শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
চালের বস্তায় নিষিদ্ধ পলিব্যাগের ব্যাবহার ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই ব্যবসায়ীকে ৩০হাজার টাকা জরিমানা মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশন পুশ করায় রোগীর শরীরে জ্বালাযন্ত্রনা ফার্মেসী সিলগালা:পলাতক গ্রাম্য চিকিৎসক বাংলাদেশকে জানতে হলে আগে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে ….এমপি মিলন সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে মোংলায় বিক্ষোভ মিছিল সারা খুলনা অঞ্চলের সব খবরা খবর নদীর পাড়ে শাড়ি পরে দুর্দান্ত ড্যান্স দিলো সুন্দরী যুবতী যুদ্ধের ধ্বংসস্তুপের উপর দাঁড়িয়েও বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি কাঠামো দাঁড় করিয়েছেন – মোস্তাফা জব্বার – টেক শহর বিশ্বকাপে পর্তুগালকে ফেবারিট মানছেন আর্জেন্টাইন তারকা – স্পোর্টস প্রতিদিন বিশ্ববাজারে আবারও কমল জ্বালানি তেলের দাম গর্তে লুকিয়ে থাকা ইঁদুরটি দেখলো চাষী ও তার স্ত্রী দুজনে মিলে

ভিন্ন জাতের মুরগি পালন করে সফল কাশেম মিয়া ; দাম ১২ হাজার, ডিমের হালি ২৪০০ টাকা

  • আপডেট সময় বুধবার, ২২ জুন, ২০২২
ভিন্ন জাতের মুরগি পালন করে সফল কাশেম মিয়া ; দাম ১২ হাজার, ডিমের হালি ২৪০০ টাকা

জুমবাংলা ডেস্ক : আমেরিকার বিখ্যাত ব্রাহমা জাতের মুরগি পালন করে সফলতা পেয়েছেন নরসিংদীর পলাশ উপজেলার কাশেম মিয়া নামে এক উদ্যোক্তা। এ জাতের মুরগি দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি সাধারণ মুরগির চেয়ে ওজনে বেশি।

এক জোড়া ব্রাহমা মুরগি কিনতে ক্রেতাদের গুণতে হয় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। আর এই উন্নত জাতের মুরগি পালন করে এলাকায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন কাশেম মিয়া।

এই মুরগি দেখতে সাধারণ মুরগির মতই। তবে এটি আকারে দেশি মুরগির চেয়ে বড় এবং ওজনে বেশি হয়। ১৮৫০ থেকে ১৯৩০ সাল পর্যন্ত আমেরিকায় মাংসের প্রধান উৎসই ছিল এই মুরগি। প্রাপ্ত বয়সে এক একটি মুরগির ওজন হয় ৭ থেকে ৮ কেজি।

কাশেম মিয়া জানান, ২০১৭ সালে সখের বসে প্রবাসী এক বন্ধুর সহায়তায় ২ লাখ ১৩ হাজার টাকা দিয়ে রোমানীয়া থেকে ৫ জোড়া ব্রাহমা জাতের মুরগি কিনে আনেন তিনি। এরপর মুরগি থেকে ডিম পেয়ে পরিকল্পনা করেন খামারের। ইনকিউবেটর মেশিনে ডিম থেকে বাচ্চা ফুটিয়ে একে একে বাড়াতে থাকেন মুরগির সংখ্যা। গত ৫ বছরে এই খামার থেকে ২০ লাখ টাকার মুরগি বিক্রি করেছেন তিনি

বর্তমানে কাশেম মিয়ার খামারে সাদা ও সোনালী রঙের ৫০ জোড়া ব্রাহমা জাতের মুরগি রয়েছে। এক জোড়া মুরগি ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

কাশেম মিয়া বলেন, প্রথম টার্কি মুরগি পালন করতাম। হঠাৎ করে ইউটিউবে এ জাতের মুরগি দেখে সখ জাগে এটি পালনের। প্রথম প্রথম ভাবতাম বাংলাদেশের আবহাওয়ায় এই মুরগি পালন করা সম্ভব হবে না। পরে দেখি সাধারণ মুরগির মতোই এগুলো পালন করা যায়।

তিনি আরও বলেন, ৬ মাসেই এ জাতের মুরগির পরিপূর্ণ ওজনের হয়ে উঠে। এসব মুরগির ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে বিক্রি করি। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সৌখিন মানুষ এ জাতের মুরগি কিনে নিয়ে যায়। এই মুরগির মাংস ও ডিমের চাহিদা অনেক। এক জোড়া মুরগি আকার বেধে ২০ হাজার থেকে ৩০ হাজার টাকায়ও বিক্রি করা হয়। এছাড়া এক হালি ডিম বিক্রি হয় ২৪০০ টাকায়।

এদিকে দৃষ্টিনন্দন এসব মুরগি দেখতে প্রতিদিনই দূর-দূরান্ত থেকে অনেকেই ছুটে আসছেন কাশেম মিয়ার খামারে। খামার থেকে পরামর্শ নিয়ে এ জাতের মুরগি পালনে আগ্রহ প্রকাশ করছেন অনেক তরুণ উদ্যোক্তা।

এই মুরগি সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা যায়, ১৮৫২ সালে আমেরিকার অন্যতম রাজনীতিবিদ জর্জ বুরহাম ইংল্যান্ডের রানি ভক্টোরিয়াকে ৯টি ব্রাহমা জাতের মুরগি উপহার দেন। সুন্দর্য্যের কারণে বাংলাদেশেও অনেক স্থানে সৌখিন মানুষরা এই মুরগি পালন করে আসছে।

পলাশ উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো শফিকুল আলম জানান, আমেরিকার বিখ্যাত ব্রাহমা জাতের মুরগি বাংলাদেশের আবহাওয়ায় পালন করা সম্ভব। সাধারণ মুরগির মতোই এটি পালন করা যায়। খামারি কাশেম মিয়াকে উন্নত জাতের এই মুরগি বাণিজ্যিকভাবে পালনে সহযোগিতা করা হবে।

বাসর রাতে বিড়াল মারা বলতে কি বুঝায়



Source by [সুন্দরবন]]

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ এই ক্যাটাগরি

Recent Posts

সুন্দরবন টোয়েন্টিফোর ডট কম, সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত - ২০১৯-২০২২
Designer:Shimul Hossain
themesba-lates1749691102