবে এলাকাবাসী

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
এখন থেকে গায়ে হলুদের গানের প্লে-লিস্ট ঠিক করে দেবে এলাকাবাসী

এখন থেকে গায়ে হলুদের গানের প্লে লিস্ট ঠিক করবে এলাকাবাসী। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও এর বলরুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন একটি সিদ্ধান্তের কথা জানান, বাংলাদেশ গায়ে হলুদ কমিটির এলাকাবাসীর পক্ষের সহ-সম্পাদক আবুল মোতালেব। তিনি বলেন, ‘যেহেতু গায়ে হলুদের গানটা পুরো এলাকাবাসী শুনছে তাই তাদের পছন্দ-অপছন্দের ব্যাপার এড়িয়ে যাওয়া যাবে না। সেজন্যই আমরা এমন একটা সিদ্ধান্তে এসেছি।’  

এমন সিদ্ধান্তের কথা শুনে তেজগাঁ এলাকার সুমন আবেগে কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘এতোদিনে একটা মনের মতো সিদ্ধান্ত হলো, এখন গায়ে হলুদের গানে আর সমস্যা হবে না।’ একই রকম চিত্র দেখা গেলো ঢাকার মোহাম্মদপুর, ধানমণ্ডি, মিরপুর এলাকাতেও। সেখানকার তরুণ-বৃদ্ধ-শিশু সবাই এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে। এই প্রসঙ্গে সিনিয়র সিটিজেন তারেক আজিজ বলেন, ‘আমার জন্য ভালোই হলো, গত সপ্তাহ থেকে আমার মিউজিক প্লেয়ারটা নষ্ট। ভাল্লাগতেছে এই ভেবে যে এখন থেকে হলুদের অনুষ্ঠানে চাইলে মান্না দের গানও শোনা যাবে।‘

তবে গায়ে হলুদের আয়োজকরা এই সিদ্ধান্ত সরাসরি নাকচ করে দিয়ে জানিয়েছেন, ‘বর-কনে আমাদের, হলুদ আমাদের, মিউজিক প্লেয়ার-স্পিকার আমাদের। কোন যুক্তিতে এলাকাবাসী প্লে লিস্ট ঠিক করবে?’

এমন কথার জবাব দিয়েছেন এলাকাবাসীর পক্ষের সহ-সম্পাদক আবুল মোতালেব। তিনি বলেন, ‘হয় এলাকাবাসীকে গায়ে হলুদের প্লে-লিস্ট করার সুযোগ দিতে হবে, নইলে হলুদের বিরিয়ানী খাওয়াতে হবে। এখন দেখেন কোনটা ভালো?’

এলাকাবাসী হিসাবে রাতভর গায়ে হলুদের ডিজে গান/ হিন্দি গান শোনার অভিজ্ঞতা জানতে চাইলে চট্টগ্রামের আবসার সাকি বলেন, ‘প্রথমবার যখন মধ্যরাতে সাকি রে সাকি গানটা শুনে ঘুম ভাঙ্গে, আমি ভেবেছিলাম আমাকে কেউ ডাকছে।‘

এদিকে পুরো বিষয়টাকে ইতিবাচক হিসাবে দেখছেন সুশীল সমাজ। তারা জানান, ‘সারারাত ধরে গান তো শুনতেই হয়, সেখানে নিজের পছন্দের গান হলে তাও মেনে নেয়া যায়।‘  তবে আইটি সেক্টরে কাজ করা নাজমুল বলেছেন একেবারে ভিন্ন কিছু। তিনি বলেন, ‘এভাবে প্লে-লিস্ট ঠিক করে সমস্যার সমাধান হবে না। লাইভ একজন আরজে লাগবে, আর সরাসরি গান রিকোয়েস্ট করার সুযোগ থাকতে হবে।‘

তার আইডিয়া নিয়েও ভাবছে গায়ে হলুদ উদযাপন কমিটি। তারা বলেন, ‘আমাদের অ্যাপের কাজ চলছে। অ্যাপটা চলে এলে সরাসরি অ্যাপের মাধ্যমে গায়ে হলুদের গানের রিকোয়েস্ট করা যাবে। আর যদি রিকোয়েস্ট না রাখে তাহলে প্রতি রিকোয়েস্টে এক প্যাকেট বিরিয়ানী পেনাল্টি দিবেন।’




Source by [সুন্দরবন]]

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Recent Posts

© 2022 sundarbon24.com|| All rights reserved.
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102